উজিরপুরে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে প্রস্তুতি সভায় শাহে আলম এমপি

প্রকাশিত: ৭:৪৯ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৬, ২০২০

মহসিন মিঞা লিটন, উজিরপুর প্রতিনিধি ::

বরিশালের উজিরপুরে উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে প্রস্তুতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন বরিশাল-২ আসনের সংসদ সদস্য ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোঃ শাহে আলম।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মোঃ গিয়াস উদ্দিন বেপারীর সভাপতিত্বে প্রস্তুতি সভায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আঃ মজিদ সিকদার বাচ্চু, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান ইকবাল, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা অধ্যক্ষ সুখেন্দু শেখর বৈদ্য, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ-সভাপতি অশোক কুমার হাওলাদার, যুগ্ম সম্পাদক এ্যাড: সালাউদ্দিন সিবু, এ্যাড: শহিদুল ইসলাম, সদস্য তাপস কুমার শাহা, জেলা পরিষদ সদস্য আওরঙ্গজেব, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি কামাল হোসেন সবুজ, শ্রমিকলীগ যুগ্ম আহবায়ক শিপন মোল্লা, ছাত্রলীগ সভাপতি অসীম কুমার ঘরামী, ইউপি চেয়ারম্যান ডাঃ দেলোয়ার হোসেন, অধ্যক্ষ শাহাদাত, কাজী হুমায়ুন কবির, ইউসুফ হোসেন হাওলাদার, সরোয়ার হোসেন সহ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি, সম্পাদক ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রস্তুতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মোঃ শাহে আলম এমপি বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে জাতির জনক সহ তার পরিবারের সকলকে হত্যা করে কতিপয় বিপথগামী সেনাসদস্য ও পাকিস্তানি দোসররা দেশ থেকে চিরতরে বঙ্গবন্ধুর নাম মুছে ফেলতে চেয়েছিল কিন্তু তারা ব্যর্থ হয়েছে। আজ বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরেই বাংলাদেশের আমূল পরিবর্তন ও উন্নয়ন সাধিত হচ্ছে। উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মোঃ গিয়াস উদ্দিন বেপারী জানান, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট একদল বিপথগামী সেনা সদস্য ও পাকিস্তানি দোসররা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ তার পরিবারের সদস্যদের নির্মমভাবে হত্যা করে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামীলীগ করোনা ভাইরাস উপলক্ষে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ১৫ আগস্ট সকালে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, পুষ্পমাল্য অর্পণ, র‌্যালী ও আলোচনা সভা এবং উপজেলার প্রতিটি মসজিদে পবিত্র কুরআন তিলওয়াত, দোয়া অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া ২০০৪ সালে ২১ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার জনসভায় নারকীয় গ্রেনেড হামলা হয়েছিল। অল্পের জন্য বেঁচে গেলেন শেখ হাসিনা। তাই ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা দিবস এবং ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট সারাদেশ ব্যাপী ৬৩ জেলায় একই সাথে সিরিজ বোমা হামলা হয়েছিল এর প্রতিবাদে ১৭ আগস্ট সিরিজ বোমা হামলা দিবস পালিত হবে।

Sharing is caring!