উজিরপুরে উগ্রতাঁরা মন্দিরের ৩০ ভরি স্বর্ণালংকার লুট, আটক -৪

প্রকাশিত: ৭:২৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১, ২০২১

মহমিন মিঞা লিটন, উজিরপুর প্রতিনিধি ॥ বরিশালের উজিরপুরে ঐতিহ্যবাহী উগ্রতাঁরা মন্দির থেকে ৩০ ভরি স্বর্ণালংকার লুট করেছে দুর্বৃত্তরা। ঘটনাস্থল পুলিশ সুপার, সহকারী পুলিশ সুপার, ওসি ও পৌর মেয়র পরিদর্শন করেছেন। সন্দেহজনক ভাবে ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে মডেল থানা পুলিশ। উপজেলার শিকারপুর ইউনিয়নের তাঁরাবাড়ির উগ্রতাঁরা মন্দিরের তাঁরা মূর্তির শরীরে ৩০ ভরি স্বর্ণালংকার পরানো ছিল। ১ ফেব্রুয়ারী সকাল ৭টায় মন্দিরের সেবায়েত গৌরাঙ্গ চক্রবর্তী মন্দিরের একটি দরজা খোলা দেখে ভিতরে ঢুকে মূর্তির শরীরে পরিহিত স্বর্ণালংকার দেখতে না পেয়ে স্থানীয়দের অবহিত করেন।

 

বিষয়টি স্থানীয়রা থানা পুলিশকে অবহিত করলে মডেল থানার ওসি জিয়াউল আহসান তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। এরপরে সহকারী পুলিশ সুপার আবু জাফর মোহাম্মদ রহমতুল্লাহ, বরিশালের পদোন্নতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মোঃ নাইমুল হক ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। ক্রাইমসিন বিভাগের সহযোগিতায় সিসিটিভির ফুটেজ দেখে প্রাথমিকভাবে মুন্ডপাশা গ্রামের মৃত গোপাল মাঝির ছেলে পরিমল মাঝি(৪৫), তার সহোদর ভাই সঞ্জয় মাঝি(৪০) মৃত নীলকান্ত গাইনের ছেলে গোপাল গাইন(৪০), শিকারপুর গ্রামের মৃত নিত্যানন্দ দাসের ছেলে রনজিৎ দাস(৪২) কে আটক করে মডেল থানা পুলিশ। পুলিশ সুপার নাইমুল হক জানান, প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদেরকে আটক করা হয়েছে। স্বর্ণ উদ্ধারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

 

মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক অমল দাস গুপ্ত ও সহ-সভাপতি দেবাশিষ দাস জানান, মন্দিরটি পুনঃসংস্কার করেছেন ডাঃ পীযুষ কান্তি দাস এবং এ্যাড: বলরাম পোদ্দার। তাঁরা মায়ের মূর্তির শরীরে এক বছর পূর্বে ৩০ ভরি স্বর্ণালংকার পরিয়ে দেন। এটি লুট হওয়ায় আমরা মর্মাহত। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় সকল দরজায় বাহির ও ভিতর থেকে তালাবদ্ধ ছিল। তবে একটি দরজার তালা খোলা ছিল। মন্দিরের চারদিকে সিসিক্যামেরার আওতাভুক্ত এবং মন্দিরের ভিতরেও দুটি সিসি ক্যামেরা রয়েছে। দুর্বৃত্তরা বাহিরের সিসি ক্যামেরাগুলো ঘুরিয়ে ফেললেও ভিতরের ক্যামেরাগুলো সঠিক স্থানে থাকায় স্বর্ণলুটের ঘটনা ক্যামেরায় ধরা পড়ে।