উজিরপুরে ইজিবাইক চালক মামুন হত্যার ঘটনায় বিচার দাবীতে মানববন্ধন


Deprecated: get_the_author_ID is deprecated since version 2.8.0! Use get_the_author_meta('ID') instead. in /home/ajkerbarta/public_html/wp-includes/functions.php on line 4861
প্রকাশিত: ৭:৩৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩১, ২০২০

মহসিন মিঞা লিটন, উজিরপুর প্রতিনিধি ::

বরিশালের উজিরপুরের বামরাইলে আলোচিত শ্রমিকলীগ কর্মী ইজিবাইক চালক মামুন রাড়ীর নৃশংস হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। দ্রুত হত্যার রহস্য উদঘাটন করে খুনিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়ে রবিবার বিকেল ৫ টায় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ ইউসুফ হোসেন হাওলাদার ও ইউপি সদস্য আব্দুস সালাম সরদারের নেতৃত্বে ঢাকা-বরিশাল মহসড়কের বামরাইল বন্দরে ব্যবসায়ীসহ শত শত স্থানীয়রা মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছেন।

পরিশেষে আলোচনা সভায় বক্তৃতা করেন বামরাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ইউসুফ হোসেন হাওলাদার, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান কবির, বীর মুক্তিযোদ্ধা আয়নাল হক হাওলাদার, তৈয়ব আলি খলিফা, ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক শাওন বালী, বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক মিরাজ ফরাজী, যুবলীগ নেতা সজিব শরীফ, ২নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আরিফুল আল আমিন, সম্পাদক হাছান রাড়ী, সাবেক সভাপতি বজলুর রহমান চুন্নু রাড়ী।

আরো উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য আতিকুর রহমান রাড়ী, আরিফ শরীফ, শিল্পি বেগমসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার প্রায় ৫ শতাধিক মানুষ। এ ছাড়াও মানব বন্ধনে ব্যানারের সামনে নিহত মামুনের অবুঝ কন্যা শিশু মারিয়া কেঁদে কেঁদে বাবার জন্য আকুতি করে ও বিচারের প্রার্থনা করে।

এসময় বক্তারা বলেন, আর যেন কোন মায়ের বুক খালি না হয়, অবুঝ সন্তানরা বাবাহারা না হয় এবং কোন স্ত্রী স্বামীহারা না হয় তাই খুনিদের বিচারের দাবীতে প্রশাসনের সু-দৃষ্টি কামনা করেন এবং দ্রুত মামুন রাড়ীর হত্যার রহস্য উদঘাটন ও অভিযুক্তদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া না হলে আরো কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে বলে ঘোষণা দেন।

উল্লেখ্য, ১৯ আগষ্ট রাতে বামরাইল ইউনিয়নের উঃমোড়াকাঠী গ্রামের আব্দুস সালাম রাড়ীর ছেলে ইজিবাইক চালক মোঃ মামুন রাড়ী(২৫) নিখোঁজ হন। ২০ আগস্ট উজিরপুর মডেল থানায় এ ব্যাপারে সাধারণ ডায়েরী করা হয়। ২৬ আগস্ট বার্থী গ্রাম থেকে মামুনের লাশ উদ্ধার করে গৌরনদী থানা পুলিশ। হত্যার ঘটনায় ওই রাতে গৌরনদী থানায় অজ্ঞাতনামা একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, নিহত মামুনের ৪ বছরের মারিয়া নামের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। এমনকী গর্ভবতী স্ত্রী স্বামী খুন হওয়ায় অবুঝ শিশুকে নিয়ে বর্তমানে মানবতার জীবন যাপন করছেন।

এ হৃদয় বিদারক দৃশ্য দেখার নয়। মামুনকে নির্মম ভাবে হত্যার ঘটনায় পরিবারসহ পুরো উপজেলায় শোকের মাতম বইছে। এমনকি শোকাহত পরিবার ও অবুঝ শিশুর কান্না দেখে এলাকার সকল মানুষের চোখে জল এসে যায়। অচিরেই হত্যার ক্লু উদঘাটন করে খুনিদের গ্রেফতার পূর্বক ফাঁসির দাবী জানিয়ে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেন শোকাহত পরিবার ও এলাকাবাসী।