উজিরপুরে আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা : মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের ভিটে-মাটি দখলের পাঁয়তারা

প্রকাশিত: ৬:৪৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৭, ২০২০

মহসিন মিঞা লিটন, উজিরপুর প্রতিনিধি ॥

বরিশালের উজিরপুরে আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের পৈত্রিক ভোগদখলীয় ৮০ শতাংশ জমিতে ভবন নির্মাণ করে জোরপূর্বক দখলের পাঁয়তারা চালাচ্ছে প্রভাবশালী ভূমিদস্যুরা।

ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ওটরা ইউনিয়নের কেশবকাঠী গ্রামের সুবেদার বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল সরদার ২০ নং কেশবকাঠী মৌজায় এস.এ দাগ ৭৫৭,খতিয়ান নং-৪১৩, মোট ৭ একর ৮২ শতাংশ জমি, এর মধ্যে ১ একর ৩২ শতাংশ জমি ক্রয় করে দলিল মুলে মালিক হয়ে ভোগদখল করেছিলেন। তিনি মারা যাওয়ার পরে তার ছেলে নজরুল ইসলাম সরদার গং উক্ত জমির মালিক হন এবং তারা দীর্ঘদিন যাবৎ ভোগদখল করে আসছেন।

এরমধ্যে ৮০ শতাংশ জমি দখলের মিশনে নেমেছেন একই এলাকার মৃত নেছার উদ্দিন মল্লিকের ছেলে প্রভাবশালী ভূমিদস্যু সাইফুল ইসলাম মল্লিক গং। ওই জমি নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছিল। এমনকি নজরুল ইসলাম সরদার গং বিরোধীয় জমির উপর নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। সে মামলায় উজিরপুর মডেল থানা পুলিশ উক্ত জমিতে উভয় পক্ষকে সকল ধরনের কার্যক্রম বন্ধের নোটিশ প্রদান করেন।

কিন্তু সাইফুল ইসলাম গং আদালতের নিষেধাজ্ঞাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ক্ষমতার দাপটে ওই জমিতে জোরপূর্বক ভবন নির্মাণের কার্যক্রম শুরু করে দখলের পাঁয়তারা চালাচ্ছেন।

ভুক্তভোগী নজরুল ইসলাম জানান, তারা প্রভাবশালী হওয়ায় আইনকে তোয়াক্কা করেনা। অন্যের জমি দখল করা তাদের নেশা ও পেশা। আমাদের পৈত্রিক জমি ভিটে-মাটি দখলের পাঁয়তারা চালাচ্ছে ওই প্রভাবশালী ভূমিদস্যুরা। অভিযুক্ত সাইফুল ইসলাম মল্লিকের মোবাইল ফোনটি বন্ধ থাকায় এবিষয়ে তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

ওই প্রভাবশালী ভূমিদস্যুদের কবল থেকে রেহাই পেতে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেছে অসহায় মুক্তিযোদ্ধা পরিবারটি।

Sharing is caring!