ইমো ব্যবহারে সতর্কতা : শ্রীপুরে প্রবাসীর স্ত্রীর অশ্লীল ছবি ছড়িয়ে গ্রেপ্তার-১

প্রকাশিত: ২:০৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৭, ২০২০
আরিফ প্রধান, গাজীপুর প্রতিনিধি: ইমো, মেসেঞ্জারে ভিডিও কলে বিবস্ত্র, নগ্ন হয়ে কথা বলে অনেকেই বিভিন্ন ভাবে হয়রানি ও প্রতারনায় স্বীকার হয়ে ইজ্জত,  মানসম্মান, অর্থ, সামাজিক মর্যাদা ক্ষুন্ন, পরিবার, সংসারে অশান্তিসহ এমনকি আত্মহত্যার ঘটনাও ঘটেছে।

অনেকে অসৎ উদ্দেশ্যে এভাবে কথা বলে কৌশলে তা ধারণ করে, পরে শারীরিক সম্পর্কে বাধ্য করা, হুমকি দিয়ে টাকা আদায় করা, বিভিন্নভাবে অনৈতিক সুবিধা নেওয়াসহ বিভিন্ন খারাপ কাজে ব্যবহার করে থাকে। অনেক সময় টাকা বা অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হলে তা ফেসবুক বা অন্য মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়।
বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, ভিডিও কলে, অপরিচিত ত নয়ই পরিচিত এমনকি স্বামী স্ত্রীও এভাবে বিবস্ত্র হয়ে কথা বলা ঠিক নয়। অনেক সময় স্বামী স্ত্রী এভাবে কথা বলে। অনেক হ্যাকার সেগুলো হ্যাক করে তাদের নিজেদের কাছে নিয়ে নেয়। পরে তাদেরকে বিভিন্নভাবে (ব্ল্যকমেইল)জিম্মি করে।
এবার
গাজীপুরের শ্রীপুরে প্রবাসীর স্ত্রীর নগ্ন, অশ্লীল ছবি ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে রাজাবাড়ির চিনাশুকানিয়া গ্রামের মজম খান বাড়ি মসজিদের ইমাম, সিরাজগঞ্জ সদরের একডালা রতনকান্দি এলাকার মাহির উদ্দিনের সন্তান মাওলানা ১. সিরাজ (৩৫),
চিনাশুকানিয়া গ্রামের নুরু মিয়ার সন্তান ২. ফরিদ (২২) কফিল উদ্দিন শেখের সন্তান ৩.জনী শেখ (২৬), রমিজ উদ্দিনের সন্তান ৪. মতিন (২৬), ফেলা মোল্লার সন্তান ৫. জামাল মোল্লা( ৪০), মাসুদ মোল্লার সন্তান ৬.মামুন (১৯), মৃত হোসেন ফকিরের সন্তান ৭.দেলোয়ার হোসেন দুলাল(৪০) মৃত ইসলাম উদ্দিনের সন্তান ৮. ইব্রাহিম (৩৫) সহ অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে অভিযুক্ত করে শ্রীপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন প্রবাসীর স্ত্রী। এঘটনায় ৩ নং আসামি জনিকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।
মামলা সুত্রে জানাযায়, প্রবাসীর ৭ বছরের কন্যা স্থানীয় মসজিদের ইমাম সিরাজের কাছে আরবি শিখতো। এসুবাদে প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে সিরাজের পরিচয় ও সম্পর্ক তৈরি হয়। পরে সিরাজ প্রবাসীর স্ত্রীর কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা ধার নেয়। তারা প্রায়ই ইমোতে ভিডিও কলে কথাবার্তা বলতো। তাদের মধ্যে বন্ধুত্ব গড়ে উঠে। সিরাজ প্রবাসীর স্ত্রীকে বিবস্ত্র হয়ে ভিডিও কলে কথাবার্তা বলার প্রস্তাব দিতো।
১ জুলাই রাতে ইমোতে ফোন দিয়ে তাকে বিবস্ত্র হয়ে ভিডিও কলে কথাবার্তা বলার জন্য বলে। না বললে ধারকৃত টাকা ফেরত দিবেনা ও ছবি এডিট করে বিকৃত করে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিলে প্রবাসীর স্ত্রী নগ্ন, বিবস্ত্র হয়ে সিরাজের সাথে ভিডিও কলে কথা বলে, সিরাজ স্ক্রিনশট দিয়ে বিবস্ত্র ছবি সংরক্ষণ করে রাখে। পরে সিরাজের মোবাইল থেকে অন্য একজন কৌশলে অথবা সিরাজই ছবিগুলো আরেকজনের মোবাইলে দিয়ে দেয় এভাবে একজনের কাছ থেকে আরেকজনের মোবাইলে, পরে এলাকায় প্রবাসীর স্ত্রীর নগ্ন, অশ্লীল ছবি ছড়িয়ে পরে।
মামলার তদন্তকারী অফিসার শ্রীপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) হাবিবুর রহমান জানান, প্রবাসীর স্ত্রীর অশ্লীল ছবি ছড়িয়ে দেওয়ায় তিনি বাদী হয়ে ৮ জন ও অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করেছেন। ইতিমধ্যে একজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে, বাকি আসামিদের ধরতে অভিযান অব্যাহত আছে।

Sharing is caring!