আর্থিক যশ-খ্যাতি কোন চূড়ান্ত সাফল্য নয়-বিএমপি কমিশনার

প্রকাশিত: ১১:২৯ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ (বিএমপি) কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান- বিপিএম (বার) বলেছেন, “শুরুতেই যদি নিয়ত ভালো হয়, জনকল্যাণের হয়, তাহলে পুরোটা জীবন ইবাদতের শামিল হবে। আমরা পুলিশ, ক্রাইম নিয়ে কাজ করে দেখেছি দুষ্কৃতিকারী, চোর, বাটপারদেরও প্রচার মেধা। যা সমাজ বা রাষ্ট্রের জন্য কোন কল্যাণ বয়ে আনে না। আর্থিক যশ-খ্যাতি কোন চূড়ান্ত সাফল্য নয়, দেশের স্বার্থে কর্মময় জীবন অনেক মূল্যবান ও সম্মানের। তাই পেশাদারিত্বের সাথে আন্তরিক হয়ে জনগণের ট্যাক্সের টাকায় অর্পিত বেতন এর দায় শোধ করতে হবে।”

সোমবার (৩ আগস্ট) বরিশাল নগরীর পুলিশ লাইন্সের গ্রিড সেডে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কর্তৃক আয়োজিত বিসিএস ৩৮ তম ব্যাচের সুপারিশকৃত বরিশাল জেলা অফিসারদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি’র বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

এর আগে ৩৮ তম বিসিএস এ সুপারিশকৃত বরিশাল জেলা অফিসারদের ফুলেল শুভেচ্ছা ও শুভেচ্ছা স্মারক প্রদান করেন বিএমপি কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান।

এসময় সততা, দেশপ্রেম, দক্ষতা সব কিছু প্রয়োগ করে নিজেকে দুর্নীতিমুক্ত রেখে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সত্যিকারের সোনার বাংলা গড়ার আহ্বান জানিয়ে বিএমপি কমিশনার বলেন, আপনাদেরে এই সফলতার পিছনে শুধু মা-বাবার অবদান নয়, অবদান রয়েছে এদেশের কৃষক শ্রমিক ও মেহনতি মানুষের। তাই মা-বাবার প্রতি যেমন কর্তব্য রয়েছে তেমনি দেশের মানুষের প্রতিও ঋণ কম নয়।

বিএমপি কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান বলেন, “আমাদের দেশ ঘুরে দাঁড়িয়েছে, এখন পিছনে তাকানোর সময় নেই। আমরা যেন কাঙ্খিত পরিবর্তন আনতে পারি সেই লক্ষ্যে এগিয়ে যেতে হবে। মনে রাখবেন, ‘কিছু লোকদের শায়েস্তা করতেই হবে, নয়তো তারা পরিবর্তিত হবে না বরং সমুন্নত দেশ গড়ার নেপথ্যে তারা বাধা হয়ে দাঁড়াবে।

এসময় অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার প্রলয় চিসিম, উপ-পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অপারেশন অ্যান্ড প্রসিকিউশন) মো. জুলফিকার আলী হায়দার, উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর দপ্তর) আবু রায়হান মোহাম্মদ সালেহ, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) জাকারিয়া রহমান জিকু, সহকারী পুলিশ কমিশনার (কোতয়ালী) মো. রাসেল, সহকারী পুলিশ কমিশনার (স্টাফ অফিসার) আব্দুল হালিম, সহকারী পুলিশ কমিশনার (ফোর্স) মো. মাসুদ রানা, মেট্রোপলিটন পুলিশ লাইন্সের আরআই মোবাক্ষের হোসেন প্রমুখ।

Sharing is caring!