“আমার বাবা বেকার হলে আমরা বাঁচবো কি খেয়ে?”

প্রকাশিত: ৯:২২ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৯

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাবাকে বেকারত্ব থেকে বাঁচাতে এবার মাঠে নেমেছে সন্তানরা। তারা রাজপথে নেমে এখন আন্দোলন শুরু করেছে। সম্প্রতি বরিশালে ব্যাটারিচালিত রিকশা চলাচল বন্ধের প্রতিবাদে রাস্তায় নেমেছে ব্যাটারিচালিত রিকশা চালকদের সন্তানরা। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১টায় নগরীর সদর রোডে ভাদ্র মাসের গরম ও কাঠফাটা প্রচ- রোদ উপো করে স্কুলের কাস বাদ দিয়ে শিক্ষার্থীরা এই দাবি তোলে। তারা বলে, ‘আমাদের বাবা’র জীবিকা উচ্ছেদ হলে পেটে লাথি পড়ে আমাদেরও।’ এসময় তারা ব্যাটারিচালিত রিকশা চলাচলের অনুমতি এবং জীবন-জীবিকার নিশ্চয়তা প্রদানে প্রশাসন ও নগর পিতার প্রতি আকুল আকুতি জানায়। ব্যাটারিচালিত রিকশা শ্রমিকদের সন্তানের ব্যানারে মানববন্ধন ও মানবিক আবেদন জানিয়ে এই পথসভার আয়োজন করা হয়। সামসুর আক্তার লামিয়ার সভাপতিত্বে মানববন্ধন ও মানবিক পথসভায় লিখিত বক্তব্য পাঠ করে নগরীর চাঁদমারী উদ্বাস্তু আদর্শ সরকারি প্রাইমারি স্কুলের তৃতীয় শ্রেণির শিার্থী রিকশা শ্রমিকের সন্তান হিরা আক্তার মনি। আরো বক্তব্য রাখে বরিশাল সরকারি বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির শিার্থী সিমু আক্তার, একই শিা প্রতিষ্ঠানের ৯ম শ্রেণির শিার্থী হাসনা হেনা মিম। তাদের সাথে সংহতি প্রকাশ করে সমাজতান্ত্রিকদল (বাসদ)’র জেলা সদস্য সচিব ডা. মনীষা চক্রবর্ত্তী বলেন, আপনারা জনগণের প্রতিনিধি হয়ে সাধারণ খেটে খাওয়া জনগণের কষ্টের কথা আজ শুনতে চাননা। আজ এসকল শিার্থীরা বাবার বেকারত্ব জীবনের কারণে শিা জীবন থেকে ঝরে গিয়ে যদি অনৈতিক বিপথগামী পথে পা বাড়িয়ে দেয় তাহলে এদের জীবনের দায়ভার কে নেবে? তাই বরিশাল নগর পিতা ও প্রশাসনের প্রতি এসকল সাধারণ ব্যাটারিচালিত রিকশা শ্রমিকদের সামাজিক জীবনে বাঁচিয়ে রাখার জন্য আহ্বান জানান তিনি। এসময় আরো বক্তব্য রাখেন মোজাম্মেল হক সাগর, হাফিজুর রহমান রাকিব, সাইফুল ইসলাম, রুবেল হোসেন প্রমুখ।

Sharing is caring!