আই ফিল সেক্সি অল দ্য টাইম : বিদ্যা

প্রকাশিত: 3:59 PM, August 18, 2019

দ্য ডার্টি পিকচার’ দিয়েই সিনেমায় নিজের শরীরকে অন্যরূপে উপস্থাপন করেছিলেন বলিউড অভিনেত্রী বিদ্যা বালান। সেই থেকে শরীর নিয়ে সমালোচনা আর পিছু ছাড়েনি চল্লিশোর্ধ্ব এই অভিনেত্রীর। নানা সময়ে তাকে নিয়ে গুঞ্জন উঠলেও সেসবে অবশ্য কান দেন না তিনি। সৌন্দর্য ধরে রেখে সমালোচকদের জবাব দিয়েই গেছেন।

সম্প্রতি একটি ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নানা বিষয়ে কথা বলেন বিদ্যা বালান। এ সময় আবারও তাকে মুখোমুখি হতে হয় ক্যারিয়ার ও শরীর প্রসঙ্গের। সেখানেই এক প্রশ্নের জবাবে বিদ্যা বলেন, ‘জীবন আগের চেয়ে অনেক বেশি উপভোগ করছেন তিনি।  বয়স ও অভিজ্ঞতা শিখিয়েছে, নিজের ওপর ভরসা না হারাতে।চল্লিশ পার হওয়া মানে মেয়েদের মিডলাইফ ক্রাইসিসের শুরু।  একসময় মেনোপজ হয়। যৌন জীবনের অনেকটা ইতি ঘটে।  যে কারণে স্বামীরাও একই সমস্যায় ভুগে থাকেন।

মিডলাইফ ক্রাইসিস সম্পর্কে বিদ্যা মজা করেই বলেন, ‘এটা তো ছেলেদের হয়। আমাদের প্রত্যেক মাসে ক্রাইসিস আসে। মেয়েদের মিডলাইফ ক্রাইসিস শুরু হয় মেনোপজের সময় থেকে। তবে এখন সকলে খোলাখুলি কথা বলেন। কয়েক বছর আগেও বিষয়টা এতটা সহজ ছিল না। আমার এক মাসি ছিলেন, তার মেনোপজের সময় সমস্যা হয়েছিল।  কিন্তু ওই বিষয়ে কথাবার্তা হয়নি।মা হওয়ার গুজবের বিষয়টি উড়িয়ে দিয়ে বিদ্যা বলেন, ‘যারা গুজব রটাচ্ছে, তাদের নেহাতই বোকা বলব। আমি কি কোনো দিন রোগা ছিলাম? একটু পেট দেখা গেলেই সকলে ভাবেন, আমি প্রেগন্যান্ট। কেন এমন ভাবনা? সেভাবে দেখলে আমি সারা জীবনই প্রেগন্যান্ট’।

নায়িকাদের জিরো ফিগার বা মেদহীন শরীরের ওপরে বেশি প্রাধান্য দেওয়া হয় কেন- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এই ধারণা তো বরাবরের। পুরুষদের অল্পবয়সী মেয়ে পছন্দ। আগে ৩৫ বছর বয়সে দুই-তিনটি বাচ্চার মা হয়ে সংসারে ব্যস্ত হয়ে যেতেন বেশির ভাগ নারী। এখন মেয়েরা পড়াশোনাই করে অনেক দিন ধরে। তার পরে দেরিতে বিয়ে, বাচ্চাও প্ল্যান করে সুবিধামতো। কেউ কেউ বাচ্চা চায়ও না। কয়েক বছর হলো, নিজের ফিগার নিয়ে ভাবা ছেড়ে দিয়েছি। তারপর থেকে আই ফিল সেক্সি অল দ্য টাইম।’

Share Button