আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে আওয়ামী সমর্থিত প্যানেল জয়ী

প্রকাশিত: ৭:০৪ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২১

মো. জিয়াউদ্দিন বাবু ॥ বরিশাল জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে নির্বাহী সদস্যর একটি পদ ছাড়া বাকি সব পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত বাবলু, খোকন প্যানেল জয়ী হয়েছে। ১২ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার ভোর রাতে এ ফলাফল ঘোষণা করেন নির্বাচন উপ পরিষদের আহবায়ক সৈয়দ ওবায়েদুল্লাহ সাজু ও নির্বাচন উপসচিব মো. ফিরোজ মাহমুদ খান। ১১ ফেব্রুয়ারী সকাল ৯ টা থেকে আধাঘণ্টা বিরতি দিয়ে ৪ টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ শেষে সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টা থেকে গণনা করে ভোর সাড়ে ৩ টায় ফলাফল ঘোষণা করা হয়। ঘোষিত ফলাফলে জানা যায়, আওয়ামী সমর্থিত প্যানেলের এডভোকেট গোলাম মাসউদ বাবলু সভাপতি এবং এডভোকেট রফিকুল ইসলাম খোকন সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন।

 

নির্বাচন উপ পরিষদের সদস্য সচিব ফিরোজ মাহমুদ খান জানান, বিএনপি সমর্থিত আইনজীবী প্রার্থীদের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে আওয়ামী প্যানেল বিজয় লাভ করেছে। তিনি আরও জানান, অনুষ্ঠিত জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে ১১ টি পদের বিপরীতে বিএনপি ও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সমর্থিত ২২ জন প্রার্থী স্ব স্ব পদে বিজয়ী হতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। সমিতির ৮৮৬ ভোটের মধ্যে ৭৪২ জন সদস্য তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। এতে সভাপতি পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত এডভোকেট সৈয়দ গোলাম মাসউদ বাবলু পান ৪৭২ ভোট এবং তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বিএনপি সমর্থিত এডভোকেট নাজিম উদ্দিন আহমেদ পান্না ২৬৬ ভোট পান। নাজিম উদ্দীন পান্নার চেয়ে ২০৬ ভোট বেশী পেয়ে গোলাম মাসউদ বাবলু সভাপতি নির্বাচিত হন।

 

 

 

সাধারণ সম্পাদকের ১টি পদের বিপরীতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিএনপি সমর্থিত এডভোকেট মির্জা রিয়াজ হোসেন পান ২৫৯ ভোট এবং আওয়ামী লীগ সমর্থিত এডভোকেট রফিকুল ইসলাম খোকন পান ৪৬৮ ভোট। মির্জা রিয়াজের চেয়ে ২০৯ ভোট বেশী পেয়ে রফিকুল ইসলাম খোকন সম্পাদক নির্বাচিত হন। এছাড়া সহ-সভাপতির ২টি পদের বিপরীতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিএনপি সমর্থিত এডভোকেট অসীম কুমার বাড়ৈ ২৯৩ ভোট ও এডভোকেট মেহেদী হাসান শাহীন ২৯৮ ভোট পান এবং আওয়ামী লীগ সমর্থিত এডভোকেট লীলা রানী চক্রবর্তী ৪১৫ ভোট ও এডভোকেট সালাহ উদ্দিন সিপু ৪৩২ ভোট পান। প্রাপ্ত ভোটে অসীম ও শাহিনের চেয়ে ভোট বেশী পেয়ে লীলা রানী চক্রবর্তী ও সালাউদ্দিন সিপু সহ সভাপতি নির্বাচিত হন।

 

অর্থ সম্পাদক’র ১টি পদের বিপরীতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিএনপি সমর্থিত এডভোকেট আব্দুল মালেক মিয়া পান ২৬৭ ভোট এবং আওয়ামী লীগ সমর্থিত এডভোকেট মিজানুর রহমান মিন্টু পান ৪৬৪ ভোট। আবদুল মালেকের চেয়ে ১৯৭ ভোট বেশী পাওয়ায় মিজানুর রহমান মিন্টু অর্থ সম্পাদক নির্বাচিত হন। যুগ্ম-সম্পাদকের ২টি পদের বিপরীতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিএনপি সমর্থিত এডভোকেট শাহ আলম-১ পান ৩০৩ ভোট ও এডভোকেট নিজাম উদ্দিন পান ২৬৯ ভোট এবং আওয়ামী লীগ সমর্থিত এডভোকেট এসএম আতিকুল ইসলাম রফিক ৪৯৪ ভোট ও এডভোকেট সুমন চন্দ্র হালদার পান ৩৯২ ভোট। শাহ আলম-১ ও নিজাম উদ্দিনের চেয়ে ভোট বেশী পাওয়ায় এসএম আতিকুল ইসলাম রফিক ভোট ও সুমন চন্দ্র হালদার যুগ্ম সম্পাদক নির্বাচিত হন।

 

নির্বাহী সদস্য’র ৪টি পদের বিপরীতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিএনপি সমর্থিত এডভোকেট কাজী মাহমুদা ৩৬২ ভোট, এডভোকেট শাহিন উদ্দিন মিয়া ৩৩৩ ভোট ,এডভোকেট হারুন অর রশিদ ১৯৯ ভোট ও এডভোকেট আঃ রহমান চোকদার ৪১৮ ভোট এবং আওয়ামী লীগ সমর্থিত এডভোকেট শহিদুল ইসলাম খলিফা ৪৩৮ ভোট, এডভোকেট নুরে হাসান ২৫৭ ভোট, এডভোকেট মুহাম্মদ ফিরোজ আলম সিকদার ৪৯৮ ভোট ও এডভোকেট এসএম তৌহিদুর রহমান সোহেল ৪৫৬ ভোট পান। ভোট বেশী পাওয়ায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত শহিদুল ইসলাম খলিফা, মুহাম্মদ ফিরোজ আলম সিকদার, এসএম তৌহিদুর রহমান সোহেল এবং বিএনপি সমর্থিত আব্দুর রহমান চোকদার নির্বাহী সদস্য নির্বাচিত হন।