অসচেতন অভিভাবকদের কারণে করোনার ঝুঁকিতে বরিশালের স্বাস্থ্যসহকারীরা

প্রকাশিত: ৬:৩৯ অপরাহ্ণ, জুলাই ৫, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি অব্যাহত থাকলেও টিকা গ্রহণকারী অভিভাবকদের স্বাস্থ্য সচেতনতার অভাব দেখা দিয়েছে। তাদের এই অসচেতনতা স্বাস্থ্য কর্মীদের করোনার ঝুঁকির দিকে ঢেলে দিচ্ছে। শুধু তাই নয়, ‘এমন অসাবধানতার কারণেই এ পর্যন্ত দুই শতাধিক স্বাস্থ্যসহকারী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে অভিযোগ সংশ্লিষ্টদের।

সরেজমিনে দেখাগেছে, সকল ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কার্যক্রম পরিচালনার সরকারি নির্দেশনা থাকলেও বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তা উপেক্ষিত হচ্ছে। বিশেষ করে সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে গিয়ে বিপদের সম্মুখীন হতে হচ্ছে স্বাস্থ্যসহকারীদের।

তারা অভিযোগ করেছেন, সরকারের এমন একটি কর্মসূচি বাস্তবায়নে ভূমিকা রেখে চললেও করোনা পরিস্থিতিতে তাদের দেওয়া হয়নি স্বাস্থ্য সুরক্ষার পোশাক। তার মধ্যে টিকাদান কেন্দ্রে আসা শিশুদের অভিভাবকরা মানছেন না স্বাস্থ্যবিধি। ফলে তাদের করোনা ঝুঁকি দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। শুধু তাই নয়, এরই মধ্যে টিকাদান কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে গিয়ে প্রায় আড়াইশ’র মতো স্বাস্থ্যসহকারী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলেও দাবি তাদের।

জানাগেছে, সরকার সম্প্রসারিত টিকাদান কেন্দ্রের মাধ্যমে হাম রুবেলা, পোলিও, যক্ষ্মা, নিউমোকক্কাল জনিত নিউমোনিয়া, ধনুষ্টংকার, হেপাটাইটিস-বি, সংক্রামক রোগ, ডেংগু, চিকনগুনিয়া এবং খাদ্য ও পুষ্টি বিষয়ক স্বাস্থ্যশিক্ষা প্রদান করা হয়ে থাকে।

উজিরপুর উপজেলার বামরাইল ইউনিয়ন স্বাস্থ্য সহকারী নাজমুল হোসাইন জানান, টিকা গ্রহণকারী শিশুদের অভিভাবকদের মাস্ক ব্যবহারে আগ্রহ না থাকায় এবং স্বাস্থ্য সচেতন না হওয়ায় তাদের মাধ্যমে করোনা সংক্রমিত হবার চরম ঝুঁকির মধ্যে রয়েছেন এলাকার স্বাস্থ্য সহকারীরা।