অর্থের বিনিময়ে কমিটি ঘোষণার অভিযোগ : তালতলীতে ১১ ছাত্রদল নেতার পদত্যাগ

প্রকাশিত: ৫:৫৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২০

মোঃ জসিম উদ্দিন সিকদার, আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি  ::

নিপীড়িত ও ত্যাগী নেতাকর্মীদের অবমূল্যায়ন করে কালো টাকায় মাদক ও হত্যা মামলার আসামীদের উপজেলা ও কলেজ ছাত্রদলের কমিটি অনুমোদন দেওয়ার অভিযোগ এনে সদ্য ঘোষিত কমিটির যুগ্ম আহবায়ক ফারুক হোসেনসহ ১১ জন নেতা ব্যক্তিগত সমস্যা দেখিয়ে দলীয় স্ব-স্ব পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন। শনিবার দুপুর ১২ টায় বরগুনার তালতলী সাংবাদিক ফোরামে এক সংবাদ সম্মেলনে ১১ জন ছাত্রদল নেতা পদত্যাগের ঘোষণা করেন।

লিখিত বক্তব্যে তারা অভিযোগ করে বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আদর্শকে বুকে ধারণ করে ও বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া এবং বিএনপির ভাইস প্রেসিডেন্ট তারেক রহমানের হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে ছাত্রদলের রাজনীতি করে আসছি। দলীয় কর্মসূচি পালন করতে গিয়ে হামলা-মামলা জেল-জুলুম ও নির্যাতন নিপীড়নের শিকার হয়েছি।

দলের এই দুর্দিনে রাজপথে থেকে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে আন্দোলন সংগ্রামে মাঠে কাজ করছি। কিন্তু গত ১৬ সেপ্টেম্বর রাত ৯টার দিকে বরিশাল বিভাগীয় টিম ও স্থানীয় কিছু স্বার্থলোভী কর্তৃক টাকার বিনিময়ে ছাত্রদলের নির্যাতিত নিপীড়িত ত্যাগী নেতাকর্মীদের অবমূল্যায়ন করে মাদক ও হত্যা মামলার আসামী এবং অছাত্রদের ছাত্রদলের ২১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটির তালিকা অনুমোদন করে কেন্দ্রীয় সংসদ। কমিটি ঘোষণার পরপরই তালতলীতে হইচই পড়ে যায়।

মুহূর্তের মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় ওঠে। এতে ছাত্রদলের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে। তারা আরও বলেন, তালতলী উপজেলা আহবায়ক কমিটির আহবায়ক হাওলাদার মোঃ নাসির উদ্দিন উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক থাকাকালীন ইউনিয়ন কমিটি দেয়ার কথা বলে লক্ষ লক্ষ টাকা উত্তোলন করেন। যার অনেক প্রমাণ আমাদের কাছে আছে। আর বর্তমান কমিটির জহিরুল ইসলামকে সদস্য সচিব করা হয়েছে তিনি এক যুবদল নেতার হত্যা মামলার আসামী ও স্থানীয় ছাত্র রাজনীতিতে অপরিচিত। যুগ্ম আহবায়ক মিজানুর রহমান ৫০ পিস ইয়াবাসহ পটুয়াখালীতে পুলিশের হাতে আটক হন। এছাড়াও অধিকাংশ সদস্য আছেন যাদের দলীয় কর্মসূচি পালন করতে দেখিনি।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্যে তারা আরও বলেন, পরিকল্পতিত ভাবে সিনিয়রদের অপমানিত করে জুনিয়দের নামের নিচে তাদের নাম দেওয়া হয়েছে। যা অত্যন্ত অপমানজনক। এই সমালোচিত কমিটি থেকে উপজেলা ছাত্রদলের সদ্য ঘোষিত সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক ফারুক হোসন, যুগ্ম আহবায়ক জুয়েল মিয়া,সদস্য শামীম বেপারী, সজিব খান,কাওছার আলম এবং কলেজ ছাত্র দলের যুগ্ম আহবায়ক রাসেল মীর, সদস্য জাকারিয়া ও মো.রাকিবুলসহ ১১ ছাত্র নেতা ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে দলীয় স্ব-স্ব পদ থেকে পদত্যাগ করেন।

পাশাপাশি এই কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি দেওয়ার দাবি করেন তারা। তা না হলে আরো অনেক ছাত্র নেতা দলীয় পদ থেকে পদত্যাগ করবেন বলে লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করেন তারা। এছাড়াও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যেমে উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক আরিফ রেজা পদত্যাগের ঘোষণা দেন।

এ বিষয়ে বরগুনা জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মোঃ নুরুল ইসলাম রনি বলেন, অর্থের বিনিময়ে তালতলীতে কমিটি দেয়া হয়নি। যে অভিযোগ দেয়া হয়েছে যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। আমরা একটা সুন্দর কমিটি গঠন করেছি। এটি অনেকের পছন্দ হয়নি। এ সব অভিযোগ তারই বহিঃপ্রকাশ।

Sharing is caring!