আজকের বার্তা | logo

৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২০শে মে, ২০১৯ ইং

নগরীতে মিডিয়া ডায়ালগের নামে প্রতারণা: লাধিক টাকা আত্মসাৎ

প্রকাশিত : মে ১৩, ২০১৯, ১২:৩৮

নগরীতে মিডিয়া ডায়ালগের নামে প্রতারণা: লাধিক টাকা আত্মসাৎ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ নগরীতে মিডিয়া ডায়ালগের নাম করে লাধিক টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ উঠেছে বরিশালের বেসরকারি সংস্থা (এনজিও) রিচ টু আনরিচড্ (রান)’র বিরুদ্ধে। এ সংস্থাটি নিজ প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের সাংবাদিক সাজিয়ে এ ‘ডায়ালগ’ অনুষ্ঠান সম্পন্ন করে। এমনকি বেসরকারি সংস্থা ‘রান’ বিভিন্ন উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে প্রশিক্ষণের নামে আত্মীয়-স্বজন, নিজের ঘরের কাজের বুয়া, এমনকি বাবুর্চিকে পর্যন্ত প্রশিক্ষণার্থী হিসেবে দেখিয়ে অর্থ আত্মসাৎ করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ উঠেছে, গত ১১ মে এনজিও রিচ টু আনরিচড্’র (রান) অ্যাকশন এইড বাংলাদেশ এর আর্থিক সহায়তায় “মিডিয়া ডায়ালগ” শিরোনামের ব্যানার সাঁটিয়ে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। বরিশাল নগরীর ফকির বাড়ি রোডের শিক্ষক মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। আর মিডিয়া ডায়ালগের নামে প্রতারণা করে এনজিও রান’র পরিচালক রফিকুল আলম লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। স্থানীয় সাংবাদিকদের অভিযোগ, এনজিও পরিচালক রফিকুল আলমের ‘রান’ সংস্থার নারীদের নিয়েই “মিডিয়া ডায়ালগ” অনুষ্ঠিত হয়। আর ওই সংস্থার কাজের বুয়া ও নারীদেরকে সংবাদকর্মী সাজিয়ে অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করা হয়। বিভিন্ন পত্রিকার নাম ব্যবহার করে এমন অপকর্ম করার কারণে বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় সাংবাদিকদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।
অভিযোগকারী এক সংবাদকর্মী জানান, ‘‘মিডিয়া ডায়ালগ” এর নামে প্রতারণা করে অভিনব কৌশলে লাধিক টাকা আত্মসাৎ করেছেন রফিকুল আলম। তিনি আরো বলেন, সাংবাদিকদের যেখানে উপস্থিত থাকার কথা সেখানে যারা আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন তাদের নিয়ে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। জানা গেছে, কথিত প্রতিষ্ঠান ‘রান’ এর সুবিধা ভোগ করতে গিয়ে প্রতারণার শিকার হয়েছেন নগর-গ্রামের সহ¯্রাধিক মানুষ। ২০০২ সালে একটি সরকার বিরোধী দলের মদদপুষ্ট রিচ টু আনরিচড্ এনজিওর কার্যক্রম সর্বপ্রথম শুরু হয় নগরীর সদর রোডে। প্রতারণার দায়ে ২০০৭ সালে ফের জনগণের তাড়া খেয়ে অফিসটি পাল্টে নেয়া হয় বিএম কলেজের সম্মুখে দেওয়ান ভিলা নামক স্থানে। সেখানেও প্রতারণার আশ্রয় নেয়ার কারণে সাধারণ জনগণের হাতে লাঞ্ছিত হন পরিচালক রফিকুল। পরে ২০১৩ সালে নগরীর অক্সফোর্ড মিশন রোডে খুঁটি গেড়ে বসেন রফিকুল। অক্সফোর্ড মিশন রোডের ওই অফিসে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কাজের বুয়া কিংবা রান্না করার বাবুর্চি দিয়ে প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। এছাড়া প্রশিক্ষণ দেয়ার নাম করেও লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন প্রতারক রফিকুল। বিষয়টি নিয়ে কথা হলে রফিকুল আলম বলেন, এখানে স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় কাজ করা হয়। উপর লেভেলের লোকজন দেখে-শুনে এখানে টাকা বরাদ্দ দেন। ‘‘মিডিয়া ডায়ালগ’’ অনুষ্ঠান সম্পন্নে বাজেট কিংবা তার প্রতিষ্ঠান গ্রামাঞ্চলের মানুষকে যে প্রশিক্ষণ দিচ্ছে তারও কোন প্রকৃত সংখ্যা বলতে অনীহা প্রকাশ করেন রফিকুল।
Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।