আজকের বার্তা | logo

৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২০শে মে, ২০১৯ ইং

ইডেন কলেজ ছাত্রী ঝালকাঠির মেয়ে মেঘার রহস্যজনক মৃত্যু

প্রকাশিত : এপ্রিল ২৫, ২০১৯, ১৪:২৯

ইডেন কলেজ ছাত্রী ঝালকাঠির মেয়ে মেঘার রহস্যজনক মৃত্যু

লকাঠি প্রতিনিধি ॥ ঢাকার কাঁঠালবাগান এলাকায় রহস্যজনক মৃত্যুর শিকার ইডেন কলেজের অনার্স ২য় বর্ষের ছাত্রী সায়মা কালাম মেঘার দাফন সম্পন্ন হয়েছে ঝালকাঠি শহরের মুসলিম পৌরকবরস্থানে। মঙ্গলবার দুপুরে তার দাফন সম্পন্ন হয়। গত রোববার সন্ধ্যায় ঢাকার কাঁঠালবাগান এলাকার ৭৪/১ ফ্রি স্কুল স্ট্রিট এর ৪ তলা বাড়ির চতুর্থ তলার একটি কক্ষ থেকে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় ইডেন কলেজের সমাজ কল্যাণ বিভাগের ছাত্রী মেঘার লাশ উদ্ধার করে কলাবাগান থানা পুলিশ। রোববার রাতেই কলাবাগান থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেন নিহতের চাচা আবুল বাশার। মামলায় দাবি করা হয়, ঝালকাঠি শহরের পূর্ব চাঁদকাঠি এলাকার মাহিবী হাসান (২৫) নামের এক যুবকের প্ররোচণায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন একই এলাকার আবুল কালাম আজাদের মেয়ে মেঘা। সোমবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে মেঘার লাশের ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের সদস্যদের কাছে লাশ হস্তান্তর করে কলাবাগান থানা পুলিশ। মেঘার মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে মেঘার বাবা আবুল কালাম আজাদ (৫৫) জানান, ঝালকাঠি সরকারি মহিলা কলেজে উচ্চ মাধ্যমিকে পড়ার সময় শহরের পূর্বচাঁদকাঠি এলাকার মৃত. মো. নফিসুর রহমানের ছেলে বরিশাল হাতেম আলী কলেজের ছাত্র মাহিবী হাসানের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে মেঘার। ২০১৭ সালে মেঘা ঢাকা ইডেন কলেজে ভর্তি হন।
কাঁঠালবাগান এলাকায় এক বাড়িতে পেয়িং গেস্ট হিসেবে থাকতেন মেঘা। ঢাকায় গিয়ে মাহিবী হাসান প্রায়ই মেঘার সাথে দেখা করতেন। মাস ছয়েক আগে মেঘা এবং মাহিবী বিয়ের ব্যাপারে একমত হলেও বাধ সাধেন মাহিবীর মা ঝালকাঠি কির্ত্তীপাশা হাসপাতালের নার্স সেলিনা বেগম। মেঘার চাচা আবুল বাশার  মেঘার বান্ধবীদের বরাত দিয়ে জানান, শবে বরাতের দুদিন আগে শুক্রবার ঢাকায় কাউকে না জানিয়ে তাদের বিয়ের কথা ছিল। এ জন্য মেঘা কিছু কেনাকাটাও করেছিলেন। কিন্তু মাহিবী কথা দিয়েও বিয়ের জন্য ঢাকায় আসেননি। এনিয়ে মোবাইল ফোনে তাদের ঝগড়া হয়। ঘটনার দিন রোববার বিকালে মৃত্যুর কিছুক্ষণ আগেও মেঘা এবং মাহিবীর ইমোতে কথা হয়। ভিডিও কলে কথা বলার সময়ই মেঘা তার প্রেমিক মাহিবীকে জানান, যদি বিয়ে না করেন তাহলে এখনই তিনি আত্মহত্যা করবেন এবং মাহিবীকে ভিডিও কলে রেখে ফ্যানের সাথে ওড়না পেঁচিয়ে মেঘা ঝুলে পড়েন। মর্মান্তিক এ দৃশ্য দেখেও মাহিবী মেঘাকে বিয়ের আশ্বাস দেননি। মেঘার মৃত্যু নিশ্চিত হয়ে মাহিবী ঝালকাঠিতে মেঘার মা রুবিনা আজাদকে মোবাইল বিষয়টি জানান। মেঘার মা বিষয়টি ঢাকায় মেঘার বান্ধবী আনিকাকে জানালে আনিকা কিছু বন্ধুবান্ধব নিয়ে কাঁঠাল বাগানের বাসায় গিয়ে বাড়ির মালিকের সহায়তায় দরজা ভেঙে ঝুলন্ত অবস্থায় মেঘাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান।
সেখানকার জরুরি বিভাগের চিকিৎসকরা মেঘাকে মৃত ঘোষণা করে। খবর পেয়ে মেঘার চাচা ঢাকার একটি স্কুলের শিক্ষক আবুল বাশার কলাবাগান থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর কলাবাগান থানার এসআই মো. সেলিম রেজা সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে লাশের ময়নাতদন্তের ব্যবস্থা করেন। এসআই সেলিম রেজা বলেন, মেঘার চাচা যে ইউডি মামলা করেছেন তার ভিত্তিতে তদন্ত চলছে। মেঘার আত্মহত্যার পেছনে কারো প্ররোচণা থাকলে তা তদন্তে বেরিয়ে আসবে। তখন প্ররোচণা দানকারীদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেওয়া হবে।
Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।