আজকের বার্তা | logo

৬ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২০শে জুন, ২০১৯ ইং

বরিশালের কেন্দ্রে কেন্দ্রে ভোটারের আকাল

প্রকাশিত : মার্চ ২৫, ২০১৯, ০৩:২৩

বরিশালের কেন্দ্রে কেন্দ্রে ভোটারের আকাল

বার্তা ডেস্ক ॥ গতকাল শেষ হলো উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। স্টাফ রিপোর্টার ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর- স্টাফ রিপোর্টার: উপজেলা নির্বাচনে গতকাল বাবুগঞ্জ, উজিরপুর, হিজলার অধিকাংশ কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিত ছিল খুবই কম। অনেক কেন্দ্র ছিল ভোটার শূন্য। ভোটারের আকালে অনেকটা চিন্তিত দেখা গেছে প্রার্থী ও সমর্থকদের। তবে বিভিন্ন স্থানে বিচ্ছিন্ন সংঘাতও ঘটেছে। গতকাল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে দেখা যায়, বাবুগঞ্জের দক্ষিণ রাকুদিয়া সরকারি প্রাথমিক কেন্দ্রে ভোটারশূন্য বুথগুলো ঘুরে কর্মীদের উপর ক্ষুব্ধ হন এক নেতা। কেন্দ্রের বাইরে এসে নৌকা প্রতীকের কর্মীদের ডেকে বললেন, ভোটের হার বাড়াতে হবে। কথা হয় ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার মো. ইসমাইল হোসেনের সাথে। তিনি জানান, এ কেন্দ্রে মোট ভোটার ১৬১৪ জন। বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত মাত্র ২৭৩ জন ভোট দিয়েছেন। অর্থাৎ সাড়ে তিন ঘণ্টায় ভোট প্রদানের হার ১৬ ভাগ। এ কেন্দ্রটির মতো ভোটারের আকাল ছিল গতকাল রোববার বরিশালে অনুষ্ঠিত ৭ উপজেলার নির্বাচনের প্রতিটি কেন্দ্রে। ভোটের হার বাড়াতে কোথাও সুশৃঙ্খলভাবে লাইনে দাঁড়িয়ে জাল ভোট, আবার কোথাও ব্যালটে সিল মারতে দেখা গেছে নৌকা প্রতীকের কর্মীদের। তবে রিটার্নিং কর্মকর্তা ইকবাল আখতার বিশৃংখলা রোধে কঠোর হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন সংশ্লিষ্টদের। ২৪ মার্চ ভোট গ্রহণের জন্য জেলার ৯ উপজেলায় তফসিল ঘোষণা করেছিল নির্বাচন কমিশন। তার মধ্যে গৌরনদী ও আগৈলঝাড়া উপজেলায় চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান সকলে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। বরিশাল সদর, বানারীপাড়া, মুলাদী, বাকেরগঞ্জে চেয়ারম্যান প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হলেও ভাইস চেয়ারম্যান পদের জন্য ভোটের আয়োজন করতে হয়। চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান সকল পদের নির্বাচন হয় শুধুমাত্র উজিরপুর, বাবুগঞ্জ ও হিজলা উপজেলায়। বাবুগঞ্জের অন্যান্য কেন্দ্রের চিত্র একই ছিল। সকাল সাড়ে ১০টায় এ উপজেলার প্রাণকেন্দ্র রহমতপুর বাজার সংলগ্ন রহমতপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গেলে সেখানে প্রিজাইডিং অফিসার মো. মহসিন জানান, তখন পর্যন্ত ভোট প্রদান হয়েছে ১০ ভাগ। কেন্দ্রের বাইরে নৌকা প্রতীকের ব্যাজ পরা এক কর্মীর কাছে ভোটার না আসার কারণ জানতে চাইলে ক্ষুব্ধ কণ্ঠে বললেন, ‘এই রহম ভোটের আয়োজন কইর‌্যা টাকা খরচে সরকারের কি লাভ। এই টাকা দিয়ে রাস্তাঘাটের উন্নয়ন করলে আমরা কিছু কাম পাইতাম।’ বাবুগঞ্জে নৌকার প্রার্থী এমদাদুল হক দুলালের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন ওয়ার্কার্স পার্টির মোজাম্মেল হক ফিরোজ (হাতুড়ি)। তিনি বলেন, ভোট সুষ্ঠু হয়নি, মাধবপাশা ইউনিয়নের সব কেন্দ্র আওয়ামীলীগ দখল করেছে। অন্যান্য ইউনিয়নে দিনভর জাল ভোট দেয়া হয়েছে। ভোট প্রদান হারের বিপরীত চিত্র মিলল উজিরপুুর উপজেলায়। বেলা ১২টায় ইচলাদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার রতন কুমার চ্যাটার্জি জানান, ১৯৯০ জন ভোটারের কেন্দ্রে তখন পর্যন্ত ৪০ ভাগ ভোট পড়েছে। প্রিজাইডিং অফিসারের এ বক্তব্য অসত্য বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রে উপস্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী বাংলাদেশ জাসদের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ বাদল ও তার কর্মীরা। তারা জানান, সকাল থেকে নৌকার কর্মীরা জাল ভোট দিচ্ছেন। আবুল কালাম আজাদের বাড়ির সামনের ভোট কেন্দ্র এটি। বেলা ১১টায় ওটরা গ্রামের বাড়িতে সাংবাদিক সম্মেলন করে একই অভিযোগ করেন আ’লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান ইকবাল। সাড়ে ১২টায় উজিরপুর বাজার সংলগ্ন কমলাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, প্রধান ফটক ও বুথের দরজা-জানালা আটকানো। হিজলা উপজেলা নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে আ’লীগের প্রার্থী সুলতান মাহমুদ এর বিপরীতে স্বতন্ত্র প্রার্থী আ’লীগ নেতা বেলায়েত হোসেন ঢালির কর্মীদের মধ্যে বিচ্ছিন্ন সংঘাত ঘটেছে। সেখানে আ’লীগের একটি বড় অংশ স্বতন্ত্র প্রার্থীর আনারস প্রতীকে ভেতরে ভেতরে সমর্থন জানিয়েছে। যেকারণে সকাল থেকেই কঠোর নিরাপত্তায় এ উপজেলায় নির্বাচন হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার মাউলতলা মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে বেলা সাড়ে ১১টায় দুই পক্ষের মধ্যে মারামারি ঘটলে পুলিশ নিয়ন্ত্রণ করে। গুয়াবাড়িয়া ইউনিয়নের ডা: খাদেম হোসেন মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে নৌকা ও আনারস প্রতীকের প্রার্থীদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তবে এ উপজেলায় ভোটার উপস্থিতি নগণ্য। হিজলার গুয়াবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রিজাইডিং অফিসার মাসুম হোসেন জানান, তার কেন্দ্রে দুপুর ২টা পর্যন্ত ২ হাজার ৫৩১ ভোটের বিপরীতে ভোট গ্রহণ হয়েছে মাত্র ৫১৪টি। সে হিসেবে এ কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি ছিল ২০.৩০ ভাগ। বরিশাল সদর উপজেলায় কেবলমাত্র ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোট হয়েছে। নগরী সংলগ্ন সদর উপজেলার তিলক কলাডেমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গতকাল সকালে গিয়ে দেখা গেছে ভোটার শূন্য কেন্দ্র। ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার মো: জহিরুল হক মৃধা জানালেন, সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ হয়েছে ৭০টি। এ কেন্দ্রে মোট ভোটার ২ হাজার ৮৯৫ জন। অর্থাৎ ওই কেন্দ্রে ভোট পড়েছে মাত্র ২.৪১ ভাগ। একই সময়ে তিলক কলাডেমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে উপস্থিত হন সদর উপজেলা নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) ইকবাল আখতার।
উজিরপুর : উজিরপুরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হাফিজুর রহমান ইকবাল কাপপিরিচ প্রতীক নিয়ে তফসিল ঘোষণার পর থেকে বিজয়ের নিশান ওড়াবেন বলে হুংকার গর্জন দিয়ে আসছিলেন। অবশেষে সকল হুংকার গর্জনের অবসান ঘটিয়ে নির্বাচনের দিন বেলা সাড়ে ১২টায় ভোট কারচুপি, এজেন্টদের ভয়ভীতি দেখিয়ে কেন্দ্র ঢুকতে না দেওয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগ এনে নির্বাচন প্রত্যাখানের ঘোষণা দিয়ে পুনর্নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন তিনি। এদিকে আ’লীগের মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আঃ মজিদ সিকদার বাচ্চু অভিযোগ অস্বীকার করে জানান বিদ্রোহী প্রার্থী হাফিজুর রহমান ইকবাল প্রায় কেন্দ্রেই এজেন্ট দিতে পারেননি। নির্বাচনের পরাজয় ভেবেই আগে থেকেই প্রস্তুতি নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে ভোট প্রত্যাখান করেছেন শুনেছি। অপরদিকে জাসদ আম্বিয়া গ্রুপের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ বাদল ইচলাদীতে বেলা ১টায় সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচনের আগের রাতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে কর্মী সমর্থকদের ভয়ভীতি হুমকি এবং এজেন্টদের কেন্দ্রে ঢুকতে না দেওয়ার অভিযোগ এনে নির্বাচন প্রত্যাহার করে পুনর্নির্বাচনের দাবি জানান। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুমা আক্তার অভিযোগের বিষয়ে কোথায় কোন সত্যতা মেলেনি, নির্বাচন অবাধ শান্তিপূর্ন হয়েছে, কোথায় কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি বলে জানান।
ঝালকাঠি : ঝালকাঠির চারটি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বল্পসংখ্যক ভোটারের উপস্থিতিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ৮টা থেকে সকাল ১০টা পর্যন্ত বিচ্ছিন্ন ভাবে দু-একজন ভোটার কেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে ভোট প্রদান করেন। কোথাও ভোটারের লম্বা লাইন দেখা যায়নি। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটারের উপস্থিতিও কমে যায়। কেন্দ্রগুলোতে ভোটগ্রহণের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তারাও অলস সময় কাটিয়েছেন। এদিকে ঝালকাঠি সদর ও কাঠালিয়ায় অনিয়ম ও কেন্দ্র দখল করে জাল ভোট প্রদানের অভিযোগে আ’লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র তিন চেয়ারম্যান প্রার্থী ভোট বর্জন করেছেন। ঝালকাঠি সদরে নৌকা প্রতীকের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী দলের বিদ্রোহী প্রার্থী সৈয়দ রাজ্জাক আলী সেলিম (আনারস), কাঠালিয়ায় বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী গোলাম কিবরিয়া সিকদার (কাপপিরিচ) ও মো. জাহাঙ্গীর জোমাদ্দার (দোয়াত কলম) ভোট বর্জন করেন। দুপুর পৌনে দুইটায় রাজ্জাক সেলিম সদর উপজেলার বাউলকান্দা গ্রামের বাড়িতে সংবাদ সম্মেলনে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।