আজকের বার্তা | logo

৮ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২১শে মার্চ, ২০১৯ ইং

ঢাকা-কোলকাতা নৌ সার্ভিসে স্টেশন দাবি বরিশালবাসীর

প্রকাশিত : মার্চ ১৭, ২০১৯, ১১:০৭

ঢাকা-কোলকাতা নৌ সার্ভিসে    স্টেশন দাবি বরিশালবাসীর

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ঢাকা থেকে কোলকাতা পর্যন্ত নৌপথে জাহাজ সার্ভিস অবশেষে শুরু হতে যাচ্ছে। রাষ্ট্রীয় নৌযান সংস্থা বিআইডব্লিউটিসি’র নিজস্ব জাহাজ এমভি মধুমতি বরিশাল ও মোংলা হয়ে ঢাকা- কোলকাতা নৌপথে চলবে। মধুমতি আগামী ২৯ মার্চ পরীক্ষামূলকভাবে কোলকাতায় রওনা হবে। তাদের এ পরীক্ষামূলক যাত্রা সফল হলে এপ্রিলের পর যাত্রী পরিবহন শুরু করবে। এ লক্ষ্য রেখে বিআইডব্লিউটিসি ব্যাপক প্রস্তুতি নিচ্ছে। সংস্থাটির একাধিক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা এসব তথ্য জানিয়ে বলেছেন, নৌপথে ৪৮ ঘণ্টায় ঢাকা থেকে বরিশাল হয়ে কোলকাতায় পৌঁছানো যাবে। এদিকে এ সার্ভিস জনপ্রিয় করতে ঢাকা-কোলকাতা রুটের জাহাজ বরিশালে স্থায়ী স্টেশন করার দাবি উঠেছে। বিআইডব্লিউটিসির নতুন এ রুটের দেখভালের দায়িত্বে¡ আছেন সংস্থার উপ মহাব্যবস্থাক শাহ খালেদ নেওয়াজ।

 

তিনি বলেন, শুধু পরীক্ষামূলক যাত্রা হিসাবে আগামী ২৯ মার্চ এমভি মধুমতি নারায়ণগঞ্জের পাগলা স্টেশন থেকে কোলকাতায় রওনা হবে। ৪৮ ঘণ্টা যাত্রা করে সেটি কোলকাতায় পৌঁছবে। তাদের পরিকল্পনা রয়েছে বরিশাল ও মোংলা থেকে যাত্রী তোলার। পরীক্ষামূলক যাত্রা সফল হলে যাত্রীর চাহিদা অনুযায়ী জাহাজের যাত্রাসূচি নির্ধারণ করা হবে। সুবিধাজনক সময় অনুযায়ী এ রুটটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে। এসব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে পুরো এপ্রিল মাস লেগে যাবে বলে খালেদ শাহ নেওয়াজ জানান। এ কর্মকর্তা আরো জানান, যাত্রীদের ইমিগ্রেশন কার্যক্রম সম্পন্ন হবে সুন্দরবন এলাকা অতিক্রম করার পর বাংলাদেশের জলসীমায় আন্টিহারা নামক স্থানে। জানা গেছে, এমভি মধুমতি জাহাজটি ২৪৭ দশমিক ৭০ ফুট লম্বা ও ৪১ ফুট প্রসস্ত। উচ্চতা ৯ দশমিক ৮৪ ফুট। জাহাজটি ঘণ্টায় ২০ দশমিক ৭২ কিলোমিটার গতিতে চলতে সক্ষম। এটির যাত্রী ধারণক্ষমতা ৭৫০ জন। ফ্যামিলি স্যুট, কেবিন ও চেয়ারে যেতে পারবেন মোট ২৮০ জন যাত্রী। অবশিষ্ট ৬০৮ যাত্রীকে যেতে হবে জাহাজের ডেকে। বিএম কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ও ইতিহাস বিভাগের প্রফেসর স ম ইমানুল হাকিম বলেন, নদীপথেই কোলকাতার সাথে বরিশালের যোগাযোগ এক সময় জনপ্রিয় ছিল। বৃটিশ আমলে ব্যবসায়িক শ্রেণি, উচ্চ শিক্ষা গ্রহণে শিক্ষার্থীরা এ পথে যাতায়াত করতেন। শোনা যায় রবীন্দ্রনাথও স্টিমারে যাতায়াত করেছেন। বরিশাল-কোলকাতা নৌ যোগাযোগ সহজতর করতে গাবখান চ্যানেল করা হয়েছিল।

 

তিনি বলেন, এ সার্ভিসে বরিশাল বন্দরে স্টেশন করলে অনেক ট্যুরিস্ট পাওয়া যাবে। বরিশাল শিক্ষাবোর্ডের সচিব প্রফেসর বিপ্লব কুমার ভট্টাচার্য্য বলেন, ১৯৪৮ সালের দিকে বরিশাল থেকে কোলকাতা যেতে বানারীপাড়ায় স্টেশন ছিল। তিনি তার বাবার মুখে শুনেছেন সৌখিন পরিবারের অনেকেরই এ রুটে যাতায়েত ছিল। নিজেদের ঐতিহ্যকে ফেরাতে ঢাকা-বরিশাল-কোলকাতা স্টিমার সার্ভিস একটি যুগন্তকারী পদক্ষেপ। তবে এই পদক্ষেপকে টিকিয়ে রাখতে বরিশালে অবশ্যই স্টেশন দরকার। কেননা এখানে ইন্ডিয়ান ভিসা সেন্টার রয়েছে। তাছাড়া মোংলা, সুন্দরবনের অনেক যাত্রীও পাবে এ সার্ভিসের জাহাজ মধুমতি। সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন বরিশাল জেলার সাধারণ সম্পাদক কাজী এনায়েত হোসেন শিবলু বলেন, বৃটিশ আমেল এ রুটে জাহাজ চলাচল করতো। বিআইডব্লিউটিএ নতুন করে এ রুটে সার্ভিস চালু করায় বরিশালের সাথে কোলকাতার সামাজিক সংযোগ দৃঢ় হবে। বরিশালের পরিচিতিও বাড়বে। তিনি বলেন, ইন্ডিয়ান ভিসা দপ্তর থাকায় এখানে অবশ্যই স্টেশন করতে হবে। এব্যাপারে বিআইডব্লিউটিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম মিশা বলেন, ভারত ও বাংলাদেশের নৌ চুক্তির আওতায় দুই দেশের মধ্যে যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল করার সিদ্ধান্ত হয় গতবছর। বেসরকারি নৌযান প্রতিষ্ঠানগুলোকে ঢাকা-কোলকাতা রুটে নৌযান পরিচালনার আহ্বান জানানে হলেও সাড়া পাওয়া যায়নি। পরবর্তীতে বিআইডব্লিউটিসি তাদের নিজস্ব জাহাজ দিয়েই রুটটি চালুর সিদ্ধান্ত নেয়। ২০১৫ সালে নির্মিত এমভি মধুমতি জাহাজ ঢাকা-বরিশাল রুটে চলতো। এ জাহাজটিই ঢাকা-কোলকাতা রুটে পরিচালনা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিআইডব্লিউটিসি।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।