আজকের বার্তা | logo

৯ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২২শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং

চুরির অপবাদে বৃদ্ধাকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

প্রকাশিত : মার্চ ২০, ২০১৯, ১৯:৫৬

চুরির অপবাদে বৃদ্ধাকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে চুরির অপবাধে বেলুয়া খাতুন (৫২) নামে এক বৃদ্ধাকে গাছে বেঁধে নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে এলাকার প্রভাবশালী একটি পরিবারের বিরুদ্ধে। বিষয়টি প্রথমে গোপন থাকলেও পরে তা ভিডিও আকারে সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে জানাজানি হয়। গত রোববার সকালে উপজেলার টামটা দক্ষিন ইউনিয়নের আলীপুর গ্রামের মোল্লা বাড়ীতে এ ঘটনা ঘটে।নির্যাতনের ভিডিও প্রকাশ পাওয়ার পর ছড়িয়ে পড়লে লোকজনের আক্রোশের ভয়ে নির্যাতনকারী ওই পরিবারটি বাড়ি ছেড়ে গা ঢাকা দিয়েছে। নির্যাতনের শিকার বেলুয়া খাতুনের স্বামীর নাম শহিদুল্লাহ।

কয়েকজন স্থানীয় ঘটনার ব্যাপারে  জানান, গ্রামের দক্ষিণপাড়া মোল্লা বাড়ির মিজানুর রহমান ও সুমন তাদের বাড়ির অংশ ছেড়েও বাড়তি জায়গায় বেড়া দিতে গেলে বেলুয়া খাতুন তাদের বাধা দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তার সঙ্গে বাক বিতণ্ডায় জড়ায় দুজন। এক পর্যায়ে মিজানের স্ত্রী কাজল বেগম ও সুমনের স্ত্রী রোজিনা বেগম ঘটনাস্থলে এসে বেলুয়া খাতুনকে মারধর শুরু করে।পরে তারা বেলুয়া খাতুনকে জোর করে ধরে নিয়ে গিয়ে তাদের উঠানের একটি গাছের সঙ্গে বেঁধে মোবাইল ও টাকা চুরির অপরাধে মারধর করতে থাকেন। এ সময় পাশের বাড়িতে বসবাস করা এক স্কুলছাত্র ঘটনাটি মোবাইলে ধারণ করে। পরে ভিডিওটি সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশ ও স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছে সরবরাহ করে সে।

পরে খবর পেয়ে শাহরাস্তি থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বেলুয়া খাতুনকে উদ্ধার করে এবং হাসপাতালে ভতি করায়। এসব ঘটনার পর বেলুয়া খাতুনের স্বামী শহিদুল্লাহ বাদি হয়ে স্থানীয় আদালতে একটি নির্যাতন মামলা দায়ের করেন।শহিদুল্লাহ আমাদের সময়কে জানান, নিজের বাবার সম্পত্তি থেকে তাকে বঞ্চিত করা হয়। তারপরও ভাইদের কাছ থেকে দুই দলিলের সাড়ে ২৮ শতক জায়গা কিনে ঘর তুলে বসবাস করছিলেন তিনি। তার স্ত্রীকের মারধর করা তাহেরের বাবার কাছ থেকেও তিনি ১৩ শতক জায়গা ক্রয় করেন। রোববার সেই জায়গায় তাহের ও সুমন বেড়া দিতে এলে তার স্ত্রী দুজনে বাধা দেন। এ কারণে তারা ও তাদের স্ত্রীরা বেলুয়াকে তাদের ঘরের উঠানের নিয়ে গাছের সঙ্গে বেধে মারধর করেন। তিনি এই ঘটনার প্রতিবাদে আদালতে মামলা করেছেন। দোষীদের শাস্তির দাবিও করেন শহিদুল্লাহ।হাসপাতালে ভর্তি বেলুয়া খাতুনের সঙ্গে কথা হলে  তিনি একই কথা জানিয়েছেন। তিনি জানান, মিজান ও সুমন তাকে চড় থাপ্পড় মেরে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখেন। পরে রোজিনা ও কাজল তাকে গাছ থেকে ছাড়িয়ে মোটা দড়ি দিয়ে বেঁধে উঠানে শুইয়ে রাখেন।

এ সকল ব্যাপারে কথা বলতে গেলে মিজান বা সুমন কাউকেই পাওয়া যায়নি। স্থানীয়রা বলছেন, লোকজনের আক্রোশের ভয়ে তারা বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছেন। তবে মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে তাতে ফোন দেওয়া হলে কথা হয় সুমনের স্ত্রী রোজিনার সঙ্গে কথা হয়। তিনি বিষয়টি স্বীকার করে জানান, তার ভাসুর মিজান ও তার স্বামীর সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে জমি নিয়ে বিরোধ করছিলেন শহিদুল্লাহ। রোববার বেড়া দিতে গেলে তারা বাধা দেয়। এতে উত্তেজিত হয়েই তার স্বামী ও ভাসুর এ ঘটনা ঘটান।শাহরাস্তি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহ আলম  জানান, ঘটনাস্থল থেকে নির্যাতিত নারীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার স্বামী থানার পরিবর্তে আদালতে গিয়ে মামলা দায়ের করেছে। আদালতের কাগজ থানায় আসলে দোষীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।