আজকের বার্তা | logo

৭ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২১শে মার্চ, ২০১৯ ইং

প্রসূতিকে ভুল চিকিৎসায় অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ

প্রকাশিত : জানুয়ারি ১১, ২০১৯, ০১:০৬

প্রসূতিকে ভুল চিকিৎসায় অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ

আগৈলঝাড়া সংবাদদাতা ॥ কথিত চিকিৎসককে দিয়ে একর পর এক ভুল চিকিৎসার পর আবারও আগৈলঝাড়ার দুঃস্থ মানবতার হাসপাতালে এক প্রসূতির রক্তের গ্রুপ ভুল নির্ণয়সহ অন্যান্য ভুয়া রিপোর্ট দিয়ে অর্থ হাতিয়ে নিয়ে ভুল চিকিৎসা প্রদানের অভিযোগ করেছেন রোগীর স্বজনরা। অভিভাবকদের সচেতনতায় নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে গেছেন ওই প্রসূতি। উজিরপুর উপজেলার কুড়ুলিয়া গ্রামের হানিফ খলিফার স্ত্রী শারমিন বেগম (২৫) প্রসব বেদনা নিয়ে ৫ জানুয়ারি আগৈলঝাড়া উপজেলা সদরের বাইপাস মোড়ের ফুল্লশ্রী এলাকায় দুঃস্থ মানবতার প্রাইভেট হাসপাতালে আসেন। হাসপাতালের কথিত চিকিৎসক মো. আশ্রাফুল ইসলাম শাওন (ডিএমএফ) তাকে ১০৫/১০৫নং আইডিতে ভর্তি করিয়ে ওই রাতেই সিজারিয়ান অপারেশনের জন্য রোগীর স্বজনদের বলেন। রোগীর স্বজনদের সাথে সিজারিয়ান অপারেশন করতে হাসপাতালের ১১ হাজার টাকার মৌখিক চুক্তি হয়। ওই রাতেই অপারেশনের মাধ্যমে শারমিন দ্বিতীয় পুত্র সন্তানের মা হন। ৮ জানুয়ারি রোগীর রক্তের প্রয়োজনে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় করা হয় হাসপাতালের প্যাথলজি বিভাগে। হাসপাতালের মেডিকেল টেকনোলজিস্ট নয়ন হালদার রোগীর রক্তের গ্রুপ নির্ণয় করে এ(+) হিসেবে রিপোর্ট দেন। একই রিপোর্টের সাথে রোগীর কোনো পরীক্ষা নিরীক্ষা ছাড়াই ওই টেকনোলজিস্ট এইচআইভি রিপোর্ট (নেগেটিভ)সহ একাধিক রিপোর্টের ফলাফল দেখিয়ে হাতিয়ে নেন অতিরিক্ত অর্থ। পরদিন ৯ জানুয়ারি রোগীর স্বজনেরা প্রসূতি শারমিনের রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ও রক্তের ক্রস ম্যাচিংয়ের জন্য  গৌরনদীর সিকদার কিনিক অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে যান। সেখানের টেকনোলজিস্ট বিশ্বজিত গাইন রোগী শারমিনের রক্তের গ্রুপ বি (+) হিসেবে রিপোর্ট দিলে স্বজনেরা তাকে বি(+) গ্রুপের রক্ত প্রদান করেন। এরই মধ্যে দুঃস্থ মানবতার হাসপাতাল কর্র্তৃপক্ষের সাথে রোগীর স্বজনদের ঘটনা নিয়ে বাগ্বিত-া হয়ে যায়। ওই প্রাইভেট হাসপাতালের বিরুদ্ধে এর আগেও একাধিক ভুয়া চিকিৎসককে রেজিস্টার চিকিৎসক সাজিয়ে রোগীদের অপচিকিৎসা দিয়ে অর্থ হাতিয়ে নেয়া, রোগীকে জরিমানা দেয়া ও সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে টাকার বিনিময়ে ম্যানেজ করার একাধিক অভিযোগ রয়েছে। এব্যাপারে স্বাস্থ্য বিভাগের সাবেক উপ-পরিচালক ও দুঃস্থ মানবতা হাসপাতালের পরিচালক ডা. হিরন্ময় হালদার (অব.) ফোনে জানান, ঘটনা নিয়ে রোগী ও তার স্বজনদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। কথিত চিকিৎসক আশ্রাফুল কোনো রোগী ভর্তি করতে পারেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা তিনি পারেন না। এজন্য তাকে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে। ওই হাসপাতালে এইচআইভি’র পরীক্ষা হয় কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখানে এই টেস্ট হয় না। হাসপাতালের সার্বিক দায়িত্বে থাকা সুমন ফকির বিষয়টি ভুল দাবি করে পরে খোঁজ নিয়ে এ প্রতিনিধিকে জানানোর কথা বলে আর কথা বলেননি। জেলা সিভিল সার্জন ডা. মনোয়ার হোসেন জানান, রোগীর পক্ষ থেকে অভিযোগ পেলে অবশ্যই তিনি আইনগত ব্যবস্থা নেবেন। তারপরেও এভাবে ভুল রিপোর্ট প্রদান ও ভুল চিকিৎসার কারণে আর কোনো রোগীর যেন ক্ষতি না হয় এজন্য তিনি হাসপাতালটি পরিদর্শন করবেন। প্রয়োজনে হাসপাতালটি সিলগালা করে দেয়ার কথাও জানান তিনি।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।