আজকের বার্তা | logo

১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৫ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং

যেভাবে ইসরাত জাহান জঙ্গিবাদে জড়ালেন পটুয়াখালীর

প্রকাশিত : নভেম্বর ১০, ২০১৮, ১৪:৫৮

যেভাবে ইসরাত জাহান জঙ্গিবাদে জড়ালেন পটুয়াখালীর

অনলাইন সংরক্ষণ  //   ২০১৩ সালে আমি মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ফার্মেসি বিভাগে ভর্তি হই। সেই সুবাধে আকলিমা ওরফে মনি ও খাদিজা পারভীন ওরফে মেঘলার সঙ্গে পরিচয় হয়। আকলিমা কোরানে অনেক পারদর্শী ছিল। সে ইসলামের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আমার সঙ্গে কথা বলতো। আমি নিজেও আকলিমার কাছে ইসলাম সম্পর্কে অনেক কিছু জানার আগ্রহ প্রকাশ করি। এভাবেই ধীরে ধীরে আকলিমা আমাকে বদলে দিতে থাকে। তার হাত ধরে নব্য জেএমবিতে যোগ দেই।’ আদালতে দেওয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এভাবেই নিজের জঙ্গিবাদে জড়ানো প্রসঙ্গে বলেছে ইসরাত জাহান ওরফে মৌসুমী ওরফে মৌ। মৌসুমীর মতো আদালতে প্রায় একই রকম স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে খাদিজা পারভীন মেঘলা। এই নারীও ২০১৩ সালে মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ফার্মেসি বিভাগে ভর্তি হওয়ার পর আকলিমা ওরফে মনির মাধ্যমে জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়ে।

গত ১৬ অক্টোবর নরসিংদীর মাধবদীর ভগিরথীপুর এবং গাংপাড় এলাকায় কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের ‘অপারেশন গর্ডিয়ান নট’-এ দুই নারী জঙ্গি মৌসুমী ও খাদিজা পারভীন ওরফে মেঘলা আত্মসমর্পণ করে। সম্প্রতি নরসিংদীর জেলা জজ আদালতে এই দুই নারী জঙ্গি নিজেদের জঙ্গিবাদে জড়ানো ও কার্যক্রমের বর্ণনা দিয়ে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

ওই মামলার তদন্ত তদারক কর্মকর্তা নরসিংদীর মধাবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু তাহের দেওয়ান বলেন, ‘ওই অপারেশনে আত্মসমর্পণকারী দুই নারী জঙ্গি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। জবানবন্দিতে তারা কীভাবে জঙ্গিবাদে জড়িয়েছিল এবং তাদের সহযোগী কারা সেসব তথ্য জানিয়েছে। মামলাটির তদন্ত চলছে। তাদের সহযোগীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।’

স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে ইসরাত জাহান ওরফে মৌসুমী বলে- ‘আকলিমার কাছ থেকে ধারণা নিয়ে আমি নব্য জেএমবির অনুসারী হই। নব্য জেএমবির কার্যকলাপ বিশ্বাস করতে শুরু করি। আমরা তিনজন মানহাজে বিশ্বাসী। তখন থেকেই আমরা তিনজন গ্রুপ স্টাডি করতাম। ২০১৬ সালে ধানমন্ডির একটি বাসায় শাহপাড় আন্টি নামে এক মহিলার বাসায় ‘হালাকা’ (হালাকা অর্থ একসঙ্গে বসে জিহাদ নিয়ে আলোচনা করা) করতাম। সেখানে আমরাসহ বিভিন্ন বয়সের প্রায় ১০০ জন মহিলা আসতো।’

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার বিলবিলাস এলাকার বাসিন্দা ইসরাত জাহান জবানবন্দিতে বলে- ‘২০১৬ সালের ১৫ আগস্ট আমি, আকলিমা, খাদিজা ও ডা. ঐশিকে র‌্যাব নব্য জেএমবির সদস্য হিসেবে গ্রেফতার করে। এরপর মিরপুর থানায় আমাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়। সাড়ে সাত মাস জেলখানায় থাকার পর ২০১৭ সালের ৪ এপ্রিল জামিনে মুক্তি পাই। জামিনে আসার পর নয় মাস বাসায় থাকি। তারপর ১৭ই ডিসেম্বর মানারাত ইউনিভার্সিটিতে আবারও ভর্তি হই। তখন আবার সবার সঙ্গে যোগাযোগ হয়। আমি, আকলিমা, খাদিজা আবার গ্রুপ স্টাডি শুরু করি। বিশেষ করে জিহাদ নিয়ে আলোচনা ও নব্য জেএমবির বিভিন্ন ভিডিও দেখতাম। এসময় আমরা বিভিন্ন আইডি ব্যবহার করতাম ও টেলিগ্রাম আইডি ব্যবহার করতাম।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।