আজকের বার্তা | logo

২৮শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১২ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং

নগরীতে গড়ে উঠেছে নিম্নমানের এনার্জি বাল্ব’র শো-রুম

প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৮, ০১:৫০

নগরীতে গড়ে উঠেছে নিম্নমানের এনার্জি বাল্ব’র শো-রুম

আশিকুজ্জামান ॥ নগরীতে নানা এলাকায় গড়ে তোলা হচ্ছে নিম্নমানের ভুয়া এনার্জী বাল্ব, এলইডি বাল্ব, কালার ম্যাজিক বাল্বের একাধিক দোকান বা শো-রুম। সরেজমিনে অনুসন্ধান চালিয়ে দেখা যায়, নগরীর নবগ্রাম রোড, নথুল্লাবাদ, কাশিপুর, কাউনিয়া, আমানতগঞ্জ, পলাশপুর, ভাটিখানা, লঞ্চঘাট, কাটপট্টি রোড, রুপাতলীসহ বিভিন্ন বাজারের একাধিক দোকানে বা শো-রুমে বিক্রি করা হচ্ছে নিম্নমানের ভুয়া এনার্জি বাল্ব, এলইডি বাল্ব, কালার ম্যাজিক বাল্ব। এ সকল শো-রুম থেকে বিভিন্ন অটোরিক্সা, পায়েচালিত রিক্সাযোগে ভাড়া করা লোক দিয়ে কম মূল্যে সকল প্রকার এনার্জি বাল্ব বাজারজাত করা হচ্ছে। ১০০ টাকা মূল্যের এনার্জি বাল্ব, ২০০ থেকে ৩০০ টাকা মূল্যে এলইডি বাল্ব, ৩০০ টাকা মূল্যে কালার ম্যাজিক বাল্ব বাজারজাত করাসহ রাস্তা-ঘাটে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের হাতে হাতে বিক্রি করা হচ্ছে এ সকল নিম্নমানের ভুয়া এনার্জি বাল্বগুলো। যা কোনো প্রকার সঠিক নিয়মে মানসম্মতভাবে তৈরি করা হচ্ছে না। ফলে সাধারণ মানুষরা কম মূল্যে এ সকল এনার্জি বাল্ব ক্রয় করে প্রতারিত হচ্ছে প্রতিনিয়ত। তারা এখনো বুঝতে পারছেন না কেন ভালো কোম্পানিগুলোর এনার্জি বাল্বের মূল্য একটু বেশি। সঠিক মানসম্মতভাবে তৈরি করা হয় বলে ভালো কোম্পানিগুলোর পণ্যের মূল্য স্বাভাবিক বেশি থাকে। প্রতারিত হওয়া বিভিন্ন এলাকার একাধিক ব্যক্তিরা জানান, এ সকল নিম্নমানের ভুয়া এনার্জি বাল্বগুলোর শো-রুম থেকে গ্যারান্টি কার্ডে ৬ মাসের মেয়াদ দেয়া থাকে। কিন্তু শো-রুম মালিকরা নানা সময়ে বিভিন্ন নামে এ এনার্জি সকল প্রকার বাল্ব তৈরি করে আনে। যেমন কাশিপুর চৌরাস্তায় অবস্থিত শরীফ এনার্জি সেভিং ল্যাম্প কোং এর মালিক মো: বাবু। তিনি ১ জুলাই ১০,০০০ (দশ হাজার) পিস ৩ প্রকার এনার্জি বাল্ব ঢাকা থেকে তৈরি করে আনেন। যার গ্যারান্টি কার্ডে ৬ মাস মেয়াদ দেয়া আছে। কিন্তু উক্ত ১০ হাজার পিস বাল্ব ১ থেকে ২ মাসের মধ্যে বিক্রি ও বাজারজাত করার লক্ষ্য নিয়ে কাজ করা হচ্ছে। এ বাল্ব বিক্রি করা হলে সে পুনরায় অন্য নামে বাল্ব তৈরি করে আনবে। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে, ২ মাসের মধ্যে এনার্জি বাল্বগুলো বাজারজাত করে নতুনভাবে অন্য নামে এনার্জি বাল্ব তৈরি করে আনবে ফলে সাধারণ ভুক্তভোগী মানুষরা নির্দিষ্ট মেয়াদের আগে নষ্ট বাল্ব ফেরত দেয়ার আর কোনো উপায় থাকবে না। এভাবেই নিম্নমানের ভুয়া এনার্জি, এলইডি, কালার ম্যাজিক বাল্ব ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন সময় নানান নামকরণের মাধ্যমে বাল্ব তৈরি করে এনে তাদের নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বাজারজাত করে পুনরায় অন্য নাম দিয়ে আবার এ সকল এনার্জি বাল্ব তৈরি করে এনে তাদের ভুয়া নিম্নমানের ব্যবসা দীর্ঘদিন যাবত পরিচালনা করে আসছে। আর এ ভুয়া এনার্জি বাল্ব ব্যবসায় প্রতারিত হচ্ছে সাধারণ মানুষ প্রতিনিয়ত। এ সকল নিম্নমানের বাল্ব ১ থেকে ২ মাসের মধ্যে নষ্ট হলে শো-রুমে বা নির্দিষ্ট দোকানে ফেরত দিতে গেলে দোকানদার বা মালিক বলে এটা আমার তৈরি বাল্ব না। আমার তৈরি বাল্ব বর্তমানে দোকানে যে নামে তৈরি করা হয়েছে সেটাই। অত:পর ঝগড়া বিবাদের সৃষ্টি হলে অসহায় হয়ে ফেরত আসতে হয় সাধারণ ক্রেতাদের। নগরীজুড়ে দীর্ঘদিন এনার্জি বাল্ব বিক্রির এ প্রতারক চক্রের ফাঁদে পড়ে প্রতারিত হচ্ছে অসংখ্য নগরবাসী। কিন্তু এ প্রতারক চক্রের ব্যবসার নামে দুর্নীতি অহরহ চললেও কেউ কোনো সঠিক আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করছেন না। ফলে এ সকল এনার্জি বাল্ব ব্যবসায়ীরা দিন দিন মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে। তাদের এ প্রতারণার ব্যবসায় আরও কত প্রতারিত হবেন নগরবাসী তার কোনো সঠিক জবাব কেউ দিতে পারছেন না বলে ব্যবসায়ীরাও মরিয়া হয়ে মেতে উঠেছেন এ নিম্নমানের ভুয়া ব্যবসায়। এ সকল প্রতারক চক্রের এনার্জি বাল্ব ব্যবসার দুর্নীতি সম্পর্কে বর্তমান জেলা প্রশাসক মো: হাবিবুর রহমানকে অবহিত করা হলে তিনি বলেন, অতি শীঘ্রই এ সকল ব্যবসার দুর্নীতি খতিয়ে দেখে প্রতারণার প্রমাণ পাওয়া গেলে ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

 

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।