আজকের বার্তা | logo

৪ঠা মাঘ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৬ই জানুয়ারি, ২০১৯ ইং

কলাপাড়ায় পাউবোর ১৫ কোটি টাকার জমি বেহাতের শঙ্কা

প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৮, ০২:১২

কলাপাড়ায় পাউবোর ১৫ কোটি টাকার জমি বেহাতের শঙ্কা

কলাপাড়া প্রতিনিধি ॥ দেড়যুগ আগে পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। নেয়া হয়েছে অফিসসহ সকল কার্যক্রম গুটিয়ে। সেই থেকে পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়। এরপরও চরম জীর্ণদশার অফিস ভবনসহ স্টাফ ও অফিসার্স কোয়ার্টারে বসবাস করছেন অন্তত ৯টি হতদরিদ্র পরিবারের ৪২ জন মানুষ। প্রত্যেকটি ভবনের ছাদসহ পলেস্তারা খসে পড়েছে। কার্ণিশ ভেঙে গেছে। বৃষ্টির সময় পানি চুইয়ে পড়ায় পলিথিন দিয়ে থাকতে হচ্ছে। জানালার গ্রিলসহ তক্তা নেই। দরজা নেই। ছালা টানিয়ে থাকতে হচ্ছে। নিতান্ত দরিদ্র এসব পরিবার জীবনের চরম ঝুঁকি নিয়ে বছরের পর বছর বসবাস করছে। ফলে ভবনগুলো ধসে বড় ধরনের প্রাণহানির শঙ্কা রয়েছে। এছাড়া কেউ কেউ পানি উন্নয়ন বোর্ডের এইসব ভবনের সঙ্গে টিন-কাঠের বেড়াসহ ছাউনি দিয়ে আবাসস্থল করেছেন। এসব কারণে পানি উন্নয়ন বোর্ডের অন্তত ১৫ কোটি মূল্যের সাড়ে ছয় একর জমিসহ পুরনো স্থাপনা বেহাতের শঙ্কা দেখা দিয়েছে। পটুয়াখালীর কলাপাড়ার মহিপুরে এ জমির অবস্থান। সরেজমিনে দেখা গেছে, শ্রমজীবী কালাম শেখের স্ত্রী নুরজাহান পরিত্যক্ত একটি ভবনের বারান্দায় রান্না করছিলেন। নিজে মাছের আড়তে রান্না করেন। স্বামী কামলা দেন। ৫ সন্তানের মা নুরজাহান জানান, নিতান্ত দায় ঠেকে জীবনশঙ্কায় এখানে থাকেন। দেখালেন সব জায়গা দিয়ে পানি পড়ে। রাতে বৃষ্টি হলে ঘুমুতে পারেন না। ভবনটির পুবদিকে থাকেন আরেক হতদরিদ্র হামেদ মাদবর। ৫ জনের সংসারে আছে শুধু এই অস্থায়ী আশ্রয়স্থল। তাও মৃত্যুশঙ্কায়। কয়েকবার পলেস্তারার বড় খ- মাথায়-শরীরে পড়ে আহত হয়েছেন। পরিবারের সাব্বির জানান, তিনি আহত হলে মাথায় তিনটি সেলাই দিতে হয়েছে। আফতাব জানান, আহত হয়ে এখন চোখে সমস্যা হয়েছে। শাকিবের এক হাত ভেঙে গেছে। তারপরও কোনো আশ্রয়স্থল না থাকায় এরা থাকছেন। সোহাগ, নুরুন্নাহার, সোবাহান, শিমুল, হাফেজ মাঝি, নুর বেগম, লাইলি বেগম, ফিরোজা বেগম ও মরিয়মের এই ৯টি পরিবার সন্তান-সন্তুতি নিয়ে থাকছেন। তাঁদের দাবি, অন্তত বসতির জন্য একটু ঠাঁইয়ের সুযোগ করে দেয়া হোক। পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিজস্ব অফিস ও স্টাফ কোয়ার্টার করার জন্য ষাটের দশকে মহিপুরে শিববাড়িয়া মৌজায় এ পরিমাণ জমি অধিগ্রহণ করা হয়। নির্মাণ করা হয় অফিস, স্টাফ ও অফিসার্স কোয়ার্টার। ২০০০ সালের দিকে ওখানকার অফিসটি গুটিয়ে ফেলা হয়। জীর্ণদশার আবাসিক কোয়ার্টার এবং অফিসের মধ্যে বহিরাগত ভাসমান হতদরিদ্র এসব পরিবার বসবাস করছে। এ ব্যাপারে পানি উন্নয়ন বোর্ড কলাপাড়ার নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবুল খায়ের জানান, শীঘ্রই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।