আজকের বার্তা | logo

৯ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং

সাদিকের প্রতি নগরবাসীর আস্থা অবিচল

প্রকাশিত : আগস্ট ২০, ২০১৮, ২৩:১১

সাদিকের প্রতি নগরবাসীর আস্থা অবিচল

খন্দকার রাকিব ॥ মানুষ আশা নিয়ে বাঁচতে চায়। তাই আশা নিয়েই বুক বাঁধে সবাই। স্বপ্নও দেখে। বরিশাল নগরবাসী সেইরকম একটা পরিস্থিতিতে সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহকে বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে বিপুল ভোটে জয়ী করেছেন। তাই সাদিক আবদুল্লাহ’র নেতৃত্বে বরিশাল নগরীকে একটি অপরাধমুক্ত আধুনিক নগরীতে রূপান্তরিত করার আশা নিয়ে অপেক্ষায় রয়েছেন নগরবাসী। এক্ষেত্রে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক মহলের অভিব্যক্তি হচ্ছে- কর্পোরেশনের টানাপোড়েনের মধ্যেও সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ নগরবাসীর যে দায়িত্ব নিয়েছেন এটা ইতিবাচক হিসেবেই দেখতে হচ্ছে। বিগত সময়ে কর্পোরেশনের দায়িত্বে থাকা মেয়রদের প্রতিনিধিত্বে যে তিক্ত অভিজ্ঞতা হয়েছে সেখান থেকে নগরবাসীকে বেরিয়ে আসার সুযোগ করে দিতে পারেন সাদিক। কারণ, নির্বাচিত হওয়ার পর তিনি দায়িত্ব না নিলেও ইতিমধ্যে কাজের মাধ্যমে বেশ কয়েকটি উদাহরণ সৃষ্টি করেছেন। বিশেষ করে নির্বাচন পরবর্তী নগরবাসীর দুয়ারে কড়া নাড়ার বিষয়টি বেশি মাত্রায় আলোচিত হচ্ছে। অবশ্য এক্ষেত্রে পিছিয়ে নেই রাজনৈতিক পরিবারের গৃহবধূ সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ’র স্ত্রী লিপি আবদুল্লাও। শহরের অবহেলিত এলাকার মানুষের সাথে সাক্ষাৎ করে সুখ-দু:খের জীবন কাহিনি শুনছেন তিনি। মেয়রপতœী কীর্তনখোলার তীরবর্তী রসুলপুর কলোনিতে গিয়ে সেখানকার বাসিন্দাদের সার্বিক খোঁজ খবর নিয়েছেন। পাশাপাশি স্বামীর ওপর আস্থা রাখার আশ্বাস দিয়ে তার পাশে থাকার আহ্বান করেন। একইভাবে মেয়র সাদিক’রও জনগণের বাসাবাড়িতে গিয়ে গিয়ে খোঁজ খবর নেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। নবনির্বাচিত মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ সেই ধারাবাহিকতা বজায় রেখে চলে গেলেন শহরের কাউনিয়া এলাকার হরিজন পল্লীতে। সেখানে বসবাসরত মানুষের খোঁজ খবর নিয়েছেন তিনি। অবশ্য এই কলোনির বাসিন্দাদের জীবনমান উন্নয়নে নির্বাচনের আগে ভূমিকা রাখার প্রতিশ্রুতি ছিল। পর্যায়ক্রমে নগরীর সকলের সাথে তিনি ও তার স্ত্রী কুশল বিনিময় করবেন বলেও জানা গেছে। নির্বাচিত হয়ে নগরভবনের দায়িত্ব না নিয়ে জনগণের পাশে দাঁড়ানোর উদাহরণ এই প্রথম বরিশালের কোনো মেয়র সৃষ্টি করলেন। ফলে সাদিকেই আশাবাদী গোটা নগরবাসী। কারণ বিগত সময়ে নির্বাচনপূর্ব প্রার্থীরা প্রতিশ্রুতির ফুলঝুড়ি দেখালেও পরবর্তীতে তাদের পাশে পায়নি নগরবাসী। যে কারণে এই বিষয়টি নিয়ে এখানকার জনগণের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভ ছিল। সেই ক্ষোভের আগুন জ্বলেছে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে। কাঙ্খিত জবাব দিয়ে যুতসই প্রার্থী সাদিককেই বসিয়েছেন মসনদে। ফলে মেয়রের কাছে শহরবাসীর প্রত্যাশা অনাকাঙ্খিত বা অযাচিত নয় বলে অনুমানে নিয়েছেন রাজনৈতিক বোদ্ধারা। অবশ্য সাদিকও প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে যে জোরতর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তার আঁচ পাওয়া গেছে। নিশ্চিত হওয়া গেছে, রাজনৈতিক ঝুটঝামেলা এড়াতে ইতিমধ্যে সাদিক নেতাকর্মীদের সতর্ক করে দিয়েছেন। অনাকাঙ্খিত কোনো ঘটনার দায়ভার তিনি নিতে নারাজ, সেই বিষয়টিও প্রকাশ পেয়েছে। বিশেষ করে দ্বন্দ্ব সংঘাত বা বিতর্কিতমূলক কর্মকা- থেকে সকল নেতাকর্মীকে সেইভ সাইডে থাকারও পরামর্শ দিয়েছেন তরুণ এই মেয়র। এরপরেও যদি কোনো নেতাকর্মী অস্বাভাবিক কর্মকা-ে জড়িয়ে দল বা জাতির জনকের সুনাম ম্লান করার অপতৎপরতা দেখায়, তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি দেন তিনি। সংগত কারণে ধারণা করা হচ্ছে, সাদিক সতর্কভাবে পথ চলতে চাইছেন। বরিশালের প্রেক্ষাপট বিবেচনা করে মেয়রের এই কৌশলী পদক্ষেপকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছে সচেতন মহল। কিন্তু সাদিক আগামীতে নিজেকে এই ধারায় রাখতে পারবেন কি না এখন সেটাই দেখার অপেক্ষা। বহু নির্বাচনের অভিজ্ঞতা সমৃদ্ধ সাদিক’র মা সাহান আরা বেগম’র কথা না বললেই নয়, ছেলেকে বিজয়ী করতে সিটি নির্বাচনে তার ভূমিকা ছিলো চোখে পড়ার মত। তিনি সময়-অসময়ে ছুটে গিয়েছেন ভোটারদের কাছে তাদের সমস্যা জানার জন্য। তিনি বরিশালের সর্ব মহলে সকলের কাছে একজন গ্রহণযোগ্য ব্যক্তি হিসেবে অধিকতর সমাদৃত। বরিশালের বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃত্ব দেন তিনি। তাই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে সাহান আরা বেগম’র অবদান অপরিসীম।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।