আজকের বার্তা | logo

৩রা কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৭ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং

রিকশামিস্ত্রি নাজমা

প্রকাশিত : আগস্ট ০৫, ২০১৮, ১০:৩৭

রিকশামিস্ত্রি নাজমা

অনলাইন সংরক্ষণ  //  আবাহনী মাঠের পশ্চিম পাশের ফুটপাত ঘেঁষে পরপর কয়েকটি রিকশা-সাইকেল সারাইয়ের দোকান। রাজধানীর ধানমন্ডির এ জায়গাটায় আসতেই কানে ভেসে এল মানুষের কোলাহল আর গাড়ির হর্নের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ঠুকঠুক, টুংটাং শব্দ। রিকশা-সাইকেল সারাই মিস্ত্রিরা যে যার মতো কাজে ব্যস্ত। খুবই সহজ স্বাভাবিক পরিচিত শহুরে ফুটপাতের দৃশ্য। কিন্তু একটু এগোতেই চোখ আটকে যায় সম্পূর্ণ অপরিচিত দৃশ্যে। বাঁশের খুঁটিতে বাঁধা বড় বহিরঙ্গন ছাতা। ছাতার নিচে রিকশা মেরামতের যন্ত্রপাতি থরে থরে সাজানো। তার সামনে বসে একমনে রিকশা সারাইয়ের কাজ করছেন একজন নারী। ঢাকা নামের এই জাদুর শহরে জীবন-জীবিকা নির্বাহের কতই না পন্থা মানুষের। শ্রম আর ঘাম বিক্রির এই বিনিময় চক্রে পিছিয়ে নেই নারীরাও। কিন্তু তাই বলে রিকশা সারাইয়ের কাজে একজন নারী! শহরজুড়ে এ রকম দৃশ্য দ্বিতীয়টি চোখে পড়বে বলে মনে হয় না। কৌতূহলে এগিয়ে গিয়ে কথা হয় তাঁর সঙ্গে।

নাম তাঁর নাজমা আক্তার। বয়স ৪৫। জন্ম ও বেড়ে ওঠা ঢাকাতেই। নাজমা আক্তার বললেন, ‘বাবা ছিলেন রিকশামিস্ত্রি। জন্মের পর থেকে বড়ই হইছি রিকশা সারাইয়ের যন্ত্রপাতির সঙ্গে। ফলে কাজটা নতুন করে শিখতে হয়নি।’ সেই ছোটবেলাতেই বাবার কাছ থেকে আগ্রহভরে শেখেন মেরামতের বিভিন্ন কাজ। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়তে থাকে কাজের দক্ষতা। তবে রীতিমতো পেশা হিসেবে কাজটি গ্রহণ করবেন—শুরুতে এমন ভাবনা ছিল না মোটেই। অন্য আর দশটা বাঙালি মেয়ের মতো বিয়ে করে গৃহিণীর জীবন শুরু করেছিলেন নাজমা। ‘কিছুদিন যেতে না যেতেই স্বামীর আচরণ বদলাতে থাকে। অত্যাচার-অপমান করতেন। ব্যাপারটি মানতে পারিনি।’ বলছিলেন তিনি।

নাজমা তখন বুঝে গিয়েছিলেন, আর্থিক স্বাবলম্বিতাই তাঁকে এই অপমান-অত্যাচার থেকে মুক্তি দিতে পারে। একমুহূর্ত ভাবেননি আর। বাবার শেখানো কাজটাকেই গ্রহণ করেন পেশা হিসেবে। তবে প্রয়াত স্বামীর প্রতি ক্ষোভ নয়, একধরনের কৃতজ্ঞতা যেন রয়েছে তাঁর। প্রয়াত স্বামীর অগ্রহণযোগ্য আচরণের জন্যই তো আজ কত কত মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্য হয়ে উঠেছেন। হয়ে উঠেছেন আত্মনির্ভরশীলতার দৃষ্টান্ত।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।