আজকের বার্তা | logo

৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২১শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং

পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় খাবারে বিষ দিয়ে স্বামীকে হত্যাচেষ্টা

প্রকাশিত : আগস্ট ১৬, ২০১৮, ০২:১৬

পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় খাবারে বিষ দিয়ে স্বামীকে হত্যাচেষ্টা

ঝালকাঠি প্রতিনিধি ॥ পরকীয়া প্রেমে বাধা দেয়ায় বিমান বাহিনীর সাবেক এক কর্মকর্তাকে খাবারে বিষ মিশিয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে স্ত্রীর বিরুদ্ধে। মৃত্যু পথযাত্রী স্বামীকে ফেলে ঘর থেকে নগদ টাকা ও ছয় ভরি স্বর্ণালংকার নিয়ে পালিয়ে যান স্ত্রী। ঘটনার ১৫ দিন পর সুস্থ হয়ে গত মঙ্গলবার দুপুরে ঝালকাঠির জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে স্ত্রী আফরোজা আক্তার লাবনীসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন স্বামী মো. শাহাদাৎ সিকদার। বিচারক এইচ.এম. কবির হোসেন অভিযোগটি ঝালকাঠি থানার ওসিকে এজাহার হিসেবে গ্রহণ করার নির্দেশ দেন। মামলার বিবরণে জানা যায়, ১৯৯৯ সালে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী থেকে সার্জেন্ট হিসেবে অবসর নেন ছত্রকান্দা গ্রামের শাহাদাৎ সিকদার। অবসরের পর বেশ কয়েক বছর সৌদি আরবে চাকুরি করে ২০১৬ সালে দেশে ফিরে পিরোজপুরের ভা-ারিয়া উপজেলার বাসস্ট্যান্ড এলাকার মিলন সিকদারের মেয়ে লাবনীকে বিয়ে করেন। তাদের সংসারে সোহা নামে দেড় বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকেই স্বামী শাহাদাৎকে বিভিন্ন অজুহাতে চাপের মধ্যে রেখে স্ত্রী লাবনী একাধিক পুরুষের সাথে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। এর প্রতিবাদ করতে গেলে স্বামী শাহাদাৎকে বিভিন্নভাবে নির্যাতন করা শুরু করেন লাবনী। সবশেষ গত ২৯ জুলাই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পরকীয়ার বিষয়টি নিয়ে ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে লাবনী ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর শুরু করেন। এতে বাধা দিলে শাহাদাৎকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়। ওই দিনই শাহাদাৎ ঝালকাঠি সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। কিন্তু পুলিশ মামলা না নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য দুই পক্ষকে পয়লা আগস্ট পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আসতে বলেন। এ খবর জানতে পেরে ৩১ জুলাই রাতেই শাহাদাৎ এর খাবারে বিষ মিশিয়ে দেন স্ত্রী লাবনী ও তার ভাই সেলিম। খাবার খেয়ে শাহাদাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে ঘরে থাকা ৬ ভরি স্বর্ণালংকারসহ মূল্যবান মালামাল নিয়ে পালিয়ে যান লাবনী ও সেলিম। পরে শাহাদাৎ এর চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা এসে তাকে উদ্ধার করেন। প্রথমে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে এবং সেখানে অবস্থার অবনতি হলে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শাহাদাৎ সিকদার মুঠোফোনে বলেন, ‘‘দুই সপ্তাহ চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে গত ১৪ আগস্ট ঝালকাঠি জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে  মামলা দায়ের করি। আদালত ঝালকাঠি থানার ওসিকে এজাহার নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। লাবনী প্রায়ই আমাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো। পরকীয় করতো, তাতে বাধা দিতে গিয়ে আমি মৃত্যুর মুখোমুখি হয়েছি। আমাকে বিষ খাইয়ে মেরে ফেলতে চেয়েছিল সে।” এ বিষয়ে জানতে লাবনী আক্তারের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি কল গ্রহণ করেননি। ঝালকাঠি সদর থানার ওসি শোনিত কুমার গায়েন বলেন, ‘‘এ ঘটনায় এখনো আদালতের কোনো নির্দেশনা হাতে পাইনি। নির্দেশ পেলে সে মোতাবেক আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।”

 

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।