আজকের বার্তা | logo

৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২১শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং

দুপুরে অফিসে কী খাবেন?

প্রকাশিত : আগস্ট ০৮, ২০১৮, ১২:১১

দুপুরে অফিসে কী খাবেন?

অনলাইন সংরক্ষণ  //  কর্মজীবী মানুষেরা অফিসে দিনের বেশিরভাগ সময় কাটান। অফিস মানেই নানারকম কাজের চাপ। কাজের ফাঁকেই অফিসে খাবার খেতে হয়। তাই বলে তো কম খেলে হবে না। পরিমাণমতোই খেতে হবে। যাতে পেটও ভরবে, আবার পুষ্টি পাওয়া যায়।

ঢাকার বারডেম জেনারেল হাসপাতালের খাদ্য ও পুষ্টি বিভাগের প্রধান পুষ্টিবিদ শামসুন্নাহার নাহিদ বলেন, অফিসে ভালোভাবে কাজ করতে হলে পরিপূর্ণ পুষ্টিগুণসম্পন্ন খাবার খেতে হবে। অফিসের কাজে শারীরিক পরিশ্রমের পাশাপাশি মানসিক ধকলও সামলাতে হয়। এ জন্য পুষ্টিগুণসম্পন্ন পরিপূর্ণ খাবার না খেলে ভালোভাবে কাজ করতে অসুবিধা হবে। বেশি খেলে বেশি পুষ্টি পাওয়া যাবে, এ ধারণাও ভুল। কোন খাবারে কতটুকু পুষ্টি রয়েছে সেটা আগে জানতে হবে। যাঁরা ডায়েট করেন, তাঁদের নিজস্ব খাবার তালিকা অনুসরণ করা উচিত।

কেউ কেউ বাসা থেকে অফিসে খাবার নিয়ে যান। অনেক সময় ডাল বা মাছ-মাংসের ঝোলসহ বহন করতে হয়। অফিসে যাওয়ার সময় এ উপকরণগুলো অনেক সময় বহন খুব কষ্টসাধ্য। সকালে অফিসে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি এবং বহনে ঝামেলার জন্য অনেকেই অফিসে খাবার নিয়ে যান না।

তাড়াহুড়ো করে বাসা থেকে বের হওয়ার সময় বা অফিসে এসে কাজ শুরু করার পর সকালের নাশতার সময় অনেকেই পান না। কাজের চাপে দুপুরের খাবার দেরিতে খান। এভাবে অনিয়মিত খাওয়াদাওয়ায় স্বাস্থ্যের ক্ষতি হয়। আবার অনেকে অফিসে ভাজাপোড়া খাবার খান। মূল খাবারের পরিবর্তে কখনোই ভাজাপোড়া খেয়ে ক্ষুধা নিবারণ করা উচিত নয়। ভাজাপোড়া খেলে পেটের ভুঁড়ি, ওজন বৃদ্ধি ইত্যাদি সমস্যা দেখা দেয়। তাই অফিসে বিকেলের নাশতায় ভাজাপোড়া খাওয়া উচিত না।

ফলে সবচেয়ে বেশি পুষ্টি রয়েছে। ফল খেলে পুষ্টির চাহিদা পূরণ হওয়ার পাশাপাশি ক্ষুধা কমে। তাই অফিসে কাজের ফাঁকে একটু করে ফল খাওয়ার অভ্যাস করুন। এর ফলে স্বাস্থ্য ভালো থাকবে।

দুপুরে অল্প পরিমাণ খাবার (ভাত) খেয়ে দই খেতে পারেন। খাবার খাওয়ার পর দই খাওয়া খুবই উপকারী। মিষ্টি বা টক দই, যেটা ইচ্ছে সেটাই খেতে পারেন। চিনি না দিয়ে দই খাওয়াই ভালো।

ভাতের পরিবর্তে অফিসে সবজি খাওয়ার অভ্যাস করতে পারেন। সবজিতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন রয়েছে। বাসা থেকে সম্ভব হলে অফিসে বিভিন্ন ধরনের সবজির মিশ্রণ নিয়ে আসতে পারেন। খিদে পেলে অফিসে সবজি খেতে পারেন।

নিজের ডেস্কে বসে কাজ করতে করতে একটু করে বাদাম খান। বাদামে প্রচুর পরিমাণ প্রোটিন থাকে। এতে কাজ করতে ক্লান্তি আসবে না। এর ফলে ফুরফুরে মেজাজে কাজ করতে পারবেন। তবে বেশি মাত্রায় বাদাম খেলে পেট খারাপ হতে পারে। কাজের ফাঁকে ডাবের পানি খেতে পারেন। এতে শরীর ঠান্ডা থাকে। চা-কফি প্রাণের অভ্যাস থাকলে অনেক সময় কাজ করার পর বা কাজের মাঝে গ্রিন টি খান। চেষ্টা করবেন চিনি ছাড়া খেতে।

অফিসে প্রচুর পরিমাণ পানি পান করুন। তাতে একদিকে যেমন শরীরে পানিশূন্যতার অভাব হবে না, অন্যদিকে তা ওজন কমানোর জন্যও ভালো। প্রতিদিন অফিসে দেড় থেকে দুই লিটার পানি পান করুন। এতে আপনার ভারী খাবার খাওয়ার প্রবণতাও কমিয়ে দেবে। অফিসে ভারী খাবার খেলে ঘুমভাব চলে আসে। এর ফলে অনেক সময় সমস্যা হয়। সবচেয়ে বড় বিষয় হলো, পানি ওজন কমানোর জন্য উপকারী।

অফিসে নিয়ম মেনে সময়মতো খাবার খাওয়ার অভ্যাস করুন। সুস্থ থাকার জন্যও নিয়ম মেনে খাবার খেতে হবে। ওজন কমাতে চাইলে শর্করাযুক্ত খাবার গ্রহণের পরিমাণ কমিয়ে দিন। আর চিনিজাতীয় খাবার কম খাওয়ার অভ্যাস করুন। নাশতায় ভাজাপোড়া না খেয়ে মৌসুমি ফল রাখুন।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।