আজকের বার্তা | logo

৭ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং

ট্রেনের ছাদে চড়ে সীতাকুণ্ডে ঘটছে একের পর এক দুর্ঘটনা

প্রকাশিত : আগস্ট ১৯, ২০১৮, ১৫:২২

ট্রেনের ছাদে চড়ে সীতাকুণ্ডে ঘটছে একের পর এক দুর্ঘটনা

অনলাইন সংরক্ষণ   //  পারভেজ উদ্দিন। বয়স ১৬-১৭ বছরের বেশি হবে না। গত শুক্রবার সীতাকুণ্ড উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পুরুষ ওয়ার্ডের ২৩ নম্বর বেডে চিকিৎসাধীন পারভেজের সঙ্গে যখন দেখা হয়, তখন সে মাথার যন্ত্রণায় ছটফট করছে। চোখ-মুখ ফুলে আছে। এর আগের দিন গত বৃহস্পতিবার বিকেলে কুমিরা রেলস্টেশনের কাছে চলন্ত ট্রেন থেকে পড়ে গুরুতর আহত হয় সে। পারভেজসহ গত ২০ দিনে সীতাকুণ্ডে ট্রেন থেকে পড়ে দুর্ঘটনার শিকার হয়েছেন পাঁচজন। এর মধ্যে একজন ঘটনাস্থলেই মারা যান।

সীতাকুণ্ড ফায়ার সার্ভিস জানিয়েছে, হতাহত পাঁচজনই ট্রেনের ছাদে ভ্রমণ করছিলেন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ট্রেনের ছাদে ভ্রমণ না করতে সতর্ক করা হলেও অনেকেই তা শুনছেন না।

আহত পারভেজের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, কুমিরা ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। সে জানায়, মৌলভীবাজারের বড়লেখা থেকে চট্টগ্রামে কাজের সন্ধানে যাচ্ছিল। দুর্ঘটনার আগমুহূর্ত পর্যন্ত সে ছাদে ছিল। ওই সময় ছাদে অনেক মানুষ ছিল। কিন্তু কীভাবে সে পড়ে গেছে, তা মনে করতে পারছে না। পরিবারের সদস্যদের সঙ্গেও এখনো যোগাযোগ হয়নি।

কুমিরা রেলস্টেশন মাস্টার সাইফুদ্দিন বশর প্রথম আলোকে বলেন, পারভেজ চট্টগ্রামমুখী পাহাড়িকা এক্সপ্রেস ট্রেন থেকে পড়ে গিয়ে গুরুতর আহত হয়। সে মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার আহলুকি গ্রামের নুরুল আবছারের ছেলে।

হাসপাতালের পুরুষ ওয়ার্ডের দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক অলিউর রহমান জানান, পারভেজের মাথার ডান পাশে, ডান চোখে ও কোমরে আঘাত রয়েছে। ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা পারভেজকে অচেতন অবস্থায় ভর্তি করিয়েছেন। এখন সে আগের তুলনায় ভালো আছে। অল্প স্বল্প কথা বলছে। তবে তার আত্মীয়-পরিজন কারও খোঁজ পাওয়া যায়নি। পারভেজ একটি মুঠোফোন নম্বর দিয়েছে। কিন্তু সেটি বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।

অলিউর রহমান আরও বলেন, ট্রেন থেকে পড়ে আহত অনেক রোগী হাসপাতালে আসেন। অনেকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি না হয়ে চট্টগ্রাম নগরের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হন।

ফায়ার সার্ভিস সূত্র জানিয়েছে, পারভেজ পড়ে যাওয়ার অল্প সময়ের মধ্যে কুমিরা এলাকায় ঢাকামুখী অপর একটি ট্রেন থেকে ফজলুল কাদের (৪৫) নামের আরও একজন পড়ে যান। গত ২০ দিনে শুধু সীতাকুণ্ড অংশে চলন্ত ট্রেন থেকে পড়ে দুর্ঘটনার শিকার হয়েছেন পাঁচজন। এর মধ্যে গত ২৬ জুলাই সীতাকুণ্ড রেলস্টেশন এলাকায় ট্রেন থেকে পড়ে গিয়ে অজ্ঞাতনামা (৩০) এক ব্যক্তি নিহত হন। ২৯ জুলাই সীতাকুণ্ডের বারৈয়ারঢালা এলাকায় জাফর মিয়া (২২) নামের এক যুবক বগি থেকে ছাদে ওঠার সময় পড়ে গিয়ে আহত হন। এর পরদিন ৩০ জুলাই সীতাকুণ্ডের পরাগ সিনেমা হলের কাছে চলন্ত ট্রেনের ছাদ থেকে পড়ে অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তি (৪৮) আহত হন।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।