আজকের বার্তা | logo

১১ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং

জোয়ারের পানিতে নগরীতে দুর্ভোগ

প্রকাশিত : আগস্ট ১৬, ২০১৮, ০২:১৯

জোয়ারের পানিতে নগরীতে দুর্ভোগ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আকস্মিক জোয়ারের পানিতে ভাসছে বরিশাল শহর। গত ৩/৪ দিন ধরেই এ অবস্থা বিরাজ করছে। অমাবস্যার জো’এর প্রভাবে গতকালও নগরীর অধিকাংশ নিম্নাঞ্চল ডুবে যায়। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েন এলাকাবাসী। পাশাপাশি তীব্র যানজট সৃষ্টি হয় ওইসব এলাকার সড়কগুলোতে। অপরিকল্পিত নগরায়ন বিশেষ করে বরিশাল নগরীর অন্যতম সমস্যা জলাবদ্ধতার বিষয়ে ইতিপূর্বে কার্যকর কোনো ব্যবস্থা না নেয়ায় নতুন করে এই দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন নগরবাসী- এমনটাই মনে করছে সচেতন মহল। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত কয়েকদিন ধরে দুপুরের পরপরই বিভিন্ন খাল ও এর সাথে সংযুক্ত ড্রেনের মাধ্যমে নগরীতে জোয়ারের পানি প্রবেশ  করছে। বিকেল নাগাদ হাঁটু পানিতে তলিয়ে যায় সাগরদীর দরগাহবাড়ি, দ: আলেকান্দার ব্যাপ্টিস্ট মিশন রোড, মল্লিকবাড়ি, কেটিসি বস্তি এলাকা, চাঁদমারি ও পলাশপুরের নিম্নাঞ্চল, ভাটারখাল, আগরপুর রোডসহ বেশ কয়েকটি এলাকা। শহরের বর্ধিতাংশ হিসেবে পরিচিত নগরীর কাশীপুর, টিয়াখালী, লাকুটিয়া, রুপাতলীরও বেশ কিছু অংশ পানিতে নিমজ্জিত হয়। অভূতপূর্ব এবং আকস্মিক এমন ঘটনায় ভোগান্তিতে পড়েন এসব এলাকার বাসিন্দা এবং পথচারীরা। বিশেষ করে অফিস ও স্কুল-কলেজ ফেরত শিক্ষার্থীরা পড়েন দারুণ বিপাকে। হাঁটু পানি পেড়িয়েই তাদের ফিরতে হয়েছে নির্দিষ্ট গন্তব্যে। সন্ধ্যা নাগাদ পানি কমতে শুরু করলেও ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে উল্লিখিত এলাকাগুলোর রাস্তা-ঘাট। অনেক রাস্তার পিচের আবরণ সরে গিয়ে ইট-পাথরের খোয়া বেরিয়ে পড়েছে। পাশাপাশি বর্ধিত এলাকায় চাষকৃত বিভিন্ন ফসলেরও ক্ষতির সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। এতে পুনরায় ভোগান্তিতে পড়ার আশংকা করছেন নগরবাসী। এসব এলাকার বাসিন্দারা জানান, নগরীর পুরানো সমস্যা জলাবদ্ধতার অন্য এক রূপ প্রত্যক্ষ করছেন তারা। ইতিপূর্বে জোয়ারের পানি প্রবেশ করলেও তার মাত্রা এতটা ছিলোনা। প্রতিনিয়ত খাল ভরাট এবং অপরিচ্ছন ড্রেনের কারণে এ সমস্যা বর্তমানে প্রকট আকার ধারণ করেছে বলে অভিমত দেন তারা। সরেজমিনে দেখা গেছে, খালের পানির সাথে সাথে ড্রেনের পানিও উপচে সড়কে পড়ছে। ড্রেনগুলো সুয়ারেজ লাইনের সাথে যুক্ত থাকায় ময়লা-আবর্জনায় একাকার হয়ে যাচ্ছে সড়ক। গত্যান্তর না থাকায় সেই পানিই মারাচ্ছেন এলাকাবাসী। এতে পরিবেশ দূষণের পাশাপাশি স্বাস্থ্য ঝুঁকি বাড়ছে। এছাড়া পানিতে ভেসে আসা ময়লা-আবর্জনা পানি নেমে যাওয়ার পরও যত্রতত্র পড়ে থাকছে। বাড়ছে মশা-মাছির উপদ্রব। ভুক্তভোগীরা জানান, তাদের এলাকার ড্রেনগুলো দীর্ঘদিন ধরে অপরিচ্ছন্ন অবস্থায় পড়ে আছে। তাই পানি উঠলেও তা সহজে নামতে পারছে না। ময়লা পানি মারিয়ে শিশুদের স্কুলে যেতে হচ্ছে। এ কারণে শিশুরা বিভিন্ন ধরনের চর্ম রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। দ্রুত এ অবস্থা নিরসনে তারা সংশ্লিষ্টদের  প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। এদিকে, আবহাওয়া অফিস সূত্র জানিয়েছে, এখন বর্ষা মৌসুম চলছে। প্রতিবছরই এ মৌসুমে নদীতে পানির চাপ বেড়ে যায়। এর উপর যোগ হয়েছে অমাবস্যার জো’এর প্রভাব। এসব কারণে সৃষ্ট এমন অনাকাঙ্খিত সমস্যা আরও ২/১ দিন বিরাজ করতে পারে। শুক্রবার নাগাদ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে শুরু করবে বলে আশা প্রকাশ করেছে তারা।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।