আজকের বার্তা | logo

৯ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং

ঈদ মৌসুমে খানাখন্দে ভরা বরিশালের সড়ক-মহাসড়ক

প্রকাশিত : আগস্ট ২০, ২০১৮, ০১:৫৫

ঈদ মৌসুমে খানাখন্দে ভরা বরিশালের সড়ক-মহাসড়ক

বার্তা ডেস্ক ॥ সংস্কার না করায় ঈদ মৌসুমে খানাখন্দে ভরে গেছে বরিশালের সড়ক-মহাসড়কগুলো। এতে ঈদে ঘরমুখো মানুষ চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। স্টাফ রিপোর্টার ও সংবাদদাতাদের পাঠানো খবর- স্টাফ রিপোর্টার : সংস্কার কাজ শেষ করে বিল তুলে নেয়ার দুই মাসের মাথায় খানাখন্দের সৃষ্টি হয়ে যান চলাচলে দুর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের বৃহৎ একটি অংশে। ঈদুল আজহায় জনদুর্ভোগ সামাল দিতে তড়িঘড়ি করে খানাখন্দগুলো ভরাট করা হলেও বৃষ্টিতে তার মান নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের জেলায় প্রবেশদ্বার গৌরনদীর ভূরঘাটা থেকে উজিরপুর উপজেলার জয়শ্রী পর্যন্ত ২৩ কিমি অংশে এবং দপদপিয়া জিরো পয়েন্ট থেকে শিমুলতলা পর্যন্তÍ সড়কে এমন দুর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে, আগৈলঝাড়া-পয়সারহাট আঞ্চলিক মহাসড়কের বাইপাস সড়কের চার কিমি অংশ সংস্কার না হওয়ায় ঈদে ঘরমুখী যাত্রীদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বরিশাল সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের ওই ২৩ কিমি অংশ সংস্কারের জন্য ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে ৩২ কোটি টাকার কার্যাদেশ পায় এম.এম বিল্ডার্স এবং এম.এস.এ.এম.পি-জেভি লিঃ নামক দুটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। মহাসড়কের দুপাশ ৩ ফুট করে প্রশস্ত করাসহ সংস্কারের জন্য ওই কার্যাদেশ দেয়া হয়। পরবর্তীতে সংস্কারের অর্থব্যয় বৃদ্ধি করে ৪৮ কোটি টাকা করা হয়। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান দুটি ২০১৬ সালের নভেম্বর মাসে কাজ শুরুর পর কিছুদিন আগে শেষ করে চলতি বছরের জুনে পুরো বিল উত্তোলন করেছে। কিন্তু কাজ শেষ করার কয়েক মাসের মধ্যেই উজিরপুরের জয়শ্রী থেকে ভূরঘাটা পর্যন্ত মহাসড়কের অধিকাংশ স্থানে পিচ ও পাথর উঠে বড়-ছোট অসংখ্য গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। বিভিন্ন স্থানে রাস্তা ফেটে গেছে। আবার কোথাও কোথাও দেবে গেছে সড়ক। স্থানীয়রা জানান, আশোকাঠী ফিলিং স্টেশন থেকে হরিসোনা পর্যন্ত রাস্তা ফেটে গেছে এবং গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। হরিসোনা থেকে কাছেমাবাদ পর্যন্ত মাঝারি ধরনের ও কাছেমাবাদ থেকে মাহিলাড়া পর্যন্ত গোটা রাস্তাজুড়ে অসংখ্য গর্তের সৃষ্টি হয়। এ অবস্থায় ঈদের আগ মুহূর্তে গর্ত ভরাট করে জোড়াতালি দেয়া শুরু করেছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। মহাসড়ক সংলগ্ন বাটাজোর এলাকার সাবেক ইউপি সদস্য মো. ইদ্রিস আলী বলেন, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে সংস্কার কাজ করায় মহাসড়ক আগের মতো খানাখন্দে ভরে গেছে। বাস চালক সেলিম সরদার ও কেরামত হোসেন বলেন, বাস-ট্রাক চালকরা গত ২ বছর ধরে এ সড়ক ব্যবহারে দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। এসব প্রসঙ্গে বরিশাল সওজ’র নির্বাহী প্রকৌশলী খন্দকার গোলাম মোস্তফা সাংবাদিকদের বলেন, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান দুটি গত ৩০ জুন চূড়ান্তভাবে বিল উত্তোলন করেছে। গত কয়েকদিনের বর্ষণের মধ্যে ভারী যানবাহন চলাচল অব্যাহত থাকায় সড়কের কিছুু কিছু স্থানে সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। ঈদের কারণে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান তাৎণিকভাবে সেগুলো মেরামত করে দিচ্ছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বরিশাল-পটুয়াখালী মহাসড়কের দপদপিয়া জিরো পয়েন্ট থেকে শিমুলতলা পর্যন্ত সড়কে গর্ত ও খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার কোনো কোনো স্থানে নামমাত্র সংস্কার করলেও বৃষ্টিতে আগের মতই খানাখন্দে পরিণত হয়েছে সড়ক। ফলে দুর্ভোগে পড়েছেন বাড়ি ফেরা ঈদ যাত্রীরা। এদিকে, আমাদের  আগৈলঝাড়া সংবাদদাতা জানিয়েছেন, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের গাফিলতির কারণে আগৈলঝাড়া-পয়সারহাট আঞ্চলিক মহাসড়কের বাইপাস সড়ক সংস্কার না হওয়ায় ঈদে দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা। বৃষ্টিতে সড়কের গর্ত আরও বড় হওয়ায় ওই চার কিমি অংশে ঘটছে অহরহ দুর্ঘটনা। বরিশাল সওজ’র নির্দেশে কিছু গর্তে ঠিকাদার নামেমাত্র ইট দিলেও তা পর্যাপ্ত নয় বলে জানিয়েছেন যাত্রী ও চালকেরা। বরিশাল সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, গৌরনদী-আগৈলঝাড়া-পয়সারহাট মহাসড়কে খানাখন্দের কারণে ১৬ কিমি অংশ সংস্কারের জন্য ২০১৮ সালের প্রথম দিকে ২৩ কোটি টাকা ব্যয়ে আহ্বানকৃত টেন্ডারে বরিশালের এম খান গ্রুপ নামে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে কার্যাদেশ দেয়া হয়। ঠিকাদার বাইপাসের চার কিমি বাদে ১২ কিমি সড়কের সংস্কার করেন। ওই সময় বৃষ্টি না থাকলেও ঠিকাদারের গাফিলতির কারণে সড়ক সংস্কার না করায় পরবর্তীতে যানবাহন চলাচল ও বৃষ্টিতে আরও বড় গর্ত হয়। গর্তে গাড়ি আটকা পড়ে চলতি মাসে দুই বার যানবাহন চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে যায়। তবে ঠিকাদার ৪ কিমি অংশের সড়কে সংস্কার কাজ না করে বড় বড় গর্তে নামেমাত্র ইট দিলেও যানবাহন চলাচলে বিঘœ ঘটছে। এ ব্যাপারে সওজ উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. আবু হানিফ বলেন, বৃষ্টির মৌসুম শেষ হলে ঠিকাদার কাজ শুরু করবেন। বর্তমানে গাড়ি ও লোকজনের চলাচলের জন্য ঠিকাদার বালু ও ইট দিয়ে গর্ত ভরাট করে যান চলাচল স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করছেন।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।