আজকের বার্তা | logo

৮ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং

সাকিব পারবেন ৯ বছর আগের স্মৃতি ফেরাতে?

প্রকাশিত : জুলাই ০৩, ২০১৮, ২৩:২৪

সাকিব পারবেন ৯ বছর আগের স্মৃতি ফেরাতে?

অনলাইন সংরক্ষণ  ////ভাগ্যচক্র বুঝি একেই বলে। টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে সাকিব আল হাসানের প্রথম মেয়াদ শুরু হয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ থেকে। তাঁর দ্বিতীয় মেয়াদও শুরু হচ্ছে সেই ক্যারিবিয়ান উপকূলেই।

২০০৯ সালে বাংলাদেশ দলের ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের কথা মনে আছে? প্রথম টেস্টে পায়ে চোট পেয়ে ছিটকে পড়লেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। এই সংস্করণে সেই চোটের পর আর মাঠে নামা হয়নি মাশরাফির। প্রথম টেস্টে মাশরাফি ছিটকে পড়ার পর নেতৃত্ব দিয়ে জয় এনে দিয়েছিলেন সাকিব। দ্বিতীয় টেস্ট থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে টেস্ট অধিনায়ক পান সাকিব এবং সেই ম্যাচটাও জিতেছিল বাংলাদেশ।

সাকিবের এই নেতৃত্ব টিকেছে প্রায় দুই বছর। ২০১১ সালে জিম্বাবুয়ে সফরে দল আশানুরূপ পারফরম্যান্স না করায় নেতৃত্ব হারান তিনি। দীর্ঘ ছয় বছর পর গত বছরের ডিসেম্বরে আবারও নেতৃত্ব ফিরে পান সাকিব। এবার তাঁর জন্য জায়গা ছাড়তে হয় মুশফিকুর রহিমকে। কিন্তু টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে সাকিব তাঁর দ্বিতীয় মেয়াদ তখন শুরু করতে পারেননি।

নিদাহাস ট্রফিতে আঙুলে চোট পেয়েছিলেন। এতে জানুয়ারিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঘরের মাঠে টেস্টে নেতৃত্ব দিতে পারেননি। তাঁর সেই অপেক্ষাটা ঘুচবে এবার—সেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতেই। কিন্তু এর চেয়েও আশ্চর্যের ব্যাপার হলো, ওয়েস্ট ইন্ডিজে দ্বিতীয় মেয়াদে নেতৃত্ব দেওয়া নিয়ে সাকিব একেবারেই নির্মোহ।

অবশ্য সাকিবকে যাঁরা চেনেন, তাঁরা জানেন আবেগের বাঁধ ভেঙে না গেলে বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডারের আচরণ সব সময়ই এমন। কোনো কিছু নিয়ে তিনি কখনো খুব বেশি উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন না। সাত বছর পর টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে মাঠে নামার রোমাঞ্চ কিন্তু সাকিবকে ছুঁতে পারেনি। সংবাদমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে অন্তত চিরাচরিত রূপেই দেখা গেল বাংলাদেশ অধিনায়ককে, ‘সত্যি কথা বলতে, অতটা উত্তেজনা লাগছে না। আমার মতে এবারের চ্যালেঞ্জটা আগের তুলনায় সহজ। কারণ, সাম্প্রতিক দল এখন উন্নতি করছে।’

মাঠের ব্যাপারে সাকিবের এই নির্মোহ ভাব তাঁর তারকার ইমেজের ‘ট্রেডমার্ক’। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এক যুগের অভিজ্ঞতাই তাঁকে এতটা পরিণত করেছে। সাকিবের ব্যাখ্যা, ‘খুব ভালো শুরুর পর সবাইকেই সংগ্রাম করতে হয়। এরপর সবাই উন্নতি করে আবার সংগ্রামও করে। একজন খেলোয়াড় ৫ বছর এসবের মধ্য দিয়ে গেলে সবকিছু তাঁর জন্য সহজ হয়ে যায়।’

সাম্প্রতিক সময়ে খুব একটা ভালো পারফরম্যান্সের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে না বাংলাদেশ। আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজে ভালো করতে পারেননি দলের তিন তরুণ—সৌম্য সরকার, মোসাদ্দেক হোসেন ও সাব্বির রহমান। সাকিব কিন্তু তাঁদের নিয়ে আশাবাদী। এর কারণ হিসেবে শুনিয়ে দিলেন সেই পুরোনো কথাটা, সবাই খুব ভালো শুরুর পর এই অবস্থার মধ্য দিয়ে যায়। পাঁচ বছর এর মধ্য দিয়ে গেলে সব সহজ হয়ে পড়ে।

কিন্তু দলের পেস আক্রমণ নিয়ে সাকিব চিন্তিত। নেতৃত্বভার পাওয়ার পর দলের বোলিং আক্রমণকে টেকসই করতে চান সাকিব। সে জন্য পেস ডিপার্টমেন্টই বেশি ভাবাচ্ছে বাংলাদেশ অধিনায়ককে, ‘আমাদের পেসারদের ঘরে-বাইরে দুই জায়গাতেই সংগ্রাম করতে হয়। সর্বশেষ কোন পেসার এক ইনিংসে ৫ উইকেট নিয়েছে, তা মনে নেই। এই জায়গায় উন্নতি করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’

অ্যান্টিগায় কাল থেকে দ্বিতীয় মেয়াদে টেস্ট অধিনায়কত্ব শুরু হচ্ছে সাকিবের। দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ভালো করার চাপটা থেকেই যাচ্ছে তাঁর ওপর। কারণ, টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তাঁর সর্বশেষ স্মৃতি মধুর। সাকিব এবার পারবেন তো সেই মধুর স্মৃতি ফিরিয়ে আনতে? ক্রিকইনফো অবলম্বনে।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।