আজকের বার্তা | logo

৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৮ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং

ইসি’র কাছে প্রার্থীদের নানা অভিযোগ

প্রকাশিত : জুলাই ১৭, ২০১৮, ০২:১২

ইসি’র কাছে প্রার্থীদের নানা অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বরিশাল সিটি করপোরেশন (বিসিসি) নির্বাচনে প্রচারে বাধা দেয়া, কালো টাকা ছড়ানো, অপপ্রচার, ভয়-ভীতি প্রদর্শনসহ নানা অভিযোগ তুলেছেন প্রতিদ্বন্দ্বী মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা। একে অপরের বিরুদ্ধে তোলা এসব অভিযোগের প্রতিকার না হলে সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে শংকা প্রকাশ করেন তারা। এজন্য নির্বাচন কমিশনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন অধিকাংশ প্রার্থী। গতকাল মঙ্গলবার বিকালে অনুষ্ঠিত বিসিসি নির্বাচন উপলে প্রতিদ্বন্দ্বী মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় প্রার্থীরা এমন আশংকা প্রকাশ করেন। প্রার্থীদের এসব আশংকার বিপরীতে নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার বলেছেন, বরিশালসহ তিন সিটির নির্বাচন বিশ^বাসীসহ সারাদেশের মানুষ পর্যবেণ করছে। এখানে যেকোনো অরাজকতা প্রতিহত করার জন্য পুলিশ ও অন্যান্য আইন শৃংখলা বাহিনীকে সর্বোচ্চ নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তিনি আরো বলেন, ‘‘কেন্দ্রে অবাঞ্ছিত প্রবেশ, ব্যালট ছিনতাই, ব্যালটে জোর করে সিল দেয়া- বরিশালে এসব দেখতে চাই না। আমরা চাই ভোটাররা নির্বিঘেœ কেন্দ্রে গিয়ে পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে নিরাপদে বাড়ি ফিরবেন। আইন-শৃংখলা রার ব্যাপারে আমরা ‘শূন্য সহিষ্ণু’ নীতি গ্রহণ করেছি। কেউ তা অমান্য করলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।” বরিশাল আঞ্চলিক নির্বাচন অফিস এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করে। মতবিনিময় সভায় আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ অভিযোগ করেন, ভোটের মাঠে কোনো কোনো প্রার্থী তার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছেন যে, তিনি নির্বাচিত হলে ইজিবাইক বন্ধ হয়ে যাবে, বিভিন্ন বস্তি থেকে বাসিন্দাদের উচ্ছেদ করা হবে। তিনি এসব অপপ্রচারের প্রতিকার চেয়ে বলেন, ‘‘বিশেষ একজন প্রার্থী আমি প্রধানমন্ত্রীর আত্মীয় বলে ভোট নিয়ে অহেতুক শংকা প্রকাশ করছেন। বরিশালে এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি যা নিয়ে শংকা প্রকাশ করা যায়।” বিএনপির মেয়র প্রার্থী মজিবর রহমান সরোয়ার বলেন, আসন্ন ৩০ জুলাই এর নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বরিশালে নির্বাচনী মাঠে যদি লেভেল প্লেইং ফিল্ড তৈরি করা না হয় তাহলে এ নির্বাচনও খুলনা, গাজীপুরের মতো প্রশ্নবিদ্ধ হবে। সরোয়ার নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে চলার জন্য প্রচার-প্রচারণার ঘাটতির অভিযোগ তুলে বলেন, ‘‘বরিশালে কোথায় বিধি লংঘিত হচ্ছে তা নির্বাচন কমিশনসহ প্রশাসন সবই জানে। অথচ আমাদের বলা হয় একে অপরের বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে।” সরোয়ার বলেন, গাজীপুর ও খুলনা সিটিতে প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচনের পর বরিশালে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা দরকার। তিনি ভোটের আগের রাতে কেন্দ্রে কেন্দ্রে ব্যালট বাক্স না পাঠানোর দাবি জানান। জাতীয় পার্টির প্রার্থী ইকবাল হোসেন তাপস বলেন, খুলনা ও গাজীপুর সিটি নির্বাচনের ভোটাররা মারামারি করেননি। কেন্দ্র দখলও করেননি। যা করেছে প্রশাসন। তাই তিনি বরিশালের নির্বাচন সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানান এখানে সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে। বাসদের মেয়র প্রার্থী ডা: মনীষা চক্রবর্তী বিসিসি নির্বাচনে কালো টাকা ও পেশী শক্তির ব্যবহার হচ্ছে বলে অভিযোগ করে বলেন, বস্তিতে গিয়ে ভোটারদের হুমকি দেয়া হচ্ছে নির্দিষ্ট একটি প্রতীকে ভোট দেয়ার জন্য। অন্যথায় তাদের উচ্ছেদের ভয় দেখানো হচ্ছে। ডা: মনীষা ব্যাপকভাবে আচরণবিধি লংঘনের অভিযোগ তুলে দাবি জানান, বরিশালে একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপে নির্বাচন অনুষ্ঠানের। কমিউনিস্ট পার্টির মেয়র প্রার্থী অ্যাড. আবুল কালাম আজাদ ভোট দিতে পারবেন কি পারবেন না তা নিয়ে জনমনে আশংকার কথা তুলে ধরে বলেন, ‘‘ভোটের মাঠে কালো টাকার ছড়াছড়ি চলছে। খুলনা ও গাজীপুরে মানুষের ভোটাধিকার কেড়ে নেয়া হয়েছে। বরিশালে এমনটা চাই না।” ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মেয়র প্রার্থী ওবাইদুর রহমান মাহবুব বলেন, ‘‘আমরা সুষ্ঠু নির্বাচন চাই। সে জন্য প্রয়োজনীয় পরিবেশ তৈরি করতে হবে।”

অনুষ্ঠানে কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন অ্যাড. মরতুজা আবেদীন, কাউন্সিলর প্রার্থী মীর জাহিদুল কবির, এনায়েত চৌধুরী জামাল, মোঃ আব্দুর রশিদ হাওলাদার, মনিরুজ্জামান খান, মাহবুবুল আলম খান, শহিদ মোঃ আনিছুর রহমান, জাহাঙ্গীর মোল্লা, সংরতি কাউন্সিলর প্রার্থী ফাতেমা রজি, ফাতেমা রহমান, জোসনা বেগম ও শরিফ তসলিমা কালাম পলি।

মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের অভিযোগের জবাবে নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার বলেন, ‘‘বিসিসি নির্বাচনে আইন-শৃংখলা বাহিনীর শিথিলতা কোনোরকম বরদাস্ত করা হবে না। বরিশালসহ তিনি সিটির নির্বাচন কোনোরকম প্রশ্নবিদ্ধ হলে আমরা বিশ^বাসীর কাছে কোনোভাবে মাথা উঁচু করে কথা বলতে পারবো না।” এসময় মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ মাহফুজুর রহমান বলেন, বিসিসি নির্বাচনে পুলিশের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পুলিশবাহিনী নৈতিকতার সাথে পালন করবে। বিসিসির নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মোঃ মজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বরিশালের জেলা প্রশাসক মোঃ হাবিবুর রহমান। বক্তব্য রাখেন ভারপ্রাপ্ত মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ মাহফুজুর রহমান, সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ হেলাল উদ্দিন খান।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।