আজকের বার্তা | logo

৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৭ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং

সমুদ্র সৈকত রক্ষা ও উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন অনিশ্চিত

প্রকাশিত : জুন ২৫, ২০১৮, ০২:৫৮

সমুদ্র সৈকত রক্ষা ও উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন অনিশ্চিত

মেজবাহউদ্দিন মাননু, কলাপাড়া প্রতিনিধি ॥ কুয়াকাটায় লগ্নিকারকসহ পর্যটক এবং দক্ষিণাঞ্চলবাসী ফের শঙ্কায় পড়েছেন। সাগরের ভাঙন রোধে কুয়াকাটা সৈকত রক্ষা প্রকল্প বাস্তবায়ন এবছর অনিশ্চিত হয়ে গেছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রেরিত সৈকত রক্ষা ও উন্নয়ন প্রকল্প পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় থেকে বিস্তারিত সমীক্ষার জন্য ফেরত পাঠানোয় এমন অনিশ্চয়তার শঙ্কা দেখা দিয়েছে। আগামী বছরও এটি বাস্তবায়ন হবে তাও নিশ্চিত করে বলতে পারেনি পানি উন্নয়ন বোর্ডের দায়িত্বশীল বিভাগ। ইতোমধ্যে এ বছরের বর্ষা মৌসুমের প্রথম অমাবস্যার প্রভাবে অস্বাভাবিক জোয়ার তিনদিনে ছয় দফা হানা দেয় সৈকতের বেলাভূমে। প্রায় ১০ ফুট প্র¯’ সৈকত সাগর গিলে খেয়েছে। এখন কুয়াকাটা পৌর এলাকাসহ পর্যটন এলাকার মানুষ ও তাদের সম্পদসহ সকল ধরনের ¯’াপনা রক্ষায় বেড়িবাঁধটিও চরম ঝুঁকিতে রয়েছে। কয়েকটি পয়েন্টে বাঁধের রিভার সাইটের সেøাপসহ মূল বাঁধ সাগরের উত্তাল ঢেউয়ের তা-বে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কুয়াকাটা সৈকত রক্ষা ও উন্নয়ন প্রকল্প তৈরি করে ২০১৭ সালের শেষের দিকে কলাপাড়া পানি উন্নয়ন বোর্ড নির্বাহী প্রকৌশল কার্যালয় থেকে পানি উন্নয়ন বোর্ড ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে অনুমোদনের জন্য পাঠায়। সেখান থেকে পরিকল্পনা কমিশনে পাঠানো হয়। যা অনুমোদন শেষে এবছর এ প্রকল্পের কাজ শুরুর সম্ভাবনা ছিল। সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে এ প্রকল্পের বাস্তবায়নে সম্ভাব্য ব্যয়-বরাদ্দ নির্ধারণ করা হয়েছিল ২১২ কোটি টাকা। কুয়াকাটা সৈকতের শূন্য পয়েন্ট থেকে দুই দিকে পাঁচ কিমি দীর্ঘ সৈকত এলাকা নিয়ে এ প্রকল্পের সম্ভাব্য এলাকা ছিল। পশ্চিম দিকে দেড় কিমি এবং সাড়ে তিন কিমি পুবে সৈকত রক্ষায় এ প্রকল্প বাস্তবায়নের প্রস্তাবনা ছিল। সি ওয়ালটি অব¯’ান ভেদে ২১ মিটার প্র¯’ এবং দুই-আড়াই মিটার উঁচু করার পরিকল্পনা ছিল। উত্তাল ঢেউয়ের তা-ব ঠেকাতে নির্দিষ্ট অ্যালাইনমেন্ট বরাবর সাগরের অন্তত তিন মিটার গভীর তলদেশে জিও টিউব বসানো। যার ফলে পলি জমে বিচের পরিধি আরও বাড়ত। সৈকতের ভাঙন রোধে এবং পূর্বের প্রশস্ততা ফিরিয়ে আনার জন্য এ প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছিল বলে পাউবোসূত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে। কিš‘ প্রকল্পটির অনুমোদন এখনও মেলেনি। ফলে কুয়াকাটার সৌন্দর্যম-িত সৈকতসহ গোটা এলাকা এখন সাগরের উত্তাল ঢেউয়ে বিলীনের শঙ্কায় পড়েছে। উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন লগ্নিকারকসহ ¯’ানীয় ব্যবসায়ীরা। পানি উন্নয়ন বোর্ড কলাপাড়ার নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আবুল খায়ের জানান, ভাঙন প্রতিরোধে ¯’ায়ীভাবে কুয়াকাটা সৈকত রক্ষার জন্য এ প্রকল্প প্রস্তাবনা আকারে পাঠানো হয়েছিল। যা পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় থেকে ফের বিস্তারিত সমীক্ষার জন্য ফেরত পাঠানো হয়েছে। যার জন্য এবছর সাগরের ভাঙন রোধে সৈকত রক্ষা প্রকল্পের কাজ অনিশ্চিত হয়ে গেল। তবে বেড়িবাঁধ নির্মাণ ও মেরামতের কাজ শুরু হয়েছে। এছাড়া জরুরি প্রটেকশনের উদ্যোগ নেয়ার কথা বললেন এই কর্মকর্তা। কিš‘ কবে নাগাদ কাজ শুরু হবে তা নিশ্চিত করতে পারেননি। পটুয়াখালীর জেলা প্রশাসক ও কুয়াকাটা বিচ ম্যানেজমেন্ট কমিটির সভাপতি ড. মোঃ মাছুমুর রহমান জানান, কুয়াকাটা সৈকতে নির্মিত দৃষ্টিনন্দন ট্যুরিজম পার্ক এলাকাসহ পর্যায়ক্রমে সৈকতের বেলাভূমি ঢেউয়ের তোড়ে বিলীন রোধে অন্তত দুই কিমি এলাকায় জরুরি প্রটেকশনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। শীঘ্রই এর কাজ শুরু হবে। সাবেক প্রতিমন্ত্রী ¯’ানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘‘কুয়াকাটার উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকল পদক্ষেপ নিয়েছেন। যার বাস্তবায়ন চলছে। এনিয়ে কারও শঙ্কার কিছুই নেই।’’

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।