আজকের বার্তা | logo

৫ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২০শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং

ভারতেই আত্মগোপনে ‘লাদেন’!

প্রকাশিত : জুন ১০, ২০১৮, ১৫:৪১

ভারতেই আত্মগোপনে ‘লাদেন’!

অনলাইন সংরক্ষণ // ভারতের আসামের বিস্তীর্ণ এলাকায় গত দু’বছর ধরে ত্রাস সৃষ্টি করেছে লাদেন। ২০১৬ সাল থেকে এখনও পর্যন্ত তার হামলায় শিকার হয়েছে অন্তত ৩৭ জন। তবে এই লাদেন কিন্তু আল কায়দা প্রধান ওসামা বিন লাদেন নয়। গোয়ালপাড়ার ফরেস্ট ডিভিশনের একটি দাঁতালের নাম লাদেন। তারই অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকার বাসিন্দারা।

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, লাদেন জুন মাসের এক তারিখ শেষ হামলাটি করে পাটপাড়া পাহাড়তোলি গ্রামে। সেখানে মনোজ হাজং নামে এক ব্যক্তি তুলে আছাড় দিয়ে মেরে ফেলে লাদেন। তার পরেই আতঙ্ক ছড়ায় এলাকায়।

এ ব্যাপারে ওই এলাকার এক বন কর্মকর্তা জানান, ২০১৬ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ৩৭ জনকে লাদেন মেরে ফেলেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। মেঘালয়ের গারো পাহাড় থেকে নেমে এসে গোয়ালপাড়া ফরেস্ট ডিভিশনের মধ্যে কোনো এক জায়গায় আত্মগোপন করে রয়েছে লাদেন।

গোয়ালপাড়ার ডিভিশনাল ফরেস্ট অফিসার এ গোস্বামী জানান, লাদেন বেশির ভাগ হামলা বিকেল বেলা কিংবা রাতের বেলাই করে থাকে। তিনি আরও জানান, ওই এলাকায় এমনিতেই অনেক হাতির দল রয়েছে। তবে সমস্যা অন্য জায়গাতে। এলাকার গ্রামবাসীরা চায় হাতির দলগুলোকে অাসমের দিতে পাঠিয়ে দিতে। তাই জন্য ড্রাম বাজিয়ে, চিৎকার দিয়ে হাতির দলগুলোকে তাড়িয়ে অাসমের দিকে পাঠানোর চেষ্টা করেন গ্রামবাসীরা। কিন্তু এতেই হিতে বিপরীত হয়ে যায়। মাঝে মধ্যে এতে অতিষ্ঠ হয়ে হাতিও পালটা হামলা করে থাকে।

ইতিমধ্যে লাদেনের গতিবিধি উপর নজর রাখার চেষ্টা চলছে বলে জানা গেছে। সাধারণত কোনো হামলার ১০-১৫ দিন পর কোনো খোঁজ পাওয়া যায় না লাদেনের। এ গোস্বামী জানান, হামলাগুলো সাধারণত মাসের শেষের দিকেই হয়ে থাকে।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।