আজকের বার্তা | logo

৯ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং

বরিশালে ইমামের মাথায় মল ঢেলে লাঞ্চিত, মূল আসামীর ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন

প্রকাশিত : জুন ২৬, ২০১৮, ০০:০০

বরিশালে ইমামের মাথায় মল ঢেলে লাঞ্চিত, মূল আসামীর ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন

অনলাইন সংরক্ষণ  // বাকেরগঞ্জ ইমামকে লাঞ্চিত করার মামলার মূল আসামী জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে ৭ দিন রিমান্ড চেয়েছে পুলিশ। রবিবার (২৪ জুন) তাকে আদালতে সোপর্দ করার পাশাপাশি এ রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বাকেরগঞ্জ থানার ওসি তদন্ত আব্দুল হক।

২০ জুন বুধবার রাতে পাবনা জেলার বেড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। জাহাঙ্গীর খন্দকার উপজলোর লাছনাবাদ এলাকার মৃত ইসতেহার খন্দকারের ছেলে। বরিশালের পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম জানান, ইমামের মাথায় মল-মূত্র ঢালার ঘটনার পর থেকেই মামলার প্রধান অভিযুক্ত জাহাঙ্গীর খন্দকার এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়। তিনি উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকায় আত্মগোপনে ছিলেন।

গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে তাকে বুধবার রাতে পাবনা জেলার বেড়া এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। মামলার বাদী কাঁঠালিয়া ইসলামিয়া দারুস সুন্নাহ দাখিল মাদরাসার সুপার ও নেছারবাগ বায়তুল আমান জামে মসজিদের ইমাম আবু হানিফা। গত ফেব্রুয়ারি মাসে বাকেরগঞ্জ উপজেলার রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের কাঁঠালিয়া ইসলামিয়া দারুস সুনাহ দাখিল মাদরাসা পরিচালনা কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

নির্বাচন সভাপতি পদ প্রার্থী হন এইচ এম মজিবর ও জাহাঙ্গীর খন্দকার। নির্বাচনে বিজয়ী হন এইচ এম মজিবর রহমান। পাশাপাশি সভাপতি প্রার্থী জাহাঙ্গীর খন্দকার হেরে যান। এ নিয়ে আবু হানিফার সঙ্গে জাহাঙ্গীর খন্দকারের দ্বন্দ্ব শুরু হয়। এতে জাহাঙ্গীর খন্দকার ও তার সহযোগীরা বিভিন্ন সময় ইমাম আবু হানিফাকে হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছিল। গত ১১ মে ফজরের নামাজের পরে ইমাম আবু হানিফা মসজিদ থেকে বের হলে তার পথরোধ করে পরাজিত প্রার্থী ও তার লোকজন।

এ নিয়ে ইমামের সঙ্গে তাদের কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায় পরাজিত প্রার্থী জাহাঙ্গীর খন্দকারের এক সহযোগী ইমাম আবু হানিফার হাত ধরে ফেলে। এ সময় ইমন নামে তার আরেক সহযোগী হাঁড়িভর্তি মল-মূত্র এনে ইমাম আবু হানিফার মাথায় ঢেলে দেয়। সেই সঙ্গে উল্লাসে ফেটে পড়ে দৃশ্যটি ভিডিও করে ফেসবুক ছেড়ে দেয় তারা। সেই ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার পরে বিষয়টি নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়।

প্রতিবাদের ঝড় বইতে শুরু করে সর্বত্র। এ ঘটনায় গত ১৩ মে ইমাম আবু হানিফা বাদী হয়ে ৮ জনের নাম উল্লেখ ও আরও ৫-৬ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে বাকেরগঞ্জ থানায় মামলা করেন। মামলার আসামিরা হল, জাহাঙ্গীর খন্দকার, জাকির হাসন জাকারিয়া, মাসুম সরদার, এনামুল হাওলাদার, রজাউল খান, মিনজু, জাহাঙ্গীর খন্দকার, সাহেল খন্দকার ও মিরাজ হাসান।

মামলা দায়েরের পর অভিযান চালিয় আসামি ফরহাদ হাসন, মা. মিনজু, বল্লাল হাসন ও সাহেল খন্দকারকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এর মধ্যে বুধবার রাতে প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করা হয়। তবে মামলার অন্যতম আসামি জাকির হাসান জাকারিয়া, মাসুম সরদার, এনামুল হাওলাদার ও রেজাউল খান এখনও ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়েছেন।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।