আজকের বার্তা | logo

৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২০শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং

মুলাদীতে পুলিশের ধাওয়ায় নদীতে পড়ে যাওয়া ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত : মে ১১, ২০১৮, ০০:৩৫

মুলাদীতে পুলিশের ধাওয়ায় নদীতে পড়ে যাওয়া ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার

মুলাদী প্রতিনিধি ॥ মুলাদীতে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে নদীতে পড়ে যাওয়া ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা আড়াইটার দিকে উপজেলার পৌর সদরের নয়াভাঙনী নদীর পশ্চিম চরপত্তনীভাঙা এলাকা থেকে পুলিশ ব্যবসায়ী জামাল খানের লাশ উদ্ধার করে। জামাল খান মুলাদী পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের মোয়াজ্জেম হোসেন খানের পুত্র। তিনি মুলাদী বন্দরে কাঠের ব্যবসা করেন। গত বুধবার বেলা ২টার দিকে পশ্চিম চরপত্তনীভাঙা গ্রামের মহসিন দর্জির বাড়ির দক্ষিণ পার্শ্বে অবস্থানের সময় পুলিশের ধাওয়া খেয়ে নদীতে পড়ে যান তিনি। স্থানীয়দের অভিযোগ, পুলিশের অবহেলায় জামাল খানের মৃত্যু হয়েছে। নিহতের স্বজনরা জানান, বুধবার সকাল ৯টার দিকে জামাল খান গাছ কেনার জন্য বেশ কিছু টাকা নিয়ে চরপত্তনীভাঙা এলাকায় যান। বেলা দেড়টার দিকে পুলিশের কাছে সংবাদ আসে পশ্চিম চরপত্তনীভাঙা গ্রামের করিম দর্জির বাড়িতে জুয়া খেলা চলছে। সংবাদ পেয়ে মুলাদী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সাইদ আহমেদ তালুকদার, এসআই ফকর উদ্দীন, এসআই মনির হোসেনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ চারদিক দিয়ে ঘিরে ফেলে এবং জুয়াড়িদের টাকা-পয়সা হাতিয়ে নিয়ে এলোপাতাড়ি লাঠিচার্জ শুরু করে। পুলিশের লাঠিচার্জের সময় বেশ কয়েকজন জুয়াড়ি নদীতে লাফিয়ে পড়েন। ওই সময় ব্যবসায়ী জামাল খান পুলিশের লাঠিচার্জ থেকে নিজেকে রক্ষা করতে দৌড়ে একপর্যায়ে নদীতে পড়ে যান। নদীতে পড়ে যাওয়া সবাই পাড়ে উঠতে পারলেও জামাল খান নিখোঁজ হন। স্থানীয়রা নিখোঁজের বিষয়টি পুলিশকে জানিয়ে উদ্ধারের অনুরোধ করলেও পুলিশ কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ না করে দুজনকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসে। ঘটনার প্রায় ৩ ঘণ্টা পরে পুলিশ ব্যবসায়ী নিখোঁজের বিষয়টি এড়িয়ে ২ জনকে গ্রেপ্তারের বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবহিত করে ব্যবস্থা গ্রহণের আবেদন জানায়। সময় ক্ষেপণের বিষয়টি বুঝতে পেরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাকির হোসেন পুলিশকে নিয়মিত মামলা করার নির্দেশ দেয়। ঘটনার প্রায় ২৫ ঘণ্টা পরে নয়াভাঙনী নদীতে ব্যবসায়ী জামাল খানের লাশ ভেসে উঠলে স্থানীয়রা মুলাদী থানা পুলিশকে সংবাদ দেন। পুলিশ গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা আড়াইটার দিকে লাশ উদ্ধার করে। এ ব্যাপারে মুলাদী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাইদ আহমেদ তালুকদার জানান, বুধবার ঘটনার সময় অনেকেই নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়েন। ওই সময় জামাল খানের পানিতে ডুবে যাওয়ার বিষয়টি পুলিশের জানা ছিলো না। অপরদিকে স্থানীয়রা অভিযোগ করে জানান, পুলিশের অবহেলায়ই জামাল খানের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার দুপুরে পুলিশ এলোপাতাড়ি লাঠিচার্জ না করলে কিংবা নদীতে পড়ে যাওয়ার পর ব্যবসায়ীকে উদ্ধারের ব্যবস্থা গ্রহণ করলে হয়ত জামাল খানকে বাঁচানো সম্ভব হতো। এ ঘটনায় মুলাদী বন্দরের ব্যবসায়ী ও স্থানীয়রা তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে জামাল খানের মৃত্যু বিষয়ে তদন্তের দাবি জানিয়েছেন।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।