আজকের বার্তা | logo

১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং

বরিশালে এসএসসিতে পাসের হার এবারও কমেছে: বেড়েছে জিপিএ-৫

প্রকাশিত : মে ০৬, ২০১৮, ২৩:৪৬

বরিশালে এসএসসিতে পাসের হার এবারও কমেছে: বেড়েছে জিপিএ-৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ এসএসসি পরীায় বরিশাল শিা বোর্ডে নিম্নমুখী পাসের হার অব্যাহত রয়েছে। ৪ বছর আগে ২০১৫ সাল থেকে এ বোর্ডে পাসের হার কমা শুরু হয়। এরপর থেকে প্রতিবছরই আগের বছরের চেয়ে পাসের হার কমছে। এরই ধারাবাহিকতায় চলতি বছর (২০১৮) সালে বোর্ডে পাসের হার হলো ৭৭ দশমিক ১১। গতবছর (২০১৭) ছিল ৭৭ দশমিক ২৪। তবে এবছর জিপিএ-৫ প্রাপ্তির সংখ্যা বেড়েছে গতবছরের চেয়ে ১ হাজার ১৭৪টি। এবছর বরিশাল বোর্ডে জিপিএ-৫ পেয়ে পাস করেছে ৩ হাজার ৪৬২ জন। গতবছর এ সংখ্যা ছিল ২ হাজার ২৮৮ জন। গতকাল রোববার বেলা ১১টায় চলতি বছরের পরীার ফল ঘোষণা করেন পরীা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মো. আনোয়ারুল আজিম। এসময় তার কাছে জানতে চাওয়া হয় গত ৪ বছর ধরে পাসের হার ক্রমশ নিম্নমুখী হওয়ার কারণ। পরীা নিয়ন্ত্রক জানালেন, গত কয়েকবছর যাবত নিয়ম মেনে উত্তরপত্র মূল্যায়ন করার জন্য পরীকদের প্রতি কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে। ফলে আগের মতো উত্তরপত্রে কম লিখে পরীায় পাসের সুযোগ নেই। স্কুলের টেস্ট পরীায় ফল খারাপ হলে তাদেরকে ফরম ফিলাপের সুযোগ দেয়া হয় না। এ ছাড়া এবছরের পরীায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের গুজবে পরীার্থীরা মানসিকভাবে তিগ্রস্ত হয়েছে। এসব কারণে পাসের হার কমতে পারে। পরীা নিয়ন্ত্রক বলেন, এবছর ইংরেজি ও গণিত বিষয়ে ফেলের হার বেশি হওয়ায় মোট পাসের হারে এর প্রভাব পড়েছে। গ্রামাঞ্চলের শিাপ্রতিষ্ঠানে দ শিকের অভাবে শ্রেণিকে পাঠদানে ঘাটতি থাকায় এ দুটি কারণে পাসের হার কম হওয়ার আশংকা করছেন তিনি। বরিশাল বোর্ডের ফলাফল থেকে জানা গেছে, উত্তীর্ণ পরীার্থীদের মধ্যে জিপিএ ৪-৫ পেয়েছে ১৬ হাজার ৯৫৬ জন, জিপিএ ৩.৫-৪ পেয়েছে ১৬ হাজার ৯৪১ জন, জিপিএ ৩-৩.৫ পেয়েছে ২০ হাজার ৯৯১ জন, জিপিএ ২-৩ পেয়েছে ২০ হাজার ৮০৯ জন এবং জিপিএ ১-২ পেয়েছে ৩৬১ জন। বিজ্ঞান বিভাগে সবচেয়ে বেশি পাস করেছে। এ বিভাগে ২৭ হাজার ৪১ জনের মধ্যে পাস করেছে ২৪ হাজার ২৫৫ জন। পাসের হার ৮৯ দশমিক ৭০। মানবিক বিভাগে ৪৭ হাজার ৩৭৪ জনের মধ্যে পাস করেছে ৩২ হাজার ৫৪১ জন। পাসের হার ৬৮ দশমিক ৬৯। ব্যবসায় শিা বিভাগে ২৮ হাজার ৭০৯ জনের মধ্যে পাস করেছে ২২ হাজার ৭২৪ জন। পাসের হার ৭৯ দশমিক ১৫।

বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের তিন বিদ্যালয়ে কেউ পাস করেনি:

২০১৮ সালের এসএসসি পরীায় বরিশাল বোর্ডের ৩টি বিদ্যালয় থেকে একজন পরীার্থীও পাস করতে পারেনি। এ দুটি বিদ্যালয় থেকে মোট ২৯ জন এসএসসি পরীায় অংশ নিয়েছিল। অন্যদিকে শতভাগ পরীার্থী পাস করেছে বোর্ডের ৫০টি বিদ্যালয়ে। পাসের হারে শূন্য বিদ্যালয় তিনটি হলো- ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার ইসলামপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও ভেরনবাড়িয়া সিএসইউ বালিকা বিদ্যালয় এবং পটুয়াখালীর দুমকি উপজেলার উত্তর মৌকরণ এএইচ মাধ্যমিক বিদ্যালয়। ইসলামপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ১৭ জন, ভেরনবাড়িয়া সিএসইউ বালিকা বিদ্যালয় থেকে ৫ জন ও উত্তর মৌকরণ এএইচ মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ৭ জন পরীায় অংশ নিয়েছিল। এ তিন বিদ্যালয়ের ফল বিপর্যয়ের কারণ প্রসঙ্গে বরিশাল বোর্ডের পরীা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মো. আনোয়ারুল আজিম বলেন, বিদ্যালয়গুলোর কর্তৃপকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হবে। এর জবাব পাওয়ার পর প্রতিষ্ঠান তিনটির ব্যাপারে বোর্ড কর্তৃপ সিদ্ধান্ত নেবে।

পাসের হারে শীর্ষে ভোলা জেলা:

বরিশাল বোর্ডের আওতাধীন ৬ জেলায় জেলাভিত্তিক ফলাফলে পাসের হারে শীর্ষস্থানে রয়েছে ভোলা জেলা। দ্বিতীয় থেকে ষষ্ঠ অবস্থানে রয়েছে যথাক্রমে বরগুনা, পিরোজপুর, বরিশাল, পটুয়াখালী ও ঝালকাঠি। এবছর সর্বনিম্নে থাকা ঝালকাঠি গতবছর ছিল সর্বশীর্ষে। আর গতবছরের সর্বনিম্ন স্থান থেকে এবার বোর্ড সেরা হয়েছে ভোলা। শীর্ষে থাকা ভোলা জেলায় পাসের হার হলো ৮৩ দশমিক ০২। এ জেলায় বিদ্যালয় হচ্ছে ১৯৩টি। জেলা থেকে ১৫ হাজার ৬১৭ জন পরীার্থীর মধ্যে পাস করেছে ১২ হাজার ৯৬৫ জন। দ্বিতীয় স্থান অর্জনকারী বরগুনা জেলায় পাসের হার হলো ৮১ দশমিক ৭০। এ জেলার ১৫১টি বিদ্যালয় থেকে ১১ হাজার ২৩৮ জন পরীায় অংশ নিয়ে পাস করেছে ৯ হাজার ১৮২ জন। পিরোজপুরের ২৪৫টি বিদ্যালয় থেকে ১২ হাজার ৭০০ জন পরীায় অংশ নিয়ে পাস করেছে ১০ হাজার ২৫২ জন। তৃতীয় স্থানে থাকা এ জেলার পাসের হার হচ্ছে ৮০ দশমিক ৭২। ৭৬ দশমিক ৯৫ ভাগ পরীার্থী পাস করে বরিশাল জেলা বোর্ডে চতুর্থ হয়েছে। এ জেলার ৪১৩টি বিদ্যালয় থেকে ৩৫ হাজার ২৪১ জন পরীায় অংশ নিয়ে পাস করেছে ২৭ হাজার ১১৭ জন। পাসের হার ৭৬ দশমিক ৯৫। পটুয়াখালী জেলার ২৫৩ বিদ্যালয় থেকে ১৯ হাজার ১৫৪ জন পরীায় অংশ নিয়ে পাস করেছে ১৪ হাজার ২৯৩ জন। পাসের হার ৭৪ দশমিক ৬২। পটুয়াখালী জেলা বোর্ডে পঞ্চম স্থানে রয়েছে। সর্বশেষ ষষ্ঠ স্থান অর্জনকারী ঝালকাঠি জেলায় পাসের হার ৬২ দশমিক ২৫। এ জেলায় ১৭০টি বিদ্যালয় থেকে ৯ হাজার ১৭৪ জন পরীায় অংশ নিয়ে পাস করেছে ৫ হাজার ৭১১ জন।

বরিশাল বোর্ডে মেয়েরা এগিয়ে:

ছেলে পরীার্থীরা সংখ্যায় বেশি। তবে পাসের হারসহ সব েেত্র এগিয়ে থাকে মেয়েরা। বিগত কয়েক বছর যাবত বরিশাল শিা বোর্ডের সবগুলো পাবলিক পরীার ফলাফলে এমনটা ঘটছে। এবারও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি চলতি বছরের এসএসসি পরীায়। এবছর মোট পাসের হারে মেয়ে পরীার্থীরা ছেলেদের চেয়ে দশমিক ৩ দশমিক ৭৯ ভাগ এগিয়ে। অথচ মেয়ে পরীার্থীর সংখ্যা ছিল ছেলেদের চেয়ে ৭০০ জন কম। বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, এবার মোট ছেলে পরীার্থী ছিল ৫১ হাজার ৯১২ জন। তার মধ্যে পাস করেছে ৩৯ হাজার ৫১ জন। ছেলেদের পাসের হার ৭৫ দশমিক ২৩। মেয়ে পরীার্থী ছিল ৫১ হাজার ২১২ জন। পাস করেছে ৪০ হাজার ৪৬৯ জন। মেয়েদের পাসের হার ৭৯ দশমিক ০২। ছেলে পরীার্থীদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ৬৬১ জন এবং মেয়ে পরীার্থীদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ৮০১ জন। বিজ্ঞান বিভাগে ছেলেদের পাসের হার ৮৮ দশমিক ৫৯ ও মেয়েদের পাসের হার ৯১, মানবিক বিভাগে ছেলেদের পাসের হার ৬৩ দশমিক ৬৬ ও মেয়েদের পাসের হার ৭২ দশমিক ২০, ব্যবসায় শিা বিভাগে ছেলেদের পাসের হার ৭৬ দশমিক ৯০ ও মেয়েদের পাসের হার ৮২ দশমিক ৮৪ ভাগ।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।