আজকের বার্তা | logo

৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২১শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং

সাধারণ বন্দীদের একটা করে বালিশ দেয়া হবে: কারা মহাপরিদর্শক

প্রকাশিত : এপ্রিল ১৯, ২০১৮, ২৩:০৭

সাধারণ বন্দীদের একটা করে বালিশ দেয়া হবে: কারা মহাপরিদর্শক

 

কারা মহাপরিদর্শক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দীন বলেছেন, সাধারণ বন্দীদের বালিশ দেয়া হবে। বর্তমানে তাদের তিনটি করে কম্বল দেয়া হলেও বালিশ দেয়া হয় না। সেখান থেকে একটি করে কম্বল কমিয়ে তার পরিবর্তে প্রতি বন্দীকে একটা করে বালিশ দেয়া হবে। এর টেন্ডারের কাজ চলছে। আগামী অর্থবছরে এটা দিতে পারব।

আজ গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারা কমপ্লেক্স প্যারেড গ্রাউন্ডে ৫১তম ব্যাচ কারারক্ষী বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সের রিক্রুটদের শপথ গ্রহণ ও সমাপনী কুজকাওয়াজ অনুষ্ঠানে এইসব কথা বলেন তিনি।

শুধু ভিআইপি ও অসুস্থ বন্দীদের বেলায় কম্বলের সঙ্গে বালিশ দেয়া হলেও সাধারণ বন্দীদের কোন বালিশ দেয়া হয় না। তাদের শুধু তিনটি করে কম্বল দেয়া হয়। কিন্তু আগামী অর্থবছর থেকে সাধারণ বন্দীদের একটি কম্বল কমিয়ে দুইটি কম্বল ও একটি করে বালিশ দেয়া হবে।

কারা মহাপরিদর্শক আরও বলেন, বিপথগামী মানুষদের চারিত্রিক সংশোধনের লক্ষ্যে দেশের কারাগারসমূহকে কল্যাণমুখী প্রতিষ্ঠান ও সংশোধনাগারে রূপান্তরিত করার প্রক্রিয়া চলমান আছে। কারা কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের দক্ষতা বৃদ্ধির কাজ চলছে। কারা বন্দীদেরও প্রশিক্ষণ দানের মাধ্যেমে দক্ষতা বৃদ্ধির করা হচ্ছে। আমাদের কারাগারের কর্মকর্তা-কর্মচারিরা বাইরের বিভিন্ন দেশের কারাগারগুলো পরিদর্শন করছেন এবং তাদের থেকে অভিজ্ঞতা অর্জন করে সে অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে আমরা আমাদের কারাগারগুলোকে আরো উন্নত পর্যায়ে নিয়ে যাচ্ছি। আগামী মে ও জুন মাসে দেশের বাইরে বিভিন্ন কারাগারের পরিচালনা ও পুনর্বাসন প্রশিক্ষণ প্রক্রিয়াগুলো স্বচক্ষে দেখে অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য বিদেশ গমনের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন আছে। বাংলাদেশ কারাগারের মোট ৭২ জন কারাকর্মকর্তা-কর্মচারি বিদেশ গমন করবেন। তারা মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ভিয়েতনাম, কোরিয়াসহ আটটি দেশে যাবেন তারা। এ ভ্রমণের মাধ্যমে অভিজ্ঞতা অর্জনে মাধ্যমে আমরা আরো এক ধাপ এগিয়ে যাব।

কারা মহাপরিদর্শক দুপুরে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২-এ চত্বরে বন্দী পুণর্বাসন প্রশিক্ষণের জন্য স্থাপিত এমব্রয়ডারি ও মোজা তৈরি কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। এসময় অতিরিক্ত কারা মহাপরিদর্শক কর্ণেল মো. ইকবাল হাসান, কারা উপ-মহাপরিদর্শক মো. বজলুর রশীদ, গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সঞ্জীব কুমার দেবনাথ, কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-১ এর সিনিয়র জেল সুপার সুব্রত কুমার বালা, কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২-এর জেল সুপার প্রশান্ত কুমার বণিক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে কারাচত্বরে মহপরিচালক ৫১তম ব্যাচের কারারক্ষীদের বুনিয়াদি প্রশিক্ষণের সমাপনী কুজকাওয়াজ পরিদর্শন করেন এবং নতুন তিন কারারক্ষীকে পুরস্কৃত করেন। তাদের মধ্যে সর্ব বিষয়ে প্রথম স্থান অধিকার করেন যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের কারারক্ষী মো. আল আমিন মল্লিক, দ্বিতীয় হন চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের কারারক্ষী মো. সাব্বির হোসেন এবং বেষ্ট ফায়ারারের পুরস্কার পান নেত্রকোনা জেলা কারাগারের মো. কিবরিয়া হাসান রবিন। ৫১তম ব্যাচে ৩১৮ জন কারারক্ষী প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন।

কারা মহাপরিদর্শক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দীন বলেছেন, সাধারণ বন্দীদের বালিশ দেয়া হবে। বর্তমানে তাদের তিনটি করে কম্বল দেয়া হলেও বালিশ দেয়া হয় না। সেখান থেকে একটি করে কম্বল কমিয়ে তার পরিবর্তে প্রতি বন্দীকে একটা করে বালিশ দেয়া হবে। এর টেন্ডারের কাজ চলছে। আগামী অর্থবছরে এটা দিতে পারব।

আজ গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারা কমপ্লেক্স প্যারেড গ্রাউন্ডে ৫১তম ব্যাচ কারারক্ষী বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সের রিক্রুটদের শপথ গ্রহণ ও সমাপনী কুজকাওয়াজ অনুষ্ঠানে এইসব কথা বলেন তিনি।

শুধু ভিআইপি ও অসুস্থ বন্দীদের বেলায় কম্বলের সঙ্গে বালিশ দেয়া হলেও সাধারণ বন্দীদের কোন বালিশ দেয়া হয় না। তাদের শুধু তিনটি করে কম্বল দেয়া হয়। কিন্তু আগামী অর্থবছর থেকে সাধারণ বন্দীদের একটি কম্বল কমিয়ে দুইটি কম্বল ও একটি করে বালিশ দেয়া হবে।

কারা মহাপরিদর্শক আরও বলেন, বিপথগামী মানুষদের চারিত্রিক সংশোধনের লক্ষ্যে দেশের কারাগারসমূহকে কল্যাণমুখী প্রতিষ্ঠান ও সংশোধনাগারে রূপান্তরিত করার প্রক্রিয়া চলমান আছে। কারা কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের দক্ষতা বৃদ্ধির কাজ চলছে। কারা বন্দীদেরও প্রশিক্ষণ দানের মাধ্যেমে দক্ষতা বৃদ্ধির করা হচ্ছে। আমাদের কারাগারের কর্মকর্তা-কর্মচারিরা বাইরের বিভিন্ন দেশের কারাগারগুলো পরিদর্শন করছেন এবং তাদের থেকে অভিজ্ঞতা অর্জন করে সে অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে আমরা আমাদের কারাগারগুলোকে আরো উন্নত পর্যায়ে নিয়ে যাচ্ছি। আগামী মে ও জুন মাসে দেশের বাইরে বিভিন্ন কারাগারের পরিচালনা ও পুনর্বাসন প্রশিক্ষণ প্রক্রিয়াগুলো স্বচক্ষে দেখে অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য বিদেশ গমনের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন আছে। বাংলাদেশ কারাগারের মোট ৭২ জন কারাকর্মকর্তা-কর্মচারি বিদেশ গমন করবেন। তারা মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ভিয়েতনাম, কোরিয়াসহ আটটি দেশে যাবেন তারা। এ ভ্রমণের মাধ্যমে অভিজ্ঞতা অর্জনে মাধ্যমে আমরা আরো এক ধাপ এগিয়ে যাব।

কারা মহাপরিদর্শক দুপুরে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২-এ চত্বরে বন্দী পুণর্বাসন প্রশিক্ষণের জন্য স্থাপিত এমব্রয়ডারি ও মোজা তৈরি কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। এসময় অতিরিক্ত কারা মহাপরিদর্শক কর্ণেল মো. ইকবাল হাসান, কারা উপ-মহাপরিদর্শক মো. বজলুর রশীদ, গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সঞ্জীব কুমার দেবনাথ, কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-১ এর সিনিয়র জেল সুপার সুব্রত কুমার বালা, কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২-এর জেল সুপার প্রশান্ত কুমার বণিক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে কারাচত্বরে মহপরিচালক ৫১তম ব্যাচের কারারক্ষীদের বুনিয়াদি প্রশিক্ষণের সমাপনী কুজকাওয়াজ পরিদর্শন করেন এবং নতুন তিন কারারক্ষীকে পুরস্কৃত করেন। তাদের মধ্যে সর্ব বিষয়ে প্রথম স্থান অধিকার করেন যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের কারারক্ষী মো. আল আমিন মল্লিক, দ্বিতীয় হন চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের কারারক্ষী মো. সাব্বির হোসেন এবং বেষ্ট ফায়ারারের পুরস্কার পান নেত্রকোনা জেলা কারাগারের মো. কিবরিয়া হাসান রবিন। ৫১তম ব্যাচে ৩১৮ জন কারারক্ষী প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন।

 

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।