আজকের বার্তা | logo

৬ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং

ছয় র‌্যাব সদস্যের বিরুদ্ধে কলেজ ছাত্র লিমন হত্যা চেষ্টা মামলা চলবে

প্রকাশিত : এপ্রিল ০২, ২০১৮, ০১:২০

ছয় র‌্যাব সদস্যের বিরুদ্ধে কলেজ ছাত্র লিমন হত্যা চেষ্টা মামলা চলবে

ঝালকাঠি প্রতিনিধি ॥ র‌্যাব-৮ এর ৬ সদস্যের বিরুদ্ধে ঝালকাঠির রাজাপুরের কলেজ ছাত্র লিমন হোসেন হত্যাচেষ্টা মামলা চলবে বলে আদেশ দিয়েছেন ঝালকাঠির অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত। গতকাল রোববার দুপুরে ঝালকাঠির অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ এসকেএম  তোফায়েল হাসান কলেজ ছাত্র লিমনের মা হেনোয়ারা বেগমের দায়ের করা একটি রিভিশন আবেদন মঞ্জুর করেন। রিভিশন মঞ্জুর  হওয়ায় বরিশাল র‌্যাব-৮ এর তৎকালীন উপসহকারী পরিচালক (ডিএডি) লুৎফর রহমানসহ ৬ র‌্যাব সদস্যের বিরুদ্ধে লিমন হত্যাচেষ্টা মামলাটি পুনরুজ্জীবিত হল। ২০১৩ সালের ১৮ মার্চ হেনোয়রা বেগম ঝালকাঠির জেলা ও দায়রা জজ আদালতে রিভিশনটি দায়ের করেছিলেন। দীর্ঘ ৫ বছর ১৫ দিন পর রিভিশন মঞ্জুর করা হল। ৫ বছরে ৪২ বার এ রিভিশনের শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। ৫ জন জেলা ও দায়রা জজ এবং ২ জন অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ রিভিশনের শুনানি গ্রহণ করেন। সপ্তম বিচারক এসকেএম তোফায়েল হাসান গতকাল রিভিশনের সর্বশেষ শুনানি গ্রহণ করে মঞ্জুরের আদেশ দেন। লিমনের মায়ের আইনজীবী মো. আককাস সিকদারের সাথে কথা বলে এবং রিভিশনের নথি পর্যবেক্ষণে জানা যায়, ২০১১ সালের ২৩ মার্চ ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার সাতুরিয়া গ্রামের বাড়ির কাছের মাঠে গরু আনতে গিয়ে হতদরিদ্র কলেজছাত্র লিমন হোসেন র‌্যাব সদস্যদের কর্তৃক গুলিবিদ্ধ হন। গুলিবিদ্ধ লিমনকে সন্ত্রাসী সাজিয়ে র‌্যাবের ডিএডি লুৎফর রহমান বাদী হয়ে লিমন ও শীর্ষ সন্ত্রাসী মোরসেদ জমাদ্দার এবং তার সহযোগীসহ ৮ জনের নামে দুটি মামলা দায়ের করেন। এর একটি অস্ত্র আইনে এবং অপরটি সরকারিকাজে বাধা দানের অভিযোগে। গুরুতর আহত লিমনকে ভর্তি করা হয় বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে। সেখান থেকে নেয়া হয় ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে। ২০১১ সালের ২৭ মার্চ যথাযথ চিকিৎসার অভাবে লিমনের বাম পা হাঁটু থেকে কেটে ফেলা হয়। এ ঘটনায় লিমনের মা হেনোয়ারা বেগম বাদী হয়ে বরিশাল র‌্যাব-৮ এর ৬ সদস্যের বিরুদ্ধে ছেলে লিমনকে গুলি করে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে ২০১১ সালের ১০ এপ্রিল ঝালকাঠির জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম নুসরাত জাহানের আদালতে একটি নালিশী মামলা দায়ের করেন। আদালতের নির্দেশের ১৬ দিন পর ২৬ এপ্রিল রাজাপুর থানায় র‌্যাবের ডিএডি লুৎফর রহমানসহ ৬ জনের নামে মামলাটি রেকর্ড করা হয়। অন্য আসামিরা হলেন- কর্পোঃ মাজহারুল ইসলাম, কনস্টেবল আঃআজিজ, নায়েক মুক্তাদির হোসেন, সৈনিক শ্রী প্রহল্ল্াদ চন্দ্র এবং সৈনিক কার্তিক কুমার বিশ্বাস। পুলিশ ওই মামলায় ২০১২ সালের ১৪ আগস্ট র‌্যাব সদস্যদের নির্দোষ উল্লেখ করে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করে। লিমনের মা হেনোয়রা বেগম পুলিশের চূড়ান্ত প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ২০১২ সালের ৩০ আগস্ট নারাজী দাখিল করেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে ২০১৩ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি নারাজী আবেদন  খারিজ  করে দেন সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. শাহীদুল ইসলাম। এ আদেশের বিরুদ্ধে ২০১৩ সালের ১৮ মার্চ ঝালকাঠি জেলা ও দায়রা জজ আদালতে রিভিশন আবেদন করেন লিমনের মা। ২০১৬ সালের ৯ আগস্ট পর্যন্ত ৫ জন জেলা ও দায়রা জজ ২৬ বার রিভিশনের শুনানি গ্রহণ করেন এবং কোনো আদেশ না দিয়ে অধিকতর শুনানির জন্য অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে প্রেরণ করেন। ২০১৬ সালের ২২ আগস্ট থেকে গতকাল ১ এপ্রিল ২০১৮ পর্যন্ত অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে ১৬ বার শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল ৪২ তম শুনানি শেষে আদালত র‌্যাবের বিরুদ্ধে দায়ের করা রিভিশন আবেদন মঞ্জুর করে আদেশ দিলেন।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।