আজকের বার্তা | logo

১০ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২২শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং

বরিশালে হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড, দুইজনের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত : মার্চ ০৭, ২০১৮, ২২:২৮

বরিশালে হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড, দুইজনের যাবজ্জীবন

বরিশালের গৌরনদীর আলোচিত ঘটনা খাদেম সরদার হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড এবং দুইজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান করেছে আদালত। আজ বুধবার বরিশালের জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক সৈয়দ এনায়েত হোসেন এ রায় প্রদান করেন। একই সাথে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় মামলার বাকি ৯ আসামিকে বেকসুর খালাস প্রদান করা হয়েছে।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হলেন- উপজেলার নন্দনপট্টি এলাকার মৃত সফিজউদ্দিন মৃধার ছেলে নান্নু মৃধা (৪০)। এছাড়া যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- নান্নু মৃধার ভাই সেন্টু মৃধা (৩৫) ও উত্তর বাটাজোর এলাকার ফানুজ মৃধার ছেলে আলাম মৃধা (৩৭)। রায় ঘোষণার সময় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি সেন্টু মৃধা আদালতে অনুপস্থিত ছিল।

এ ব্যাপারে আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট গিয়াস উদ্দিন কাবুল জানান, আসামিদের সাথে দীর্ঘদিন ধরে নন্দনপট্টি এলাকার বাসিন্দা খাদেম সরদারের জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে আসামিরা বিভিন্ন সময় খাদেম সরদার ও তার ছেলেদের হত্যার হুমকি দিয়ে আসছিল। এতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা তাদের সমাধানের জন্য শালিস বৈঠকের সিদ্ধান্ত নেয়। সে অনুযায়ী ২০১৪ সালের ১৭ অক্টোবর দুই পক্ষকে নিয়ে শালিস বৈঠকের কথা জানানো হয়। কিন্তু শালিস বসার আগেই ১৩ অক্টোবর তাদের ওপর হামলার পরিকল্পনা করে আসামিরা।

ওই দিন রাতে খাদেম সরদার তার দুই ছেলে শাহ আলম সরদার ও আসলাম সরদারকে নিয়ে বাড়ির পার্শ্ববর্তী মসজিদে এশার নামাজ পরে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় আসামিরা তাদের দলবল নিয়ে হামলা চালায়। এতে পার্শ্ববর্তী খালে ঝাপ দিয়ে ছেলে শাহ আলম সরদার প্রাণে রক্ষা পেলেও আসামিরা খাদেম সরদার ও তার ছেলে আসলাম সরদারকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। এক পর্যায়ে শাহ আলমের ডাক চিৎকারে গ্রামের লোকজন ছুটে আসলে আসামিরা চলে যায়।

এরপর স্থানীয়রা খাদেম সরদার ও আসলাম সরদারকে উদ্ধার করে গৌরনদী উপজেলা সাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যায়। এ সময় সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক খাদেম সরদারকে মৃত ঘোষণা করে। একই সাথে আসলাম সরদারকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশালের শেরেই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। বর্তমানে আসলাম সরদার পঙ্গু জীবনযাপন করছে বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, আসামিদের সাথে জমি নিয়ে বিরোধের পাশাপাশি মামলা সংক্রান্ত বিরোধ ছিল বলেও উল্লেখ করা হয়েছে মামলার এজাহারে। ওই হত্যাকাণ্ডের পূর্বে আসামি নান্নু মৃধাকে ৯০০ বোতল ফেনসিডিলসহ আটক করে পুলিশ। ওই মাদক মামলায় খাদেম সরদারের ছেলে শাহ আলম সরদাকে রাখা হয় স্বাক্ষী হিসেবে। তাই জমি বিরোধের পাশাপাশি ওই ঘটনার জের ধরেও চালানো হয় এ হত্যাকাণ্ড। এ ঘটনায় ওই দিন রাতেই গৌরনদী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন ছেলে শাহ আলম সরদার।

উক্ত মামলায় মূল ঘাতক নান্নু মৃধাসহ ১০ জনকে আসামি করা হয়। এরপর গৌরনদী থানা পুলিশ আদালতে একটি অভিযোগপত্র জমা দেয়। কিন্তু ওই চার্জশিটের ওপর বাদী না রাজির আবেদন দিলে পুনরায় ২০১৪ সালের ১২ নভেম্বর মামলাটি পুনরায় তদন্তের জন্য সিআইডিতে প্রেরণ করা হয়। এতে মামলার দীর্ঘ তদন্ত শেষে এজাহার নামীয় ১০ জনের সাথে আরো দুইজনের নাম সামিল করে মোট ১২ জনকে অভিযুক্ত করে ২০১৫ সালের ১৬ জুন আদালতে চার্জশিট প্রদান করেন সিআইডি পুলিশ পরিদর্শক সেলিম শাহ নেওয়াজ।

আদালতে আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের পর রাষ্ট্র পক্ষে ১১ জন ও আসামি পক্ষে ২ জন সাফাই সাক্ষির সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে অভিযোগ প্রমাণিত হলে আজ বুধবার আসামি নান্নু মৃধার উপস্থিতিতে তাকে মৃত্যুদণ্ড প্রদান করা হয়। একই সাথে তার ভাই পলাতক আসামি সেন্টু মৃধা ও উপস্থিত অপর আসামি আলাম মৃধাকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড এবং ৩০ হাজার টাকা করে জরিমানা ও অনাদায়ে আরো ৬ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।

এদিকে এ রায় ঘোষণার পর মামলার বাদী শাহ আলম সরদার আবেগ আপ্লুত হয়ে বলেন, আদালতের ওপর আমরা ভরসা রেখেছিলাম। এ হত্যাকাণ্ডের ন্যায্য বিচারক একদিন আমরা পাব। আজকে তাই পেয়েছি।

তিনি আরো বলেন, আমরা উচ্চ আদালতেও যাব, আসামি যাতে সেখান থেকে কোনো ভাবে রক্ষা না পায়

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।