আজকের বার্তা | logo

১১ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৫শে জুন, ২০১৮ ইং

বরগুনায় ১৮ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে অধ্যক্ষ জেলহাজতে

প্রকাশিত : মার্চ ১৩, ২০১৮, ২১:২০

বরগুনায় ১৮ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে অধ্যক্ষ জেলহাজতে

পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি: বরগুনার আমতলী ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মো. মজিবুর রহমানকে প্রতারণা মামলায় জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।  আজ দুপুরে পাথরঘাটা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জামিনের আবেদন করলে বিচারক মো. মঞ্জুরুল ইসলাম জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ দেন।

পাথরঘাটা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বেঞ্চ সহকারি মো. কামাল হোসেন বলেন, অধ্যক্ষ মজিবুর রহমান আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে বিচারক জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

এর আগে আমতলী ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মো. মজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে কর্মচারী ও শিক্ষকদের চাকরি দেওয়ার কথা বলে তাদের কাছ থেকে প্রায় ১৮ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে ২০১৭ সালের ১২ ফেরুয়ারি আমতলী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ওই কলেজের অফিস সহকারী ইউসুফ আলী বাদী হয়ে মামলা করেন।  ওই সময় মামলাটি আমলে নিয়ে আদালতের বিচারক বৈজয়ন্ত বিশ্বাস আমতলী-তালতলী সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আবদুল ওয়ারেচকে আগামী ১২ মার্চের মধ্যে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

পর পরবর্তীতে আদালতের মাধ্যমে তদন্ত কর্মকর্তা পরিবর্তন করে বরগুনা জেলা বারের সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. আব্দুল মোতালেব মিয়াকে দায়িত্ব প্রদান করলে তদন্তে অভিযোগের সত্যতা প্রমাণিত হওয়ায় আমতলীর সিনিয়র জুিডসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. হুমাযুন কবির তাকে হাজির হওয়ার জন্য সমন দেন। দীর্ঘদিন মামলা চলার পরে আসামি মজিবুর রহমান আমতলীর আদালত পরিবর্তন করে পাথরঘাটা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করেন।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।