আজকের বার্তা | logo

১২ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৫শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং

ঝালকাঠিতে পুলিশ কনস্টেবলের দুই বছরের কারাদন্ড

প্রকাশিত : মার্চ ০৯, ২০১৮, ০০:৩৭

ঝালকাঠিতে পুলিশ কনস্টেবলের দুই বছরের কারাদন্ড

ঝালকাঠি প্রতিনিধি ॥ ঝালকাঠিতে সৌদি প্রবাসীর স্ত্রীকে ফুসলিয়ে নেওয়ার অপরাধে এক পুলিশ কনস্টেবলকে দুই বছরের কারাদ- দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে প্রবাসীর টাকা ও স্বর্ণালংকার আত্মসাতের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তার স্ত্রীকেও ৩ বছরের কারাদ- প্রদান করা হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে ঝালকাঠির সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক বেগম রুবাইয়া আমেনা এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার পর দ-প্রাপ্ত পুলিশ বাহিনী থেকে চাকরিচ্যুত মো. জিয়াদুল হাওলাদার ও ফেরদৌসি আক্তার মুক্তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। মামলার বিবরণে জানা যায়, ঝালকাঠি শহরের পূর্বচাঁদকাঠির জেলেপাড়ার বাসিন্দা মো. কামাল হোসেন টুটুল ১৯৯৭ সাল থেকে সৌদি আরবে চাকরি করেন। দেশে এসে তিনি ২০০৪ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি একই এলাকার মো. মানিক মিয়ার মেয়ে ফেরদৌসি আক্তার মুক্তাকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর তিনি সৌদি আরব যাওয়া আসা করতেন। সৌদি আরব থাকাকালে তিনি স্ত্রীর নামে প্রতি মাসের খরচ বাদে ২২ লাখ টাকা পাঠান। তাদের তিনতলা ভবনের একটি ফ্যাটে ভাড়া থাকতেন ঝালকাঠি পুলিশ লাইনসে কর্মরত পুলিশ কনস্টেবল জিয়াদুল হাওলাদার। সৌদি থাকার সুযোগে টুটুলের স্ত্রী মুক্তার সঙ্গে পরকীয়ায় আবদ্ধ হন বিবাহিত পুলিশ কনস্টেবল জিয়াদুল। স্থানীয় লোকজনের কাছে বিষয়টি ধরা পড়ায় জিয়াদুল কামাল হোসেন টুটুলের বাড়ি থেকে অনত্র চলে যেতে বাধ্য হন। খবর পেয়ে ২০১৫ সালে সৌদি আরব থেকে টুটুল ঝালকাঠি চলে আসেন। টুটুল এবং মুক্তার দশ এবং ছয় বছরের দুটি ছেলে সন্তান রয়েছে। জিয়াদুল অন্যত্র বাসা ভাড়া নিলেও মুক্তার সঙ্গে গোপনে পরকীয়া চালিয়ে যেতে থাকেন। ২০১৫ সালের ২৯ নভেম্বর জিয়াদুল ফুসলিয়ে টুটুলের স্ত্রী মুক্তাকে নিয়ে পালিয়ে যান। এসময় মুক্তা ঘরে থাকা নগদ ২০/২২ লাখ টাকা ও স্বর্ণালংকার নিয়ে যান। এ ঘটনায় কামাল হোসেন টুটুল বাদী হয়ে ২০১৫ সালের ৬ ডিসেম্বর ঝালকাঠি সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জিয়াদুল ও মুক্তাকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। আদালত তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন। ঝালকাঠি থানার এসআই গৌতম কুমার ঘোষ ১২ ডিসেম্বর জিয়াদুলকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করেন এবং মুক্তা আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। এ ঘটনায় ঝালকাঠির পুলিশ সুপার জিয়াদুলকে বরখাস্ত করেন। কিছুদিন পর তারা আদালত থেকে জামিন পান। আদালত পাঁচজন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে গতকাল বৃহস্পতিবার  রায় ঘোষণা করেন। রায়ে জিয়াদুলকে দুই বছর এবং মুক্তাকে তিন বছর কারাদ- প্রদান করা হয়। রায় ঘোষণার পর জিয়াদুল ও মুক্তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।