আজকের বার্তা | logo

১১ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২৫শে জুন, ২০১৯ ইং

চার বিয়ে করা কি ‘বৈধ’?

প্রকাশিত : মার্চ ২৯, ২০১৮, ১০:৫৫

চার বিয়ে করা কি ‘বৈধ’?

পুরুষের চার বিয়ে নিয়ে অনেক জায়গায় অনেক ভাবে বিতর্ক হয়েছে। কেউ কেউ বলার চেষ্টা করেছেন এটা পুরুষতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থার কারনে ধর্মতেও এর প্রভাব পড়েছে। এ নিয়ে বহু সমালোচক বহুভাবে এর সমালোচনা করেছে। নারীকে পুরুষের অধিনস্ত, বাক স্বাধীনতা হরণ, অসম্মান বা অমর্যাদা করার জন্য এই সব প্রথার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে ইসলাম ধর্মে একসঙ্গে চার স্ত্রী রাখার বিধান রয়েছে।

আর তাই তিন তালাককে অবৈধ ঘোষণার পর এবার মুসলিমদের চার বিয়ে ও নিকাহ হালালের যে প্রথা প্রচলিত আছে তা সাংবিধানিকভাবে বৈধ কিনা সেটি খতিয়ে দেখবেন ভারতের সুপ্রিম কোর্ট।

দেশটির প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ মুসলিম পুরুষের চার বিয়ে ও নিকাহ হালালের বৈধতা বিষয়ে এ কথা জানিয়েছেন।

দেশটির গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, তিন তালাকের সঙ্গেই চ্যালেঞ্জ জানানো হয়েছিল মুসলিম পুরুষের একই সঙ্গে চারজন স্ত্রী থাকার অধিকারের বৈধতাকে। চ্যালেঞ্জ জানানো হয়েছিল নিকাহ হালাল প্রথাকেও। নিকাহ হালাল হল মুসলিম নারী যদি সাবেক স্বামীকে ফের বিয়ে করতে চান তাহলে আগে অন্য কোনো পুরুষকে বিয়ে করে তার থেকে তালাক নিয়ে আসতে হবে।

খবরে আরও জানানো হয়, তিনটি বিষয়ের বিচার একসঙ্গে করতে চাননি আদালত। প্রথমে তিন তালাকের বৈধতা বিচার করা হবে। পরে চার বিয়ের প্রথা এবং সর্বশেষ নিকাহ হালালের বৈধতা খতিয়ে দেখা হবে। এ বিষয়ে সর্বোচ্চ আদালত আগেই জানিয়ে দিয়েছিল।

প্রসঙ্গত, গেল বছরের আগস্টে ভারতের সুপ্রিম কোর্টের দেয়া এক আদেশে মুসলিম সমাজে তিনবার ‘তালাক’ শব্দটি উচ্চারণ করে তাত্ক্ষণিকভাবে স্ত্রীকে ত্যাগ করার যে রীতি প্রচলিত রয়েছে, তাকে অসাংবিধানিক ও অবৈধ ঘোষণা করা হয়। একই সঙ্গে এ বিষয়ে আগামী ছয় মাসের মধ্যে আইন প্রণয়ন করতে দেশটির পার্লামেন্টকে নির্দেশ দেয়া হয়।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।