আজকের বার্তা | logo

৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৯শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং

আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ এমপি’র অবয়বে মামা বঙ্গবন্ধুর প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত : মার্চ ১৫, ২০১৮, ০০:৫৭

আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ এমপি’র অবয়বে মামা বঙ্গবন্ধুর প্রতিচ্ছবি

 

রাহাদ সুমন, বানারীপাড়া প্রতিনিধি ॥ পার্বত্য শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ কমিটি, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি ও বরিশাল জেলা আ’লীগের সভাপতি সিংহ পুরুষ খ্যাত জাতীয় নেতা আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ এমপি’র অবয়বে মামা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিচ্ছবি খুঁজে পাওয়া যায়। ২০০৮ ও ২০১৪ সালে অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ বিপুল বিজয় নিয়ে সরকার গঠনের পর থেকে জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ এমপিকে মন্ত্রী করার দাবি ওঠে আ’লীগ নেতা-কর্মী-সমর্থক ও শুভানুধ্যায়ীসহ গোটা বরিশালবাসীর পক্ষ থেকে। দীর্ঘ অপেক্ষার পরে সম্প্রতি তাকে পূর্ণ মন্ত্রীর মর্যাদায় পার্বত্য শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ কমিটির সভাপতি করা হয়। দুঃসময়ের ত্যাগী ও পরীতি নেতা পার্বত্য শান্তি চুক্তির প্রণেতা আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ তার মেধা, মননশৈলী, প্রজ্ঞা ও রাজনৈতিক দূরদর্শিতা দিয়ে আ’লীগকে বরিশালসহ গোটা দণিাঞ্চলে শক্তিশালী ও সুদৃঢ় ভিত্তির ওপর দাঁড় করিয়ে এক অপ্রতিদ্বন্দ্বী রাজনৈতিক দলে রূপান্তর করেছেন। তার নেতৃত্বে আ’লীগ নেতা-কর্মীদের সাংগঠনিক তৎপরতায় এ অঞ্চলে বিএনপি-জামায়াত’র নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট অনেকটা অস্তিত্বহীন হয়ে পড়েছে। বরিশালে উপজেলা, ইউপি ও পৌরসভা নির্বাচনে আ’লীগ প্রার্থীদের বিজয়ী করতে পলিসি মেকারের  ভূমিকায় অবতীর্ণ হন বঙ্গবন্ধুর অবিনাশী আদর্শের ধারক এ নেতা। রাত-দিন একাকার করে তিনি আ’লীগকে সুসংগঠিত ও দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করতে শহর থেকে গ্রাম আর গ্রাম থেকে গ্রামান্তরে ছুটে বেড়ান। তার দূরদর্শিতায় বরিশালের সব জনপ্রতিনিধি এখন আ’লীগের। শুধু বরিশালেই নয় জাতীয় রাজনীতিতেও তার সরব উপস্থিতি রয়েছে। ১৯৯৭ সালে অশান্ত পার্বত্য অঞ্চলে শান্তির সুবাতাস বইয়ে দিতে ‘শান্তি চুক্তি’ সম্পাদনের মাধ্যমে তৎকালীন জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ অগ্রণী  ভূমিকা পালন করে বঙ্গবন্ধু তনয়া প্রধানমন্ত্রী ও আ’লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার পাশাপাশি ইতিহাসের পাতায় নিজের নাম লিখিয়েছেন। ১৯৭১ সালে মামা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহবানে সাড়া দিয়ে সেই সময়ের সাহসী টগবগে যুবক আবুল হাসানাত স্বাধীনতার সম্মুখ সমরে জীবনপণ লড়াই করে স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ বিনির্মাণে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন। স্বাধীনতার পর তিনি বরিশাল পৌরসভার সফল ও জনপ্রিয় চেয়ারম্যান হিসেবে উন্নয়ন কর্মকা-ে নিজেকে সম্পৃক্ত করেন। পরবর্তীতে বরিশাল-১ (আগৈলঝাড়া-গৌরনদী) আসনে একাধিকবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে গোটা বরিশাল অঞ্চলে উন্নয়নের রূপকার হিসেবে আর্বিভূত হন। বরিশাল সিটি কর্পোরেশন, বিভাগ, শিা বোর্ড, বিশ্ববিদ্যালয়, পায়রা গভীর সমুদ্র বন্দর প্রতিষ্ঠা, শেখ হাসিনা সেনানিবাস (ক্যান্টনমেন্ট), দোয়ারিকা-শিকারপুর ও দপদপিয়া ব্রিজ নির্মাণসহ বরিশালের সার্বিক উন্নয়নে তার অপরিসীম ভূমিকা রয়েছে। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট কালরাতে রক্তঝরা অচিন্তনীয় বিয়োগান্তক অধ্যায়ের শোকগাথাঁয় মামা বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে বাবা তৎকালীন কৃষিমন্ত্রী ও কৃষককূলের নয়নের মনি আব্দুর রব সেরনিয়াবাত ও নিজের শিশু পুত্র সুকান্ত আব্দুল্লাহসহ পরিবারের অনেক স্বজনকে হারান তিনি। সেদিন রাতে মৃত্যুর দুয়ার থেকে মহান আল্লাহ রাব্বুল আল আমিনের অপার কৃপায় অলৌকিকভাবে আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ, বুলেটবিদ্ধ স্ত্রী শাহান আরা আব্দুল্লাহ ও তার কোলে থাকা দেড় বছরের শিশু পুত্র সাদিক আব্দুল্লাহ বেঁচে যান। শরীরে বুলেট বহন করে অসহ্য যন্ত্রণা নিয়ে শাহান আরা আব্দুল্লাহ স্বামী আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর মতো আ’লীগের সুখ-দুঃখের অংশীদার। মৃত্যুর দুয়ার থেকে বেঁচে ফেরা সাদিক আব্দুল্লাহ বরিশালের রাজনীতিতে বাবার পদাঙ্ক অনুসরণ করে ‘সূর্যের মতো উদিয়মান’ আলোচিত এক রাজনীতিকের নাম। রাজনীতির আইকন এ যুবরতœকে সিটি মেয়র হিসেবে দেখতে দলীয় নেতা-কর্মীসহ গোটা বরিশালবাসী অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন। ৭৫’র পর সেনাশাসক জিয়াউর রহমান, স্বৈরশাসক এরশাদ ও বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার আমলে (৯১-৯৬ ও ২০০১-২০০৬) মিথ্যা মামলাসহ নানাভাবে আবুল হাসানাতকে হয়রানির শিকার হতে হয়। ১/১১’র সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার আমলেও ষড়যন্ত্রের শিকার হন তিনি। পূর্ণ মন্ত্রীর মর্যাদায় পার্বত্য শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ কমিটির সভাপতি থাকার পাশাপাশি দুঃসময়ের কা-ারী পরীক্ষিত ও অভিজ্ঞ রাজনীতিক আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহকে সরকারের শেষ সময়ে মন্ত্রী সভায় রদল করা হলে অথবা নির্বাচনকালীন সরকারের মন্ত্রিসভায় গুরুত্বপূর্ণ কোনো মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দেখা যেতে পারে বলে আভাস পাওয়া গেছে।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।