আজকের বার্তা | logo

১লা ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৬ই আগস্ট, ২০১৮ ইং

ভুল প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা: কেন্দ্র সচিব সুপারকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি

প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৮, ০১:০২

ভুল প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা: কেন্দ্র সচিব সুপারকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি

আগৈলঝাড়া প্রতিনিধি ॥ আগৈলঝাড়ায় কেন্দ্র সচিব ও হল সুপারের দায়িত্বে অবহেলার কারণে ৩ ঘণ্টার এসএসসি’র গণিত পরীক্ষা ৪ ঘণ্টায় দিয়েছে শিক্ষার্থীরা। তারপরেও পুরনো বছরের ভুল প্রশ্নপত্রে ৪ ঘণ্টা পরীক্ষা নেয়ায় বিুব্ধ শিক্ষার্থীরা।  এমসিকিউ পরীক্ষার প্রশ্ন ভুল, সৃজনশীল পরীক্ষার প্রশ্ন সংকটে ফটোকপি করে প্রশ্নপত্র সরবরাহ করা হয়। পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে উদ্বিগ্ন ও হতাশা প্রকাশ করছেন পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা। ইউএনও ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, এ ঘটনায় কেন্দ্র সচিব ও হল সুপারকে অব্যাহতি প্রদান করা হয়েছে। ৩ ঘণ্টার পরীক্ষা ৪ ঘণ্টাব্যাপী নেয়ার ঘটনা মুহূর্তের মধ্যে শহরে ছড়িয়ে পড়লে সংবাদ কর্মীরা সংবাদ সংগ্রহের জন্য কেন্দ্রের সামনে গেলে সেখানে উপস্থিত পরীক্ষা পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহম্মেদ রাসেল কোন সাংবাদিককে পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেননি। তিনি কেন্দ্রের প্রধান ফটকে তালা দিয়ে পরীক্ষা নিচ্ছিলেন। মোবাইল ফোনে বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি সত্যতা স্বীকার করে বলেন, প্রশ্নপত্র দেরীতে দেয়ায় তাদের পরীক্ষার সময় বাড়ানো হয়েছে। অবশ্য তিনি প্রথমে ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা নেয়ার কথা অস্বীকার করলেও পরে পরীক্ষা দিয়ে বের হওয়া শিক্ষার্থীদের বরাত দিয়ে তার কাছে পুনরায় ফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি অনিচ্ছাকৃত ভুল। তবে বিষয়টি তাৎক্ষণিক বরিশাল শিক্ষা বোর্ডকে অবহিত করা হয়েছে। বোর্ডের বরাত দিয়ে ইউএনও রাসেল আরও জানান, বোর্ড তাকে মৌখিকভাবে বলেছে যে উত্তরপত্র দেখার সময় ওই ভাবেই মূল্যায়ন করা হবে। নির্বাহী কর্মকর্তা জানান, কেন্দ্রে মোট ৩৮৩ জন পরীক্ষার্থী ছিল। এর মধ্যে ৮১ জনকে ভুল প্রশ্নপত্র সরবরাহ করা হয়। তবে তাদের ভুল প্রশ্নপত্র সরবরাহের খবর কেন্দ্র সচিব বা হল সুপার তাকে জানাননি। সৃজনশীল প্রশ্নপত্র সরবরাহ করার পরে পরীক্ষার্থীদের কাছে ভুলের বিষয়টি ধরা পড়ে। এই ৮১ জন পরীক্ষার্থীর ভাগ্যে কি ঘটবে তা কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না। উপজেলার কাঠিরা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী শ্রীমতি মাতৃমঙ্গল বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রের ৬নং হলের পরীক্ষার্থী অপূর্ব বাড়ৈ, অমিও অধিকারী, অরিন্দমসহ অনেকেই জানায়, তাদের হলে ১২ জন পরীক্ষার্থী শনিবার গণিত পরীক্ষায় অংশ নেয়। এরকম সকল হলেই পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। যথাসময়ে তাদের প্রশ্নপত্র সরবরাহ করা হয়। প্রথমে এমসিকিউ প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে অন্তত ৩০ মিনিট পর ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে বলে পরীক্ষার্থীরা হল সুপার ও কেন্দ্র সচিবকে অবহিত করে। কেন্দ্র সচিব ও শ্রীমতি মাতৃমঙ্গল বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হারুন অর রশিদ ও হল সুপার কাঠিরা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অনিল চন্দ্র কর পরীক্ষার্থীদের কথায় ভ্রুক্ষেপ না করে সরবরাহকৃত প্রশ্নেই তাদের উত্তর লিখতে বলেন। শিক্ষার্থীরা সেই মোতাবেক ২০১৬ সালের সরবরাহ করা ভুল প্রশ্নে পরীক্ষায় অংশ নিতে বাধ্য হয়। এমসিকিউ পরীক্ষার পর সরবরাহকৃত সৃজনশীল প্রশ্ন বিতরণকালে প্রশ্নপত্রে সংকট ধরা পড়ে। এসময় শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা গ্রহণ বন্ধ করে পার্শ্ববর্তী পরীক্ষা কেন্দ্র ভেগাই হালদার পাবলিক একাডেমি ও গৈলা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে ফটোকপি করা প্রশ্নপত্র সংগ্রহ করে তা শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিতরণ করা হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাংবাদিকদের জানান, দায়িত্বে অবহেলার কারণে তিনি কেন্দ্র সচিব, হল সুপারসহ অন্যান্যদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে জেলা প্রশাসকের কাছে সুপারিশ করবেন। জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

আমতলী:বরগুনার আমতলী উপজেলার এসএসসি পরীক্ষায় একে হাই স্কুল কেন্দ্রে অসদুপায় অবলম্বনের দায়ে দক্ষিণ রাওঘা নুর আল আমিন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এক পরীক্ষার্থী বহিষ্কার হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার  মোঃ সরোয়ার হোসেন ওই পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করেন।

দৌলতখান: চলামান এসএসসি পরীায় ভোলার দৌলতখানে গত শনিবার গণিত পরীা চলাকালে অসৎ উপায় অবলম্বনের দায়ে ৩ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার ও নকলে সহযোগিতা করায় ২ বহিরাগতে জেল জরিমানা করা হয়েছে।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।