আজকের বার্তা | logo

১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং

স্কুল খুলে দিতে সাড়ে চার লাখ টাকার ঘুষ চুক্তি!

প্রকাশিত : জানুয়ারি ২৩, ২০১৮, ১৪:৩২

স্কুল খুলে দিতে সাড়ে চার লাখ টাকার ঘুষ চুক্তি!

অনলাইন ডেক্সঃ বন্ধ করে দেওয়া লেকহেড গ্রামার স্কুলের মালিকের সঙ্গে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দুই কর্মকর্তার চার লাখ ত্রিশ হাজার থেকে সাড়ে চার লাখ টাকা ঘুষ লেনদেন চুক্তি হয় বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে।  এছাড়া স্কুল মালিক খালেদ হোসেন মতিনের বিরুদ্ধে জঙ্গিবাদে সম্পৃক্ততার অভিযোগ রয়েছে। সে বিষয়েও তদন্ত চলছে। তদন্তে জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে আরও একটি মামলা হতে পারে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখার যুগ্ম কমিশনার আবদুল বাতেন।

মঙ্গলবার দুপুরে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে যুগ্ম কমিশনার এসব কথা বলেন।

সংবাদ সম্মেলনে আবদুল বাতেন বলেন, ঘুষ দেওয়া ও নেওয়ার অভিযোগে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উচ্চমান সহকারী নাসির উদ্দিন, শিক্ষামন্ত্রীর ব্যক্তিগত কর্মকর্তা (পিও) মোতালেব হোসেন এবং লেকহেড গ্রামার স্কুলের মালিক খালেদ হোসেন মতিনকে বনানী থানার মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। আজ তাদের তিনজনকে দুদকের কাছে হস্তান্তর করা হবে। তাদের ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে তোলা হবে। এরপর দুদক এই মামলার তদন্ত করবে।

 

ডিবির যুগ্ম কমিশনার আবদুল বাতেন আরও বলেন, মতিনের বিরুদ্ধে জঙ্গিবাদের অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। এ নিয়ে জোর তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে তার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদে মদদ ও সম্পৃক্ততার অভিযোগে একটি মামলা হবে। সেই মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে আবার ডিবিতে নেওয়া হবে।

রোববার রাতে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ ঘুষ- বাণিজ্যে জড়িত থাকার অভিযোগে শিক্ষামন্ত্রণালয়ের দুইজনকে ও জঙ্গিবাদে অর্থায়নের অভিযোগে লেকহেড স্কুলেরমালিক খালেদ হোসেন মতিনকে গ্রেফতার করা হয়।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।