আজকের বার্তা | logo

১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং

বরিশালে নেতৃত্ব সংকটে ছাত্রলীগ

প্রকাশিত : জানুয়ারি ০৩, ২০১৮, ০১:১৮

বরিশালে নেতৃত্ব সংকটে ছাত্রলীগ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আগামীকাল বৃহস্পতিবার ঐতিহ্যবাহী ছাত্রসংগঠন ছাত্রলীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। এ উপলক্ষে বরিশাল নগরীতে যেন সাজ সাজ রব বইছে। কিন্তু দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে যেন স্বস্তি নেই। এর অন্যতম কারণ বরিশাল ছাত্রলীগে নেতৃত্ব সংকট। দীর্ঘ ৭ বছর আগের মেয়াদ উত্তীর্ণ কমিটি দিয়ে চলছে জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের নেতৃত্ব। এর মধ্যে মহানগর ছাত্রলীগে কেবলমাত্র সভাপতি ব্যতীত পদধারী আর কেউই নেই। গা-ছাড়াভাবে চলছে জেলা ছাত্রলীগের কার্যক্রমও। এ অবস্থায় নতুন নেতৃত্বের দাবিতে মুখিয়ে আছেন একাধিক গ্রুপের নেতারা। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২০১১ সালের জুনে বরিশাল জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের আংশিক কমিটি গঠিত হয়। এরপর কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগে নতুন নেতৃত্ব এলেও বরিশাল ছাত্রলীগ চলছে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে। ৩ সদস্যবিশিষ্ট মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদককে ইতোমধ্যে দল থেকে বহিষ্কার করেছে কেন্দ্র। সাংগঠনিক সম্পাদক বরিশাল বিশ^বিদ্যালয়ের কর্মকর্তা হওয়ায় তিনি আর এ পথে আসছেন না। মহানগর সভাপতি জসিম উদ্দিনই দলটির একমাত্র পদধারী নেতা বলে কর্মীরা মনে করেন।

মহানগর ছাত্রলীগের পদ প্রত্যাশী রইছ আহমেদ মান্না বলেন, ২০১১ সালে মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি গঠন করা হয়। ইতোমধ্যে সাধারণ সম্পাদক বহিষ্কার হন। সাংগঠনিক সম্পাদক চাকরি করেন তাই দলে তার অস্তিত্ব নেই। কেবলমাত্র সভাপতি জসিম উদ্দিনকে নিয়ে নগর ছাত্রলীগ কি করে চলবে? তিনি বলেন, গত বছর কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কাউন্সিলে ২৫টি ডেলিগেট কার্ড পাঠানো হয়। ওই কার্ডে সভাপতি নিজের মত করে অনেক পদ তৈরি করে অংশ নেন। এরপর থেকে ডেলিগেট কার্ড পাওয়ারা নিজেদের সহ সভাপতি, সহ সাধারণ সম্পাদক, সাংগঠনিক সম্পাদকসহ নানা পদের নেতা হিসেবে জাহির করছেন। এ অবস্থায় মহানগর ছাত্রলীগ কিভাবে দলের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করবে তা তার জানা নেই। তবে তারা যারা ছাত্রলীগে সক্রিয় আছেন তারা প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করবেন। মহানগর ছাত্রলীগের পদ প্রত্যাশী অপর নেতা মাইনুল ইসলাম বলেন, মহানগর ছাত্রলীগে সভাপতি ছাড়া আর কেউ নেই। কর্মীরা তাদের (মাইনুল) সমর্থন করেন। তাই পদ না থাকলেও তারাই প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করবেন।

এ প্রসঙ্গে বরিশাল মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন বলেন, তিনি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নির্দেশে মহানগর কমিটি পরিচালনা করছেন। তার নেতৃত্বেই প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। অন্য কেউ করলে তা তাদের ব্যক্তিগত বিষয়। তিনি দাবি করেন, মহানগর ছাত্রলীগের ২১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি আছে। তারা কাউন্সিলে যদি ভোটার হতে পারেন তবে পদধারী কেন হবেন না। এদিকে দীর্ঘ বছর ধরে চলে আসা জেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মাঝেও হতাশা রয়েছে। ৭ বছরেও নতুন কমিটি গঠিত না হওয়ায় নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টি হচ্ছে না বলে কর্মীরা অভিযোগ করেছেন। এর মধ্যে অনেক পদধারীরাই দলীয় কর্মকান্ড থেকে দূরে সরে আছেন। অনেকের আবার ছাত্রত্বও নেই। কেউ কেউ সংসার জীবনে প্রবেশ করে দলের প্রতি দায়িত্বই ভুলে গেছেন বলে জেলা ছাত্রলীগের একাধিক নেতা জানিয়েছেন। জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি আতিকুল্লাহ মুনিম বলেন, তাদের কমিটির মেয়াদ ‘ওভার’ হয়ে গেছে। তিনি এখন আর জেলায় থাকতে চান না। বিএম কলেজ’র রাজনীতি করাই তার ইচ্ছা। এ ব্যাপারে বরিশাল জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সুমন সেরনিয়াবাত বলেন, তার কমিটির মেয়াদ দীর্ঘ বছর হলেও ইতোমধ্যে ১০টি উপজেলায় ৮টি কমিটি করেছেন। কাউন্সিল না হওয়া পর্যন্ত এ কমিটিই জেলা ছাত্রলীগের নেতৃত্ব দিবে। তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীও তারা ঐক্যবদ্ধভাবে করবেন।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।