আজকের বার্তা | logo

২৯শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১২ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং

বরগুনার তালতলীতে স্কুল ভবন পরিত্যক্ত এনজিও ঘরে পাঠদান

প্রকাশিত : জানুয়ারি ২০, ২০১৮, ১৯:০৩

বরগুনার তালতলীতে স্কুল ভবন পরিত্যক্ত এনজিও ঘরে পাঠদান

বরগুনার তালতলী উপজেলাধীন নিশানবাড়ীয়া ইউনিয়নের মেনিপাড়া গ্রামের ৬৩নং মেনিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একমাত্র পাকা ভবনটি ছাত্র-ছাত্রীদের ক্লাশ নেওয়ার অনুপযোগী হয়ে পরায় উপজেলা শিক্ষা কমিটি, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি ও ম্যানেজিং কমিটির সমন্বয় ২০১৭ সালের আগস্ট মাসে ভবনটি পরিত্যাক্ত ঘোষনা করেন। পরে ম্যানেজিং কমিটি, অভিভাবক ও শিক্ষক সমন্বয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিদ্যালয়ের পার্শ্বে (সোস্যাল ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন) এসডিএফ নামক এনজিও’র একটি রুমে এক সংগে তিনটি শ্রেণির ক্লাস চালিয়ে যাচ্ছে। এতে শিক্ষার্থীদের পাঠদান ব্যাহত হচ্ছে।

 

জানা গেছে, ১৯৯১ সালে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর ২০০৪ইং সালে বিদ্যালয়ে পাকা ভবন নির্মান করা হয়। ১ যুগ যেতে না যেতেই দেয়াল ও ছাদের পলেস্তারা খসে পরেছে। একটু বৃষ্টি হলেই ছাদ চুষে পানি পরে ক্লাস রুম ভিজে যায়। নষ্ট হয়ে ভেঙ্গে গেছে ভবনের সব দরজা-জানালা। গত বছর পলেস্তারা খসে পরে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। ভবনটিতে ছাত্র-ছাত্রীর ক্লাস করার অনুপযোগী হয়ে পরায় উপজেলা শিক্ষা কমিটি, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি ও ম্যানেজিং কমিটির সমন্বয় ২০১৭ সালের আগস্ট মাসে ভবনটি পরিত্যাক্ত ঘোষনা করেন। এরপর থেকে শিক্ষকরা ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে খোলা আকাশের নীচে ক্লাস করেন।

 

এর কিছুদিন পর চলে আসে বর্ষাকাল। খুবই মসকিলে পরে যান শিক্ষকরা। পরে ম্যানেজিং কমিটি, অভিভাবক ও শিক্ষক সমন্বয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিদ্যালয়ের পার্শ্বে বে-সরকারি সংস্থা (সোস্যাল ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন) এসডিএফ নামক এনজিও’র একটি রুমে টু সিফ্টে ক্লাস নিচ্ছেন তারা। টু সিফ্টে ক্লাস নেয়ায় শিক্ষকদের একই রুমে এক সংগে তিনটি শ্রেণির পাঠদান চালিয়ে যেতে হচ্ছে। এভাবে কোনমতে চলছে বিদ্যালয়টির ছাত্র-ছাত্রীর পড়াশোনা।

 

বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. সেলিম হোসেন জানান, বিদ্যালয়ের একমাত্র পাকা ভবনটি ২০১৭ ইং সালের আগষ্ট মাসে পরিত্যাক্ত ঘোষনা করা হয়। ঐ সময় কিছু দিন শিক্ষার্থীদের নিয়ে খোলা আকাশের নিচে ক্লাস করেছি। পরে বর্ষার সময় বিদ্যালয়ের পাশে এনজি’র একটি রুমে ক্লাস করিয়েছি। বর্তমানে নিয়মতান্ত্রিক ভাবে ছাত্র-ছাত্রীদের পাঠদান করানো যাচ্ছে না।

 

বিদ্যালয়ের শিক্ষার্র্থী তানিয়া আক্তার, রিমা, মিতু, রাকিবুল, মারুফা জানায়, স্কুলের মূল ভবনটি নষ্ট হয়ে যাওয়া এবং একরুমে একত্রে তিন শ্রেনির ছাত্র-ছাত্রীর পাঠদান করায় ভালোভাবে ক্লাশে শিখতে পারি না। আমাদের স্কুলের জন্যে নতুন ভবন খুব প্রয়োজন।

 

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ এনামুল হক সরকার জনান, স্কুলের যে একমাত্র পাকা ভবন রয়েছে তা শিক্ষার্থীদের পাঠদানের রুম হিসেবে অনুপযোগী। এজন্য ভবনটিকে পরিত্যক্ত ঘোষনা করা হয়েছে। বিদ্যালয়টির নতুন ভবন নির্মানের প্রস্তাব শিক্ষা মন্ত্রনালয়ে পাঠানো হয়েছে। আশাকরি, খুব তারাতারি নতুন ভবন নির্মানের বরাদ্দ আসবে।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।