আজকের বার্তা | logo

৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৮ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং

প্রথমবার নগরীতে পৌষ মেলা শুরু: পৌষ তোদের ডাক…

প্রকাশিত : জানুয়ারি ০৭, ২০১৮, ০২:২০

প্রথমবার নগরীতে পৌষ মেলা  শুরু: পৌষ তোদের ডাক…

সাঈদ পান্থ ॥ ২৩ পৌষ। চারিদিকে হালকা কুয়াশা আর শীতের শিরশির হাওয়া। বিকেলে উৎসবপ্রিয় বরিশাল নগরবাসীর পদচারণে মুখর জগদীশ সারস্বত বালিকা বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ। উপল, ঢাকার বাহিরে প্রথমবারের মত পৌষ মেলার উদ্বোধনী আয়োজন। শীতের জড়তা কাটিয়ে, উৎসবের টানে যারা হাজির হয়েছিল তারা। আনন্দে-উষ্ণতায় সময় কাটিয়েছে নগরবাসী। নাগরিক জীবনে একটুখানি গ্রামীণ আবহ আর পিঠা-পুলির সঙ্গে আবৃত্তি, সংগীত, নৃত্য ও নাটক ছিল মেলা প্রাঙ্গণজুড়ে। লোকধারা, সংস্কৃতি ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছড়িয়ে দেওয়ার প্রত্যয়ে গতকাল শনিবার থেকে       জগদীশ সারস্বত বালিকা বিদ্যালয়ে শুরু হলো তিন দিনব্যাপী পৌষ মেলা। উদ্বোধনী নৃত্য’র পরপরই অমঙ্গল তাড়াতে এই মেলার উদ্বোধন করেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ আমিনুল ইসলাম খান। একদা পৌষ মেলার উৎসবে মেতে উঠত গ্রাম বাংলার পথঘাট। মেলা চলত সপ্তাহ বা মাসভর। মেলার আকর্ষণ ছিল নাগরদোলা, সাপুড়ের খেলা, যাত্রাভিনয়, বাউলের আসর, বরিশালের ঐতিহ্য হয়লা গান, ক্রীড়া প্রদর্শন, কবিগান, পুতুল নাচ ইত্যাদি। সব বয়সের মানুষকে আকৃষ্ট করত এ পৌষ মেলা। নতুন ধান বিক্রি করে টাকা নিয়ে মেলায় গিয়ে আনন্দ করতো গ্রামীণ মানুষেরা। সেই যাত্রাশিল্প বিলুপ্তির পথে, গ্রামাঞ্চল থেকে হারিয়ে যেতে বসেছে সেই পৌষ মেলাও। সেই আমেজকে প্রথমবারের মত বরিশাল নগরীতে ফিরিয়ে এনেছে জাতীয় বরীন্দ্রসঙ্গীত সম্মিলন পরিষদ বরিশাল শাখা। মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, ‘বাঙালি জীবনে পৌষ মেলার প্রভাব রয়েছে। ধর্মীয় সম্প্রীতির এক উজ্জ্বল উদাহরণ এ মেলা। এ মেলার মাধ্যমে ফিরিয়ে আনতে হবে আমাদের নিজস্ব ঐতিহ্যকে।’ পরিষদ সভাপতি কাজল ঘোষ বলেন, ‘বাঙালির মেরুদ-ের শক্ত এক ভিতের ওপর দাঁড়িয়ে আছে আমাদের লোক সংস্কৃতি। হাজারো বছরের এ ঐতিহ্যকে তুলে ধরতে আমাদের এর পরিচর্যা করতে হবে। এই উৎসবের মাধ্যমে আমরা প্রমাণ করতে চাই, বাংলাদেশ সব ধর্মের।’ অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল পুলিশ কমিশনার এসএম রুহুল আমিন, বরিশাল শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যান প্রফেসর মু. জিয়াউল হক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব আক্কাস হোসেন ও বদিউর রহমান। “পৌষ তোদের ডাক দিয়েছে আয়রে চলে আয় আয় আয়”…. সেøাগানে পৌষ মেলায় শুধু সাংস্কৃতিক আয়োজনই নয়, ছিল মেলারও সত্যিকার আবহ। বিদ্যালয়ের উন্মুক্ত প্রাঙ্গণে ছিল দেশীয় পিঠা-পুলির প্রদর্শনীও। মেলায় ১৮টি স্টল অংশ নিয়েছে। প্রতিদিন বিকেল ৩টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত এ মেলা চলবে। বিভিন্ন স্টলে রয়েছে বাংলার ঐতিহ্যবাহী পাটিসাপটা, লবঙ্গ লতিকা, বৌ ফিরানী পিঠা, রসের পিঠা, চুষি পিঠা, তালবড়া, বিবিখানা, বউ পিঠা, ভাঁপা পিঠা, সিদ্ধপুলি, পাকান, খেজুর পিঠা, মালপোয়াসহ নানা স্বাদের পিঠা। সংস্কৃতিজন মুকুল দাস বলেন, ‘শান্তিনিকেতনে পৌষ মেলা প্রতি বছর অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে মেলা-পার্বণগুলোর মধ্যে পৌষ মেলাও খুব জনপ্রিয় ছিল। এ মেলায়ও একদা জাতি-ধর্ম-সম্প্রদায় নির্বিশেষে সব শ্রেণির মানুষ মিলিত হতো। গ্রামাঞ্চল থেকে পৌষ মেলা প্রায় বিলুপ্ত হলেও শহরে এখন বিভিন্ন ধরনের মেলা হতে দেখা যায়। শুধু শহর নয়, গ্রামাঞ্চলেও ফিরিয়ে আনতে হবে দেশের নিজস্ব উৎসব ও সংস্কৃতিকে। বরিশালে প্রথমবারের মত এমন আয়োজন করার জন্য জাতীয় বরীন্দ্রসঙ্গীত সম্মিলন পরিষদকে শুভেচ্ছা জানাই।’

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।