আজকের বার্তা | logo

২৬শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১০ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং

হিজলায় বাল্য বিয়ে বন্ধ করলেন ইউএনও

প্রকাশিত : ডিসেম্বর ২৩, ২০১৭, ০১:৪১

হিজলায় বাল্য বিয়ে বন্ধ  করলেন ইউএনও

স্টাফ রিপোর্টার ॥ লেখাপড়া করতে চায় কিশোরী ফাহিমা আক্তার (১৩)। কিন্তু তার লেখাপড়া বন্ধ করে বিয়ে ঠিক করেন বাবা-মা। গতকাল শুক্রবার বিয়ের পূর্ব নির্ধারিত দিন ধার্য করা ছিল। কিন্তু উপজেলা প্রশাসন জানতে পেরে বাল্য বিবাহ বন্ধ করে দেয়। একই সঙ্গে ফাহিমার পড়াশুনার দায়িত্ব নিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। হিজলা উপজেলার মেমানিয়া ইউনিয়নের হানিফ বেপারীর মেয়ে ফাহিমা স্থানীয় নুরুন্নেছা কাদের মেমোরিয়াল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী। শুক্রবার তাকে একই উপজেলার মেমানিয়া ইউনিয়নের কাচিকাটা গ্রামের ইউনুচ মাঝির ছেলে সঙ্গে বিয়ের দিন তারিখ ঠিক করে দুই পরিবার। হিজলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু জাফর রাশেদ জানান, একটি বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির শিার্থীকে বিয়ে দেওয়ার খবর জানতে পারেন তিনি। এই তথ্যের ভিত্তিতে ওই বাড়িতে গিয়ে তিনি বিয়ের আয়োজন দেখতে পান। শুক্রবার মেয়েটিকে ছেলে পরে হাতে তুলে দেওয়ার কথা ছিল। মাত্র ১৩ বছর বয়সে শিার্থীর বিয়ে দিচ্ছিল পরিবার। পরে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, মেম্বার এবং নুরুন্নেছা কাদের মেমোরিয়াল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিকের উপস্থিতিতে বাল্য বিবাহ বন্ধ করে দেন তিনি। একই সঙ্গে গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে মুচলেকা দিয়ে মেয়ের বাবার হাতে ফাহিমাকে তুলে দেওয়া হয়। যতদিন পর্যন্ত ফাহিমার বয়স ১৮ পূর্ণ না হবে ততদিন পর্যন্ত বিয়ে না দেওয়ার অঙ্গীকার কারানো হয়। অন্যদিকে উপজেলা প্রশাসনের প থেকে ফাহিমার পড়াশুনার খরচ বহন করার ঘোষণা দেওয়া হয়। এ নিয়ে গত এক বছরে ৩২টি বাল্য বিবাহ বন্ধ করে তাদের শিার দায়িত্ব উপজেলা প্রশাসন নিয়েছে বলে জানান ইউএনও।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।