আজকের বার্তা | logo

২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং

বরগুনায় প্রতিবন্ধী মেয়ের ধর্ষণের বিচার চেয়ে দরিদ্র পিতা জেলহাজতে

প্রকাশিত : ডিসেম্বর ১১, ২০১৭, ২২:৪২

বরগুনায় প্রতিবন্ধী মেয়ের ধর্ষণের বিচার চেয়ে দরিদ্র পিতা জেলহাজতে

বরগুনা প্রতিনিধি: বরগুনার তালতলীতে প্রতিবন্ধী মেয়ের ধর্ষণের বিচার চাইতে গিয়ে মিথ্যে মামলার শিকার হয়ে দরিদ্র পিতা মোঃ মোশারেফ হোসেন এখন জেল হাজতে। আজ সোমবার দুপুরে বরগুনার পুলিশ সুপার বিজয় বসাকের সাথে দেখা করে এসব কথা জানান প্রতিবন্ধী কিশোরীর মা রাণী বেগম। পরে বরগুনা প্রেস ক্লাবের সাংবাদিকদের কাছে এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দেন রিক্সা চালক মোঃ মোশারেফ হোসেনের স্ত্রী ও নির্যাতনের শিকার প্রতিবন্ধী কিশোরীর মা রাণী বেগম।

এর আগে চলতি বছর ২৪ অক্টোবর প্রতিবন্ধী মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে বরগুনার তালতলী উপজেলার সওদাগর পাড়া গ্রামের শোঃ শাহ আলমের ছেলে আল-আমিনকে (২২) আসামী করে তালতলী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন নির্যাতনের শিকার ওই কিশোরীর মা রাণী বেগম।

মামলা দায়েরের পর বরগুনার পুলিশ সুপারের নির্দেশে প্রকৃত অপরাধীকে গ্রেপ্তারে পুলিশ সচেষ্ট হলে গত ৩১ নভেম্বর বরগুনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নির্যাতনের শিকার ওই কিশোরীর পিতা মোঃ মোশারেফ হোসেন এবং মা রানী বেগমকে আসামী করে আড়াই লাখ টাকা ধার নিয়ে পরিশোধ না করার অভিযোগ এনে একটি মামলা দায়ের করে ধর্ষক আল-আমিনের পিতা মোঃ শাহ-আলম। এ মামলায় গত ৬ ডিসেম্বর তারিখ স্বেচ্ছায় হাজির হলে আদালত তার জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠায়।

নির্যাতনের শিকার প্রতিবন্ধী কিশোরীর মা রাণী বেগম আক্ষেপ করে বলেন, ‘গরীব মানুষের জন্যে কোন বিচার নাই। গরীব মানুষের পাশে কেউ নাই। দুনিয়ার সবাই জানে আমার প্রতিবন্ধী মেয়েডারে দিনের পর দিন ধর্ষণ করেছে আল-আমিন। এ ঘটনায় আমরা মামলাও করলাম। মামলায় ধর্ষকের কোন কিছুই হল না। অথচ বিনা দোষে জেলে গেল আমার রিক্সাওয়ালা গরীব স্বামিডা। ’

এ বিষয়ে তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কমলেশ চন্দ্র হালদার বলেন, তালতলী থানায় দায়েরকৃত ধর্ষণের মামলায় তারা স্বাক্ষ্য প্রমাণ নিয়েছেন। প্রাথমিকভাবে তারা ধর্ষণের তথ্য-প্রমাণ পেয়েছেন। আসামী আল আমিন বর্তমানে পলাতক রয়েছে।

বরগুনার পুলিশ সুপার বিজয় বসাক বলেন, ধর্ষণের অভিযোগ দায়েরের আগেই ভুক্তভোগী পরিবার তার সঙ্গে দেখা করে বিস্তারিত অবহিত করেন। তাৎক্ষণিকভাবে তিনি তালতলী থানার ওসিকে মামলা নিয়ে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেন। এ ঘটনায় তালতলী থানায় মামলা নেয়া হয়েছে এবং অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারের জন্যে পুলিশ সচেষ্ট রয়েছে বলে তিনি জানান।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।