আজকের বার্তা | logo

১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৬শে মে, ২০১৮ ইং

তালতলীতে ইউপি সদস্যের উপর ফের হামলা দোকান ভাংচুর, আহত ৩০

প্রকাশিত : ডিসেম্বর ১৫, ২০১৭, ২২:৫৬

তালতলীতে ইউপি সদস্যের উপর ফের হামলা দোকান ভাংচুর, আহত ৩০

ইউপি সদস্যের উপর হামলা করে পায়ের রগ কেটে দেয়ার মামলায় জেলহাজত থেকে বৃহস্পতিবার জামিনে মুক্তি পেয়ে ফের হামলা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভাংচুরের ঘটনা ঘটিয়েছে প্রতিপক্ষ। অন্যপক্ষের অভিযোগ জামিনে মুক্তি পেয়ে বাসায় ফেরার পথে মটরসাইকেলের গতি রোধ করে পিটিয়ে ও কুপিয়ে মারাত্মক যখম করে। ঘন্টাব্যাপী দফায় দফায় সংঘর্ষে উভয়পক্ষের ৩০ জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহত ইউনুস রাঢ়ী, মহসীন, জাকির হোসেন সিকদার, মর্জিনা বেগম, অলি উল্লাহকে পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে এবং হারুন মোল্লা, কামাল মোল্লা, জামাল মোল্লা, বাশার মোল্লা, আলী হোসেন, জাকির মোল্লাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়াও শাহনাজ বেগম, হারুন রাঢ়ী, রাসেল রাঢ়ী, এরশাদ রাঢ়ী, শুক্কুর মিয়া, মাসুদ রাঢ়ী, জামাল খান ও পিয়ারা বেগমকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। উপজেলার কড়ইবাড়ীয়া ইউনিয়নের নিওপাড়া বাজারে বৃহস্পতিবার রাত ৮আটটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় শুক্রবার পুলিশ রাজা মৃধা ও বশির উদ্দিনকে আটক করেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার কড়াইবাড়িয়া ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ জলিল রাঢ়ীকে গত ২ জুলাই সন্ধ্যায় জামাল মোল্লা পাওনা টাকা দেয়ার কথা বলে তালতলী গ্রামীন ব্যাংকের নিচে ডেকে নেয়। পরে জামাল মোল্লা, বাচ্চু হাওলাদার, শুক্কুর আলী, দুলাল হাওলাদার, আলী মিয়া ও রাজা মৃধাসহ ৮-১০ জন মিলে ওই ইউপি সদস্যকে এলোপাথারী পিটিয়ে ও কুপিয়ে মারাত্মক যখম করে। এক পর্যায় তারা ওই ইউপি সদস্যকে টেনে-হেচরে নির্জন স্থানে নিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে বাম পায়ের গোড়ালির উপরের রগ কেটে ,পায়ের পাতা, ডান পায়ের মধ্যমা আঙুল ও ডান হাতসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে পার্শ্ববর্তী পুকুরে ফেলে দেয়। এ ঘটনায় গত ৩ জুলাই জামাল মোল্লা, শুক্কুর আলী, আলী মিয়াসহ ৭ জনের নামে ইউপি সদস্যের বড় ভাই ইউনুস রাঢ়ী বাদী হয়ে তালতলী থানায় মামলা করেন। এ মামলায় গত ৯ নভেম্বর আসামি জামাল মোল্লা, শুক্কুর আলী ও আলী মিয়া আমতলী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হয়। বিজ্ঞ আদালত তাদের জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরন করেন। গত এক মাস ধরে আসামিরা হাজতবাসের পর বৃহস্পতিবার আসামিরা বরগুনা জেল হাজত থেকে জামিনে ছাড়া পায়। ওইদিন আসামিরা রাত সাড়ে আটটার দিকে ১৫/২০ খানা মোটর সাইকেলে মহরার সময় উপজেলার নিউপাড়া বাজারে আসে। সেখানে ওই মামলার বাদী পক্ষ ইউপি সদস্য জলিল রাঢ়ীকে উপস্থিতি দেখে হঠাৎ উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। এ ঘটনায় ইউপি সদস্য জলিল রাঢ়ীর রড সিমেন্টের দোকান ও সুলতান হাওলাদারের ঔষধের দোকান ভাংচুর করা হয়। দফায় দফায় সংঘর্ষ ও হামলার তান্ডবে বাজারের দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়। বাজারের আশপাশেও ছড়িয়ে পরে আতঙ্ক। ঘন্টাব্যাপী দফায় দফায় সংষর্ঘে উভয় পক্ষের ৩০ জন আহত হয়। স্থানীয় লোকজন জাকির মোল্লা ও আলী মিয়া নামের দু’জনকে আটক করে। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। পরে আটক দু’জনকে পুলিশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। এ ঘটনায় শুক্রবার রাজা মৃধা ও বশির উদ্দিনকে আটক করেছে।

ইউপি সদস্য জলিল রাঢ়ী বলেন, গত জুলাই মাসে আমাকে পাওনা টাকা দেয়ার কথা বলে জামাল মোল্লা ডেকে নিয়ে আমার হাত ও পায়ের রগ কেটে শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে পুকুরে ফেলে দেয়। এ ঘটনায় জামাল মোল্লাকে প্রধান আসামি করে ৭ জনের নামে থানায় মামলা হয়। আসামিরা দীর্ঘ এক মাস ধরে এ মামলায় জেল হাজতে ছিল। বৃহস্পতিবার জেল হাজত থেকে জামিনে ছাড়া পেয়ে জামাল মোল্লা আমাকে মামলা তুলে না নিলে মোবাইল ফেনে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। ওইদিন রাত আটটার দিকে ১৫/২০ টি মোটর সাইকেলে করে জালাম মোল্লার নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে এসে আমার উপর হামলা চালায় কিন্তু আমি অল্পের জন্য রক্ষা পাই। এ সময় আমাকে রক্ষায় আমার লোকজন এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা আমার লোকজন কুপিয়ে আহত করে এবং আমার রড সিমেন্টের দোকান ও সুলতান হাওলাদারের ঔষধের দোকান কুপিয়ে ভাংচুর করেছে।

জামাল মোল্লা জানান, জামিনে ছাড়া পেয়ে তালতলী যাওয়ার পথে নিউপাড়া বাজারে আসলে জলিল রাঢ়ী ও তার লোকজন আমাদের উপরে অতর্কিত হামলা চালায়। এতে আমাদের পক্ষের ১২জর আহত হয়েছে।

তালতলী থানার ওসি কমলেশ চন্দ্র হালদার বলেন নিউপাড়া বাজারে গতকাল রাতে জলিল রাঢ়ী ও জামাল মোল্লার লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে এনেছি। এ ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে রাজা মৃধা ও বশির উদ্দিনকে আটক করা হয়েছে।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।