আজকের বার্তা | logo

৯ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৩শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং

চিকিৎসার নামে কিশোরীকে কুপ্রস্তাব দিল ডাক্তার! অতঃপর…

প্রকাশিত : ডিসেম্বর ২৫, ২০১৭, ১২:৩৬

চিকিৎসার নামে কিশোরীকে কুপ্রস্তাব দিল ডাক্তার! অতঃপর…

রাজশাহী মহানগরীতে এক কিশোরী রোগী ও তার খালাকে শ্লীলতাহানির চেষ্টার অভিযোগে রাজশাহী মেডিকেল কলেজের সহযোগী অধ্যাপক কে অবরুদ্ধ করার ঘটনা ঘটেছে।

রবিবার (২৪ ডিসেম্বর) রাতে মহানগরীর লক্ষ্মীপুর এলাকায় অবস্থিত ‘পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারে’ এ ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে। এ ঘটনার সময় উত্তেজনাপূর্ণ অবস্থা দেখা দিলে পুলিশ গিয়ে সেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

শ্লীলতাহানির চেষ্টাকারী অভিযুক্ত ওই চিকিৎসকের নাম আবদুর রশিদ। চিকিৎসক আবদুর রশিদ ডায়াবেটিক ও হরমোন বিশেষজ্ঞ। তিনি রাজশাহী মেডিকেল কলেজের সহযোগী অধ্যাপক।

ইতোমধ্যে ৯ বছর বয়সী ভাগ্নি ও ২০ বছরের ওই তরুণীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে ওই চিকিৎসককে মারপিট করার ঘটনাও ঘটেছে।

এ ঘটনার শিকার কিশোরী রোগী ও তার খালার বাড়ি মহানগরীর কাটাখালী এলাকায়। ওই কিশোরীর বাবা জানান, তার মেয়ে হরমোনের সমস্যায় ভুগছেন এ কারণে তাকে হরমোন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক আবদুর রশিদের কাছে নিয়ে যাওয়া হয়। এ সময় আমার শ্যালিকা ও আমার মেয়ে ওই ডাক্তারের চেম্বারের ভিতরে প্রবেশ করে।

তারপরে ওই চিকিৎসক ভিতর থেকে প্রবেশ দরজা বন্ধ করে দিতে বলেন। ডাক্তারের কথা অনুযায়ী, আমার শ্যালিকা দরজা বন্ধ করে দেন। চিকিৎসার নামে নরপশু ওই চিকিৎসক প্রথমে আমার মেয়ের শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয়। তখন আমার শ্যালিকা এতে বাধা দেন। এরপর ওই চিকিৎসক আমার শ্যালিকাকেও কু-প্রস্তাব দেন। এ ঘটনার পরপরই চেম্বার থেকে বেরিয়ে আসতে চাইলে ওই চিকিৎসক আবদুর রশিদ আমার শ্যালিকাকেও শ্লীলতাহানির চেষ্টা চালান।

এই সুযোগে আমার মেয়ে ডাক্তারের চেম্বার কক্ষের দরজা খুলে দেয়। এরপর বিষয়টি জানাজানি হয়। এ সময় ওই চিকিৎসকের সঙ্গে তার ধস্তাধস্তিও হয়। পরে অন্য রোগীর স্বজনরা গিয়ে তাকে অবরুদ্ধ করে রাখেন।

পুলিশ এ ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

এ বিষয়ে চিকিৎসক আবদুর রশিদ তার ব্যাপারে আনিত এসকল অভিযোগ অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, এরকম কোনো ঘটনাই ঘটেনি সে সময়। ওই চিকিৎসকের দাবি, তাকে পরিকল্পিতভাবে ফাঁসানো হচ্ছে।

ওই পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সিনিয়র মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ রেজাউল করিম জানান, আসলে কী ঘটনা ঘটেছে, তা তারা নিজেরাও বুঝে উঠতে পারেননি। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। তারা এ ব্যাপরে খোঁজখবর নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন।

এ বিষয়ে রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান জানান, চিকিৎসককে মারপিট এবং অবরুদ্ধ করে রাখার খবর পাওয়ার পরে সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়। পুলিশ গিয়ে উত্তেজনাপূর্ণ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

তিনি বলেন, এ ঘটনার শিকার হওয়া ভুক্তভোগীদের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলেই আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Share Button


আজকের বার্তা

আগরপুর রোড, বরিশাল সদর-৮২০০

বার্তা বিভাগ : ০৪৩১-৬৩৯৫৪(১০৫)
ফোনঃ ০১৯১৬৫৮২৩৩৯ , ০১৬১১৫৩২৩৮১
ই-মেলঃ ajkerbarta@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ
Site Map
Show site map

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রকাশকঃ কাজী মেহেরুন্নেসা বেগম
সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতাঃ কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল
Website Design and Developed by
logo

আজকের বার্তা কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।